আর্টিকেল রাইটিং কি – আর্টিকেল লেখার নিয়ম

আজকাল ইন্টারনেটে অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে। এবং এইসব ওয়েব সাইটগুলি প্রত্যেকদিন নিত্যনতুন আর্টিকেল পাবলিশ করে থাকে। এবং এর জন্য তারা অনেক ধরনের আর্টিকেল রাইটার দের ভাড়া করে। এবং সেই সমস্ত রাইটার, আর্টিকেল রাইটিং করে ওয়েবসাইটের মালিক এর থেকে ভালো পরিমাণ টাকা চার্জ করে।

কিন্তু প্রকৃতপক্ষে আর্টিকেল রাইটিং কি, আর্টিকেল রাইটিং করার জন্য আর্টিকেল লেখার নিয়ম এবং আর্টিকেল লিখে আয় করার উপায় গুলি কি – যদি আপনি এইসব সম্পর্কে জানতে চান এবং আপনিও একজন আর্টিকেল রাইটার হতে চান, তাহলে আজকের আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন।

আর্টিকেল রাইটিং কি?

কোন ব্যক্তি, বিষয় বা বস্তু সম্পর্কে সাজিয়ে গুছিয়ে কোনো কনটেন্ট লিখলে সেটিকে আর্টিকেল রাইটিং বলা হয়।

আর্টিকেল রাইটিং এর সাহায্যে, কোন ব্যক্তি বা বস্তু সম্পর্কে সমস্ত ইনফরমেশন লিখে রাখা যায়। এবং সেই ইনফরমেশনটা অন্য ব্যক্তিদের সাথে শেয়ার করা যায়।

আজকাল ইন্টারনেটে যত ওয়েবসাইট আছে তাদের মধ্যে বেশির ভাগ সাইটই আর্টিকেল লিখে, অন্য ব্যক্তিদের সাহায্য করে থাকে।

আর্টিকেল মানে হলো অনেক গুলি বাক্যের সমষ্টি। এবং যখন সেই বাক্যগুলির সাহায্যে, কোন নির্দিষ্ট বিষয় সম্পর্কে সম্পূর্ণ ইনফরমেশন দেওয়া হয়। তখন সেটি আর্টিকেল এর রূপ পায়।

আর্টিকেল লেখার জন্য কি জানতে হবে

একটি ভালো আর্টিকেল লেখার জন্য আপনাকে অবশ্যই আর্টিকেল রাইটিং সম্পর্কে জ্ঞান থাকতে হবে। যেমন –

  • আপনাকে অবশ্যই ইনফরমেশনের রিসার্চ করতে হবে। যাতে করে নির্দিষ্ট বিষয়টি সম্পর্কে কোনো আর্টিকেল লেখার সময়, একটিও মূল্যবান তথ্য বাদ না পড়ে।
  • এছাড়া সবকটি স্পেলিং ভালোভাবে জানতে হবে। যদি আপনি বানান ভুল করেন তাহলে আপনার আর্টিকেলটি পাঠকদের দ্বারা পড়ার সময় অসুবিধা হবে।
  • Heading, Subheading, paragraph এর সাথে বুঝিয়ে আর্টিকেল লিখতে হবে।
  • যদি আপনি কম্পিউটারে আর্টিকেল লিখেন তাহলে কম্পিউটার সম্পর্কে আপনার বেসিক নলেজ থাকতে হবে।

আর্টিকেল লেখার নিয়ম

ভালো ভাবে সাজিয়ে গুজিয়ে কোন আর্টিকেল লিখতে গেলে কিছু নিয়ম-কানুন মেনে চলতে হয়। যার মাধ্যমে পাঠকরা খুব সহজভাবে আর্টিকেলটি বুঝতে পারবে। আর্টিকেল লেখার নিয়ম গুলি হল-

1. Introduction

কোন বিষয় শুরু করার আগে প্রথমে সেই বিষয়টি সম্পর্কে ইন্ট্রোডাকশন দেওয়া প্রয়োজন আছে। এইজন্য আর্টিকেল লেখার শুরুতে আর্টিকেলটি আপনি কি সম্পর্কে লিখতে যাচ্ছেন এবং আর্টিকেলটি পড়ে পাঠকের কি লাভ হবে, এই সম্পর্কে একটি ছোট ইন্ট্রোডাকশন দেওয়া অবশ্যই দরকার।

যার থেকে পাঠকরা খুব সহজে বুঝতে পারবে নির্দিষ্ট আর্টিকেলটির তার পক্ষে কতটা লাভজনক হবে।

2. Body

ইন্ট্রোডাকশন দেওয়া হয়ে গেলে আপনি আর্টিকেলটি লেখা শুরু করতে পারেন। তবে আপনাকে এমন ভাবে আর্টিকেলটি লিখতে হবে যেন নির্দিষ্ট বিষয়টি পাঠকরা খুব সহজেই বুঝতে পারে।

এইজন্য step-by-step প্যারাগ্রাফ এবং হেডিং অনুযায়ী আর্টিকেলটি লিখতে পারেন। কোন প্যারাগ্রাফে কি থাকছে, এর একটি সূচিপত্র তৈরি করে, একদম উপরে রাখতে পারেন।

যার মাধ্যমে পাঠকরা খুব সহজে তার দরকারি জিনিস টি সম্পর্কে জ্ঞান নিতে পারবে।

3. Conclusion

যদি আপনার আর্টিকেল লেখাটা সম্পন্ন হয়ে যায় তাহলে, একদম শেষে আপনি উপসংহার নামক একটি part যোগ করতে পারেন।

যেখানে আর্টিকেলটি সম্পর্কে আপনি body সেকশন এ যা বুঝিয়েছেন, সেটি উপসংহারে খুব ছোট করে কয়েক লাইন এর মধ্যে আর একবার বুঝিয়ে দিন।

এবং একদম শেষের কিছু লাইনে, আপনার পাঠকদের এই আর্টিকেলটি কেমন লাগলো? তারা কি এরকম আর্টিকেল পেতে চায়? এই সমস্ত কথা বলে আর্টিকেলটি সম্পন্ন করুন।

আর্টিকেল রাইটিং টিপস

সুন্দরভাবে আর্টিকেল লেখার কিছু টিপস রয়েছে। যেটির মাধ্যমে আপনি খুব সুন্দর ভাবে আপনার পাঠকদের যেকোনো লেখা বোঝাতে পারবেন। সেগুলি হল –

  1. সর্বদা 3 থেকে 4 টি বাক্যের মধ্যে একটি প্যারাগ্রাফ শেষ করুন।
  2. গুরুত্বপূর্ণ sentence গুলি, Bold এবং Italic করুন।
  3. নতুন ইনফরমেশনের title গুলিতে সর্বদা Heading দিন।
  4. Quote লিখতে হলে Quotation Mark (“) করুন।
  5. Grammar এবং spelling চেক করুন।
  6. এমনভাবে আর্টিকেলটি লিখুন যেনো আপনি কারো সাথে কথা বলছেন এবং তাকে নির্দিষ্ট টপিকটি সম্পর্কে বোঝাচ্ছেন।

আর্টিকেল রাইটিং করে আয় করার উপায়

আজকাল ইন্টারনেটে অনেক ব্যক্তি আর্টিকেল রাইটিং করে আয় করছে। যদি আপনিও ভাল আর্টিকেল লিখতে পারেন আপনিও আয় করতে পারেন।

যদি আপনি আর্টিকেল রাইটিং করে আয় করতে চান তাহলে দুটি উপায়ে আয় করতে পারেন।

  1. Blog বানিয়ে
  2. Freelancing করে

১. Blog

ব্লগ বানিয়ে আয় করার জন্য আপনি নিজস্ব একটি ব্লগ বানিয়ে, সেখানে আর্টিকেল পাবলিশ করতে পারেন।

এবং যখন আপনার আর্টিকেল গুলি সার্চ ইঞ্জিনে rank করবে তখন, আর্টিকেল এগুলির মধ্যে বিভিন্ন অ্যাডভার্টাইজমেন্ট লাগিয়ে, ভালো পরিমাণ অর্থ আয় করতে পারেন।

এবং এই ভাবে আর্টিকেল রাইটিং করে আয় করার জন্য আপনাকে কারোর ওপর নির্ভরশীল হতে হবে না। আপনি যেমন কাজ করবেন, আপনি তেমন উপার্জন করতে পারবেন।

২. Freelancing

যদি আপনি নিজের ব্লগ না বানিয়ে, ফ্রিল্যান্সার হয়ে কাজ করতে চান তাহলে ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটে অ্যাকাউন্ট বানিয়ে, অন্যদের আর্টিকেল লিখে দিতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট এ অনেক ধরনের প্রতিষ্ঠান এবং কোম্পানি রয়েছে। যারা তাদের প্রডাক্ট এবং সার্ভিসের জন্য, আর্টিকেল রাইটার খুঁজে থাকে। আমি সেই সমস্ত ওয়েবসাইটে গিয়ে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

এবং যোগাযোগ হওয়ার পর তাদের কথা অনুযায়ী আর্টিকেল লিখে দিয়ে, তাদের থেকে ভালো পরিমাণ অর্থ চার্জ করতে পারেন।

উপসংহার

আশাকরি উপরের ইনফর্মেশন থেকে আর্টিকেল রাইটিং কি, আর্টিকেল লেখার নিয়ম, আর্টিকেল লেখার জন্য কি জানতে হবে এবং আর্টিকেল লিখে আয় করার উপায় সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন।

যদি এখনও আর্টিকেল রাইটিং সম্পর্কে আপনার কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। আমরা কমেন্ট এর মাধ্যমে আপনাকে অবশ্যই সাহায্য করার চেষ্টা করব। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

শেয়ার করতে চান!
  •  
  •  
  •  
  •  

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment