১৫ টি প্রয়োজনীয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস – যেগুলি আপনিও ব্যবহার করতে পারেন

প্রয়োজনীয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস – আজকের দিনে প্রায় প্রত্যেকেই এন্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহার করে থাকে। এন্ড্রয়েড মোবাইল আমাদের জীবনের অনেক কাজকে সহজ ও সরল করে দিয়েছে। কিন্তু এই সরলতার পেছনে রয়েছে অনেক ধরনের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। যেসব অ্যাপ্লিকেশনগুলি আমাদের নিত্যদিনের বিভিন্ন কাজে ব্যবহৃত হয়।

যদি আপনি একজন অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী হন এবং কোন কোন অ্যাপ্লিকেশন আপনার ফোনে থাকা প্রয়োজন, এটি না জেনে থাকেন তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনাকে সাহায্য করবে।

আজ আমরা এমন ১৫ টি প্রয়োজনীয় কিছু অ্যাপ এর সম্বন্ধে আলোচনা করব, যে দরকারি অ্যাপস গুলি সম্বন্ধে জানার পর আপনি আপনার নিত্যদিনের কাজকে অনেক সহজ করে নিতে পারবেন। দেরি না করে অ্যান্ড্রয়েডের সেরা অ্যাপস গুলি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

প্রয়োজনীয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস

এখানে যে পনেরোটি অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে বলা হয়েছে, এই সমস্ত অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ প্লে স্টোর থেকে খুব সহজে ডাউনলোড করা যায়। আপনি চাইলে এই সমস্ত অ্যাপস গুলি playstore থেকে ডাউনলোড করতে পারেন।

YouTube

প্রয়োজনীয় অ্যাপস গুলির মধ্যে নাম্বার ওয়ানে যে এপ্লিকেশন টা আছে তার নাম ইউটিউব। ইউটিউব হলো একটি গুগলের তৈরি ভিডিও প্ল্যাটফর্ম। এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনি বিনামূল্যে যেকোন ক্যাটাগরির ভিডিও দেখতে পারেন।

এই অ্যাপ্লিকেশনটি বিভিন্ন প্রডাক্ট হাউসের ভিডিওর পাশাপাশি সাধারণ লোকদের ইনফরমেটিভ ভিডিও নিজের মোবাইলে দেখবার জন্য ব্যবহার করা হয়।

ইউটিউব এর মাধ্যমে trending song, web series, short film, tutorial video, এবং অন্যান্য informative video সবকিছু দেখতে পাওয়া যায়। যদি আপনার মোবাইলে এই অ্যাপ্লিকেশনটি না থাকে তাহলে আপনি এক্ষুনি অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করুন। নচেৎ আপনি বর্তমান যুগের বিভিন্ন ইনফর্মেশন থেকে বঞ্চিত থাকবেন।

Facebook

পৃথিবীর যে কোন মানুষের সাথে কথা বলার জন্য ফেসবুকে কানেক্ট হওয়া যায়। এবং আজকের দিনে প্রায় প্রত্যেকেই ফেসবুক ব্যবহার করে থাকে। বেশিরভাগ মানুষ মোবাইলের browser থেকে ফেসবুক চালালেও, ফেসবুক কোম্পানির যে একটি নিজস্ব এপ্লিকেশন আছে সেটি অনেকেই জানেনা।

ফেসবুক অ্যাপ্লিকেশন এর মাদ্ধমে আপনি খুব সহজে ফেসবুক ওপেন করতে পারবেন এবং ব্যবহার করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে বারবার ব্রাউজারে গিয়ে ফেসবুক লিখে সার্চ করতে হবে না।

ফেসবুক গোটা পৃথিবীজুড়ে, খুবই জনপ্রিয় হওয়ার কারণে প্রায় 500 মিলিয়ন এর উপর মানুষ facebook অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করেছে। এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে খুবই সহজ ভাবে ফেসবুক ব্যবহার করা যায়। আপনি চাইলে এই অ্যাপ্লিকেশনটি ও ফেসবুক ব্যবহার করার জন্য আপনার মোবাইলে ইন্সটল করতে পারেন।

Messenger

যদি আপনি সহজভাবে ফেসবুকে চ্যাট করতে চান তাহলে, শুধুমাত্র চ্যাট করার জন্য ফেসবুক কোম্পানি একটি এপ্লিকেশন তৈরি করেছে তার নাম হলো মেসেঞ্জার। এই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনি কোন ব্যক্তির সাথে চ্যাট করার সাথে সাথে, current location, audio, video, image, sticker, emoji, এ সমস্ত কিছু শেয়ার করতে পারবেন।

আপনি এগুলো ডাইরেক্ট ফেসবুক ওয়েবসাইট থেকেও করতে পারেন কিন্তু সেখানে এই সমস্ত একসাথে করা একটু অসুবিধাজনক। তাই আপনি কোন ঝামেলা ছাড়া কোন ব্যক্তির সাথে চ্যাট করতে চাইলে ফেসবুক মেসেঞ্জার অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করতে পারেন।

Spotify

ভালো কিছু অ্যাপ গুলির মধ্যে Spotify ও খুব জনপ্রিয় একটি অ্যাপ্লিকেশন। যদি আপনি গান শুনতে পছন্দ করেন তাহলে এই অ্যাপ্লিকেশনটি আপনার কাজে আসবে। এই অ্যাপ্লিকেশনটি থেকে আপনি ডাইরেক্ট অনলাইনের মাধ্যমে গান শুনতে পারেন। এবং এই অ্যাপ্লিকেশনটি থেকে গান শোনার জন্য আপনাকে কোন গানই নিজের মোবাইলে ডাউনলোড করতে হবে না। আপনি সরাসরি কোন ঝামেলা ছাড়াই যেকোনো গান যেকোনো সময় শুনতে পারেন।

এই অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে যে কোন গায়কের গাওয়া গান থেকে শুরু করে, যেকোন পুরনো এবং নতুন গান এবং এর সাথে যে কোন সিনেমার যে কোন গান খুব সহজেই শুনতে পারবেন।

MX Player

যদি আপনি মোবাইলের মাধ্যমে সিনেমা দেখতে পছন্দ করেন তাহলে অনেকেই প্রথমে সিনেমাটি নিজের মোবাইলে ডাউনলোড করে থাকে। এবং কোন সিনেমা হাই কোয়ালিটির হয়ে গেলে, মোবাইলের ডিফল্ট ভিডিও প্লেয়ার এ কখনো কখনো সিনেমাটির সাপোর্ট করে না এবং কখনও কখনও সাউন্ড প্রবলেম হয়।

যদি আপনি এই সমস্যা দূর করতে চান তাহলে MX player অ্যাপ্লিকেশনটি মোবাইলে ডাউনলোড করে যেকোন ভিডিও এবং যে কোন সিনেমা চালাতে পারেন। এটি এমন একটি প্রয়োজনীয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস যেটি মোবাইলের জন্য সর্বদা দরকারি।

Snaptube

কখনো কখনো ইউটিউব এর কোন ভিডিও ভালো লাগলে সেই ভিডিওটি নিজের মোবাইলে ডাউনলোড করার ইচ্ছা হয়। ইউটিউব থেকে কোন ভিডিও ডাউনলোড করার জন্য এই অ্যাপ্লিকেশনটি কাজে আসে। এই জন্য ইউটিউব থেকে কোন ভিডিও ডাউনলোড করতে হলে আপনি Snaptube অ্যাপ্লিকেশন এর ব্যবহার করতে পারেন।

তবে এই অ্যাপ্লিকেশনটি আমি ডাইরেক্টলি প্লে স্টোর থেকে পাবেন না। আপনি চাইলে এটি গুগল থেকে সরাসরি ডাউনলোড করতে পারেন। এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনি ইউটিউব এর যেকোন ভিডিও খুব সহজভাবে ডাউনলোড করতে পারবেন।

WhatsApp

হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনি যে কোন ব্যক্তির ফোন নাম্বার নিজের মোবাইলে জমা করে সেই ব্যক্তির সাথে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে, ভিডিও কল, অডিও এবং ভিডিও পাঠানো, ছবি এবং ইমোজি পাঠানো, লোকেশন শেয়ার করা এই সমস্ত কিছু করতে পারবেন।

WhatsApp হল আজকের দিনে নাম্বার ওয়ান চ্যাটিং অ্যাপ্লিকেশন। এবং সকলের মোবাইলেই এই অ্যাপ্লিকেশনটি থাকে। যদি আপনি এই অ্যাপ্লিকেশনটি সম্পর্কে না জেনে থাকেন তাহলে হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট কিভাবে বানাতে হয় এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

Instagram

যদি আপনি ছবি তুলতে পছন্দ করেন তাহলে এই প্লাটফর্ম এটি খুবই জনপ্রিয় এবং প্রয়োজনীয়। ইনস্টাগ্রাম হল একটি ইমেজ প্ল্যাটফর্ম। এখানে বিভিন্ন মানুষ তাদের মোবাইল এবং ক্যামেরার সাহায্যে ছবি তুলে ইনস্টাগ্রামে অ্যাকাউন্ট বানিয়ে, অন্যান্য মানুষের সাথে শেয়ার করে।

যদি আপনি ও আপনার ছবি অনান্য ব্যক্তিদের দেখাতে চান তাহলে ইনস্টাগ্রম অ্যাপ্লিকেশনটি আপনার জন্য খুবই প্রয়োজনীয় একটি অ্যাপ্লিকেশন।

Google meet

অনলাইনের মাধ্যমে বাড়িতে বসে কোনো মিটিং এটেন্ড করতে চাইলে গুগল মিত এপ্লিকেশনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনি যেকোন মিটিং শুরু এবং যে কোন মিটিং জয়েন করতে পারবেন।

এবং যেহেতু এটি একটি গুগোল অ্যাপ্লিকেশন তাই এটি ব্যবহার করলে আপনাকে কোনরকম চার্জ দিতে হবে না। আমি আগেই গুগোল মিত কিভাবে ব্যবহার করে এ সম্পর্কে একটি আর্টিকেল লিখেছি আপনি চাইলে এটি দেখতে পারেন।

Google Keep

আজকের এই ব্যস্ত জীবনে অনেক সময় কিছু জিনিস নোট করে রাখার প্রয়োজন পড়ে। যদি আপনি কোন কিছু পরে করতে চান এবং বর্তমানে সেটিকে কোথাও লিখে রাখতে চান তাহলে Google Keep অ্যাপ্লিকেশনটি আপনি ব্যবহার করতে পারেন।

এখানে আপনি নিত্যদিনের যেকোনো জিনিস বা কাজ লিখে রেখে সেটিকে সময়মতো দেখে নিয়ে, জিনিসটি খুব সহজে করে ফেলতে পারবেন। এজন্য কোনকিছু নোট করে দেখার জন্য কাগজ-কলমের দরকার নেই আপনি আমার মোবাইলে, Google Keep অ্যাপ্লিকেশনের সাহায্যে যেকোনো জিনিস নোট নোট করে রাখতে পারেন।

PicsArt

যারা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি ছাড়তে ভালোবাসে তাদের জন্য PicsArt অ্যাপ্লিকেশনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি হলো একটি image editing application

বিভিন্ন ধরনের টুলস এর মাধ্যমে আপনি যেকোন ছবি খুবই সহজ ভাবে এডিট করতে পারবেন। এবং সেই ছবিটিকে আগের তুলনায় অনেক attractive বানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় এবং অন্যান্য ব্যক্তিদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন।

Khata book

যদি আপনি কোন ব্যক্তিকে ধার দেন তাহলে আপনি এই অ্যাপ্লিকেশনটি আপনার মোবাইলে ইন্সটল করে রাখতে পারেন।

যেখানে আপনি কোন ব্যক্তিকে ধার দিলে, সেই ব্যক্তির নাম মোবাইল নাম্বার লিখে রাখতে পারবেন। এবং সময়মত সেই মোবাইল নাম্বারে মেসেজ করে জানাতে পারবেন যে আপনি তাকে কতটা ধার দিয়েছেন এবং কোন তারিখের মধ্যে সেটি পরিশোধ করতে হবে।

Netflix

আজকের দিনে সিনেমা এবং সিরিয়াল ছাড়াও আরেকটি জিনিস প্রচলিত আছে সেটি হল ওয়েব সিরিজ। আপনি যদি বিভিন্ন ধরনের ট্রেন্ডিং এবং পুরনো ওয়েব সিরিজ দেখতে চান তাহলে এই অ্যাপ্লিকেশনটি আপনার কাজে আসবে।

এখানে আপনি প্রিমিয়াম সার্চ দিয়ে বিভিন্ন ধরনের নতুন নতুন ওয়েবসাইট দেখতে পারবেন। এবং যদি আপনি বিনামূল্যে ওয়েব সিরিজ দেখতে চান তাহলে এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

Truecaller

অনেক সময় অচেনা নাম্বার থেকে আমাদের মোবাইলে ফোন কল আসে। তখন আমরা সেই অচেনা নাম্বার থেকে আসা ফোন কলটি তুলতে দ্বিধা বোধ করি।

তবে যদি আপনি প্লে স্টোর থেকে ট্রুকলার অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করে ইনস্টল করুন তাহলে, যে কোনো অচেনা নাম্বার থেকে আসা ফোন কল আপনি খুব সহজেই বুঝতে পারবেন।

এই অ্যাপ্লিকেশনটি মোবাইলে ইন্সটল করে রাখলে, কোন অজানা নাম্বার থেকে ফোন এলে সেই ব্যক্তির ফোন নাম্বারের সাথে সাথে সেই ব্যক্তির নাম, বিনা ইন্টারনেটে আপনার মোবাইল স্ক্রিনে দেখাবে। এর ফলে আপনি খুব সহজেই বুঝে যাবেন আপনি সেই ব্যক্তিকে চেনেন কিনা বা আপনার ফোন কলটি ধরা উচিত হবে কিনা। সুতরাং এটি খুবই প্রয়োজনীয় অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে একটি। আপনি চাইলে এটি বৃহস্পতি ডাউনলোড করতে পারেন।

Google Map

যদি আপনি নতুন নতুন জায়গায় যাওয়া পছন্দ করেন তাহলে গুগোল মাপ অ্যাপ্লিকেশনটি আপনার মোবাইলের সঙ্গে রাখুন।

এর মাধ্যমে আপনি অজানা কোন জায়গায় যেতে হলে সেই জায়গার লোকেশন দিয়ে খুব সহজভাবে নির্দিষ্ট জায়গায় পৌঁছে যাবেন। এবং আপনি কোন অজানা জায়গায় দাঁড়িয়ে সেই জায়গাটির নাম জেনে নিতে পারবেন। গুগল ম্যাপ কিভাবে ব্যবহার করতে হয় এই সম্পর্কে আমরা আগেই একটি আর্টিকেল লিখে রেখেছি। আপনি চাইলে এটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারেন।

উপসংহার:

তো এই ছিল ১৫ টি প্রয়োজনীয় কিছু অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস এর তালিকা, যেটি মোবাইলের জন্য খুবই দরকারি। আশা করি আপনি ১৫ টি অ্যাপ্লিকেশন এর কাজ সম্পর্কে ধারণা পেয়ে গেছেন। আপনি চাইলে উপরের তালিকা থেকে সবকটি অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করতে পারেন। কিংবা আপনার সুবিধামতো আপনি যে কোন এপ্লিকেশন কাজে লাগাতে পারেন। আশা করব এই ১৫ টি অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে জানার পর আপনার কাজ আগের তুলনায় সহজ হয়েছে।

আরও পড়ুন:

শেয়ার করতে চান!
  •  
  •  
  •  
  •  

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment