মোবাইল বন্ধ হয়ে যায় কেন – মোবাইল বন্ধ হওয়ার কারণ

মোবাইল বন্ধ হয়ে যায় কেন – অনেকেই অনেক সময় বলে যে “মোবাইল বন্ধ হয়ে গেছে“। এই কথাটি বলার কারণ হলো অনেক সময় মোবাইল আপনা আপনি বন্ধ হয়ে যায়। এবং কি কারনে মোবাইল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে এটা বুঝা যায় না।

এই জন্য আজকের আর্টিকেল থেকে আমরা মোবাইল বন্ধ হয়ে যায় কেন এবং মোবাইল বন্ধ হওয়ার কারণ গুলি জেনে নেব।

এই কারণগুলি যদি আপনি জেনে যান তাহলে, আপনার মোবাইলটি অটোমেটিক বন্ধ হয়ে যাওয়া থেকে আটকাতে পারবেন।

যদি আপনার মোবাইলেও একই সমস্যা থাকে তাহলে নিচে থেকে মোবাইল বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণ গুলি জেনে নিন।

পুরানো অ্যাপ এড়িয়ে চলুন

মোবাইল বন্ধ হওয়ার সবচেয়ে বড় কারণ হল অ্যাপস। কিছু নতুন বা পুরাতন অ্যাপ ফোনের অপারেটিং সিস্টেমের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়।

যদি আপনার ফোন ঘন ঘন ব্ল্যাকআউট হয়ে যায়, তবে প্রথমে আপনি যে অ্যাপগুলি ইন্সটল করেছেন সেগুলি আনইনস্টল করুন। যদি এরপরেও সমস্যার সমাধান না হয় তাহলে ফোনটিকে একবার সেফ মোডে চালু করুন।

এজন্য প্রথমে ফোন বন্ধ করতে হবে। তারপর পাওয়ার বোতাম টিপুন এবং ধরে রাখুন। ফোনটি চালু হওয়ার সাথে সাথেই আপনাকে একই সাথে ভলিউম আপ এবং ডাউন বোতাম টিপতে হবে।

সাথে সাথে ফোনটি safe মোডে শুরু হবে। বিভিন্ন মোবাইলে safe mode শুরু করার পদ্ধতি ভিন্ন হতে পারে। আপনি ইন্টারনেটে এটি খুঁজে পেতে পারেন।

ফোনটি যদি সেফ মোডে ঠিকমতো কাজ করে, তাহলে বুঝবেন অ্যাপে সমস্যা রয়েছে। তাই কিছু অ্যাপ আনইন্সটল করে ফোন রিস্টার্ট করুন। আশা করছি ঠিক হয়ে যাবে।

ব্যাটারির Health কেমন

বর্তমানে বেশিরভাগ ফোনে আপনি নিজে ব্যাটারি পরিবর্তন করতে পারবেন না। ব্যাটারির মধ্যে অনেক সময় স্ক্রিন ব্ল্যাকআউটের সমস্যা হয় এবং তা জানাও যায় না। তাই আপনার অ্যাপস চেক করা হয়ে গেলে ব্যাটারি চেক করুন।

যদি ব্যাটারি ফুরিয়ে না যায়, তাহলে ব্যাটারির বডি ভালো করে পরীক্ষা করে দেখুন ব্যাটারি ফুলে গেছে কিনা।

যদি ব্যাটারি ফুলে না যায় এবং যেকোন সময়ে স্ক্রীন ব্ল্যাকআউট হতে থাকে, তাহলে আপনি ব্যাটারি চেক করতে অ্যাম্পিয়ার অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে পারেন। এই অ্যাপটি আপনার ফোনের ব্যাটারির হেলথ বলে দেবে।

মাইক্রোএসডি কার্ড চেক করুন

কখনও কখনও আপনার ফোনে ইনস্টল করা মাইক্রোএসডি কার্ড সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এটাও মোবাইল বন্ধ হওয়ার কারণ হয়ে থাকে।

কার্ডে আপনি অন্য কোন ফোন বা পিসি থেকে মিউজিক, ফটো, ভিডিও ইত্যাদি নিলে, অন্য ডিভাইস থেকে ভাইরাস আসতে পারে এবং এই ভাইরাস আপনার ফোন নষ্ট করতে শুরু করে।

একই সময়ে, যদি কার্ডটি কোনো কারণে নষ্ট হয়ে যায় বা ক্ষতিগ্রস্থ হয়, তাহলেও ফোন বন্ধ হয়ে যাবে। এমতাবস্থায়, আপনি যদি ফোনে কার্ডটি insert করে রাখেন, তাহলে একবার কার্ডটি সরিয়ে ফোনটি পুনরায় চালু করুন। আশা করছি আপনার ফোন সঠিকভাবে কাজ করবে।

ফ্যাক্টরি রিসেট করুন

শুধু কার্ড থেকে নয়, ইন্টারনেট সার্ফিং বা ডেটা ট্রান্সফারের সময় ফোনে ভাইরাস আসতে পারে, যা আপনার ফোনে সমস্যা তৈরি করতে পারে।

যদি ফোন বন্ধ হয়ে যায় এবং আপনি মনে করেন এটি একটি ভাইরাস সমস্যা তাহলে এটির জন্য ফ্যাক্টরি ডেটা রিসেট বা হার্ড বুট করতে হতে পারে।

এটি আপনার ফোন ঠিক করবে। এমনকি যদি আপনার ফোন পুরানো হয় এবং আপনি কয়েক মাস ধরে এটি রিসেট না করেন, তবুও স্ক্রীন ব্ল্যাকআউট সমস্যা হতে পারে।

ফোনের মেমরি পূর্ণ থাকার কারণেও এ ধরনের সমস্যা হয়। এমন পরিস্থিতিতে আপনার ফোন থেকে cache মেমরি মুছে দিন এবং কাজ না করা অ্যাপস এবং ডেটা সরিয়ে দিন। এতে সমস্যার সমাধান হবে। ফোনটিকে ফ্যাক্টরি রিসেট করলে খুবই ভালো হয়।

সফটওয়্যার আপডেট করতে থাকুন

সফটওয়্যার আপডেট আপনার ফোনের OS এবং অ্যাপগুলি আপডেট হয়। এই আপডেট করলে ফোনের বাগ (bugs) দূর হয়ে থাকে।

এমতাবস্থায়, আপনি যদি কয়েক মাস ধরে আপনার ফোন আপডেট না করে থাকেন তবে শীঘ্রই আপডেট করুন। অ্যাপস বা সফটওয়্যারের কারণে যদি ফোন বন্ধ হয়ে যায় তাহলে সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

Care এ নিয়ে যান

উপরের tips গুলি ফলো করার পরেও যদি মোবাইল বন্ধ হতে থাকে তাহলে আপনার নিকটবর্তী মোবাইল কোম্পানির care এ যান।

তাদের কাছে মোবাইল দিলে, তারা মোবাইলের সমস্যা খুঁজে বের করে, সেটি ঠিক করে দেবে।

উপসংহার

আশা করছি উপরের ইনফর্মেশন থেকে মোবাইল বন্ধ হওয়ার কারণ এবং মোবাইল বন্ধ হয়ে যায় কেন এই সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। এবং যদি আপনার মোবাইলেও একই সমস্যা থাকে তাহলে এর সমাধান খুঁজে পেয়েছেন। যদি আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথেও শেয়ার করুন। যদি তাদের মোবাইলেও সমস্যা থাকে তাহলে তারাও এই পদ্ধতি অবলম্বন করে তাদের মোবাইলটি ঠিক করতে পারবে। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

শেয়ার করতে চান!

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment