ফ্রিল্যান্সিং কি – ফ্রিল্যান্সিং থেকে আয় কিভাবে করবেন

ফ্রিল্যান্সিং কি – বর্তমান যুগে বেকারত্বের হার দিন দিন বেড়েই চলেছে। এইজন্য আজকের দিনে অনেক ছাত্র নির্দিষ্ট কোন skill এ দক্ষ হয়ে freelancing কাজ করা শুরু করেছে। যেখান থেকে কোন ব্যক্তি ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে হাজার হাজার টাকা আয় করছে।

যদি আপনিও ফ্রিল্যান্সিং কথাটি কোথাও শুনে থাকেন এবং একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হতে চান, তাহলে আজকের এই আর্টিকেলে, ফ্রিল্যান্সিং কি (freelancing ki) বা কাকে বলে, ফ্রিল্যান্সিং বলতে কী বোঝায় এবং ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শুরু করবেন এই সমস্ত প্রশ্ন গুলি সম্পর্কে জানতে পারবেন।

তাই যদি আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে, আপনার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ে তুলতে চান তাহলে এই আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন।

সূচিপত্র

ফ্রিল্যান্সিং কি (freelancing ki?)

ফ্রিল্যান্সিং মানে হল কোন ব্যক্তি তার নিজস্ব knowledge এবং skill এর উপর ভিত্তি করে কোন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের হয়ে কাজ করে। এখানে কোন ফ্রিল্যান্সার, কোন প্রতিষ্ঠান এর পার্মানেন্ট বা স্থায়ী কর্মচারী নয়। ফ্রিল্যান্সার কে কোন কোম্পানি অনলাইন বা অফলাইনে মারফত ভাড়া করে, কাজ আদায় করার পর টাকা মিটিয়ে দিয়ে থাকে।

ফ্রিল্যান্সিং কাজ যারা করে তাদের ফ্রিল্যান্সার বলা হয়। এখানে কোন ফ্রিল্যান্সার কোন কোম্পানি বা ফার্মের নির্দিষ্ট কাজ পুরো করবার পর, সেই ফ্রিল্যান্সার আবার নতুন ক্লায়েন্ট বা কোম্পানি খুঁজতে থাকে। এইজন্য ফ্রিল্যান্সার সর্বদা self employed হয়।

ফ্রিল্যান্সিং এর একটি উদাহরণ দেওয়া যাক –

ধরুন আপনি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এবং ওয়েব ডিজাইন করতে পারেন। এখন কোন কোম্পানির যদি ওয়েব ডেভলপার বা ওয়েব ডিজাইনার দরকার পড়ে তখন সেই কোম্পানি আপনাকে hire করে, তাদের কাজটি করিয়ে নেবে। এবং কাজ পুরো করবার পর কোম্পানি আপনাকে আপনার টাকা বুঝিয়ে দেবে।

এবং আপনি সেই টাকা নিয়ে, আবার অন্য কোম্পানির সাথে নতুন কাজের জন্য, যোগাযোগ করতে পারেন। এবং সেই কোম্পানির হয়ে কাজ করতে পারেন।

এখানে কিন্তু আপনি কোম্পানির কর্মচারী নয়, আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার

ফ্রিল্যান্সিং কাকে বলে?

কোন নির্দিষ্ট কোম্পানি, প্রতিষ্ঠান বা ফার্মের কর্মচারী না হয়ে, অল্প সময়ের জন্য সেই কোম্পানির হয়ে, কোনো নির্দিষ্ট কাজ করলে তাকে ফ্রিল্যান্সিং বলে।

ফ্রিল্যান্সার কি?

ফ্রিল্যান্সিং কাজ যারা করেন তাদের ফ্রিল্যান্সার বলা হয়। একজন ফ্রিল্যান্সার দিনে 2000 থেকে দু’লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারে। তবে সবকিছুই তাঁর স্কিল এবং দক্ষতার উপর নির্ভর করে।

যেমন:

ঠিক তেমনই:

যে ব্যক্তি, ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কিত কাজ করে থাকে, তাকে ফ্রিল্যান্সার বলা হয়।

ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য কিসের প্রয়োজন

যদি আপনি ফ্রিল্যান্সিং কাজ করতে চান তাহলে তিনটি জিনিস আপনার দরকার পড়বে। সেগুলি হল-

  1. ইন্টারনেট কানেকশন
  2. একটি ল্যাপটপ বা কম্পিউটার
  3. একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট।

অনলাইন মারফত ক্লায়েন্ট খুঁজে বের করতে এবং অনলাইনে যাবতীয় কাজ করবার জন্য ইন্টারনেট অবশ্যই দরকার পড়বে। এইজন্য ইন্টারনেট থাকা আবশ্যক। তা না হলে আপনি ফ্রিল্যান্সার হতে পারবেন না।

দ্বিতীয়তঃ একটি ল্যাপটপ বা কম্পিউটার এই জন্য দরকার, যার মাধ্যমে আপনি সমস্ত কাজ গুলো খুব সহজ এবং সুন্দরভাবে করতে পারবেন।

আর ক্লায়েন্টদের থেকে payment নিতে আমরা একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট দরকার। যার মাধ্যমে আপনি আপনার কাজের পেমেন্ট নিতে পারবেন।

ফ্রীলান্সিং জব কি?

একজন ফ্রিল্যান্সার, যে সমস্ত কাজগুলি করে সেগুলিকে একত্রে ফ্রিল্যান্সিং জব বলা হয়।

একজন ফ্রীল্যান্সার কোন কোম্পানির বা প্রতিষ্ঠান স্থায়ী কর্মচারী না হয়ে, নিজের সুবিধা ও ইচ্ছামত, তার দক্ষতার ভিত্তিতে এই সমস্ত কাজ গুলি করে থাকে।

ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করা যায়

ফ্রিল্যান্সিংয়ে অনেক ধরনের কাজ আছে। আপনি যে কোন একটি বিষয়ে দক্ষ হলেই ফ্রিল্যান্সিংয়ে আপনি কাজ খুঁজে পেয়ে যাবেন। নিচে কতকগুলি freelancing job এর তালিকা দেয়া হলো। এগুলো থেকে আপনি ফ্রিল্যান্সিং কাজ সম্পর্কে ধারণা পেয়ে যাবেন।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ:

  • Online Teaching
  • Social Media manager
  • Content Writing
  • Graphics Designing
  • Consultancy Work
  • Animation
  • Web Desingning
  • Web Development
  • Digital Marketing
  • Application Development
  • Translator
  • Dubbing
  • Programming
  • Data Entry
  • Photo Editing
  • Search Engine Optimization
  • Video Editing
  • Etc.

কিছু ফ্রিল্যান্সিং সাইট –

এখানে কিছু Freelancing Site এর নাম দেওয়া হলো যেখান থেকে আপনি খুব সহজেই ফ্রিল্যান্সিং কাজ খুঁজে নিতে পারবেন।

এই সমস্ত সাইটগুলি খুবই বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট। যদি আপনি ফ্রিল্যান্সার হতে চান তাহলে, এই সমস্ত ওয়েবসাইটগুলোতে গিয়ে অ্যাকাউন্ট বানিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কাজ শুরু করতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং সাইট এর তালিকা:

  1. Upwork
  2. Freelancer
  3. Fiverr
  4. Truelancer
  5. Guru
  6. PeoplePerHour
  7. WorknHire

ফ্রিল্যান্সিং জব কিভাবে করবেন?

ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য আপনাকে প্রথমে কোন ফ্রিল্যান্সিং এর ওয়েবসাইটে যেতে হবে। যেসব সাইট আপনাকে হাজার হাজার ফ্রিল্যান্সিং জব অফার করবে। আপনি সেখানে গিয়ে অ্যাকাউন্ট বানিয়ে যেকোনো একটি ফ্রিল্যান্সিং সাইটে প্রবেশ করবেন।

তারপর সেখান থেকে আপনার দক্ষতা অনুযায়ী কোন কাজ বেছে নিয়ে, যে কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান ওই ফ্রিল্যান্সিং সাইট, কাজটি পোস্ট করেছে তার সাথে যোগাযোগ করবেন।

এবং তার সাথে যোগাযোগ করার পর সেই কাজটি সম্পর্কে ডিটেইলস জেনে নিয়ে আপনি কাজটি শুরু করতে পারেন। এবং কাজটি কমপ্লিট করা হয়ে গেছে আপনি সেই ব্যক্তি বা clients এর থেকে টাকা বুঝে নেবেন

ফ্রিল্যান্সিং কেন করবো – ফ্রিল্যান্সিং এর সুবিধা

যদি আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে চান এবং ফ্রিল্যান্সিং কেন করবেন? এই প্রশ্নটি মাথায় আসে তাহলে এই সমস্ত সুবিধা গুলি দেখে নিন। যদি আপনি ফ্রিল্যান্সার হন তাহলে এ সমস্ত সুবিধা গুলি আপনি পাবেন।

  • আপনি বাড়িতে বসে এই কাজটি করতে পারবেন। যার জন্য আপনাকে কোথাও যেতে হবে না।
  • আপনি যখন চান, তখনই এই কাজটি করতে পারেন।
  • নির্দিষ্ট কাজের জন্য মূল্য আপনি নিজেই নির্ধারণ করবেন।
  • সকালে উঠে অফিস যাওয়ার চাপ থাকবে না।
  • আপনি স্বাধীন ও স্বাবলম্বী ভাবে কাজ করতে পারবেন।
  • কার সাথে কাজ করবেন এবং কার সাথে করবেন না এটি আপনি নিজেই ঠিক করতে পারবেন।
  • আপনি আপনার skill অনুযায়ী কাজ বেছে নিতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং থেকে কিভাবে আয় করবেন?

ফ্রিল্যান্সিং থেকে টাকা কামানোর জন্য আপনাকে কিছু স্টেপ ফলো করতে হবে। এই সমস্ত স্টেপগুলো যদি আপনি একটি একটি করে অতিক্রম করেন, তাহলে আপনিও ফ্রিল্যান্সিং থেকে ভালো পরিমাণ টাকা আয় করতে পারবেন।

সেগুলি হলো:

১. আপনার Skill ও দক্ষতা খুঁজে বের করুন

আমরা আগেই বলেছি freelancing কাজ করবার জন্য আপনাকে কোনো একটি বিষয়ের ওপর দক্ষ হতে হবে। এই জন্য ফ্রিল্যান্সিং কাজ করবার আগে আপনি যে বিষয়গুলিতে দক্ষ সেটি খুঁজে বের করুন।

২. আপনার Profile তৈরি করুন

আপনার দক্ষতা খুঁজে বের করার পর, যেকোনো একটি trusted freelancing website এ গিয়ে, আপনার নাম ও ইমেইল একাউন্ট দিয়ে একটি প্রোফাইল তৈরি করুন। এই অ্যাকাউন্টটি তৈরি করলেই আপনি ওয়েব সাইটটিতে প্রবেশ করতে পারবেন।

৩. নিজের Portfolio বানান

ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর আপনাকে আপনার দক্ষতা এবং এক্সপেরিয়েন্স অনুযায়ী portfolio তৈরি করতে হবে। এইজন্য আপনি আপনার কাজের ধরন এবং skill অনুযায়ী পোর্টফলিও বানিয়ে নিন।

তবে পোর্টফলিওতে সর্বদা, আপনি যে জিনিস গুলি সম্পর্কে সত্যিই দক্ষ সেগুলি যোগ করুন। যেগুলি সম্পর্কে আপনার জ্ঞান নেই এসব জিনিস যোগ করতে যাবেন না।

৪. Project খুঁজে নিয়ে Bidding করুন

আপনার পোর্টফোলিও তৈরি করার পর বিভিন্ন ধরনের প্রজেক্ট আপনার নজরে আসবে। আপনি আপনার স্কেল অনুযায়ী কোন প্রজেক্ট বেছে নিয়ে, সেইপ প্রজেক্ট এর জন্য এপ্লাই করুন।

এখানে আপনার সাথে অনেক cempetitor থাকবে। যারা একই প্রোজেক্টের জন্য এপ্লাই করবে। আপনি তাদের মধ্যে থেকে কম টাকায় ভালো সার্ভিস দেবেন, এইরকম একটি মনোভাব নিয়ে ওই প্রজেক্টে Bidding করুন।

৫. অপেক্ষা করুন

এরপর নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানি আপনার পোর্টফোলিও চেক করা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। পোর্টফোলিও দেখে যদি, আপনাকে তারা তাদের কাজের জন্য বেছে নেয়, তাহলে তারা আপনার সাথে যোগাযোগ করবে।

৬. কাজ সম্পন্ন করুন

কোম্পানি থেকে কাজ পাওয়ার পর, সেই কাজটি কে তাদের কথা অনুযায়ী পুরো করুন। কাজটি এমন ভাবে সম্পন্ন করবেন যেন দ্বিতীয়বার সেই কোম্পানি থেকে আসা দ্বিতীয় কাজটি আপনিই পান।

৭. Payment নিন

এরপর কাজটি সম্পন্ন করা হয়ে গেলে কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করে আপনার পেমেন্ট নিয়ে নিন।

৮. Feedback দিন

কাজটি করতে আপনার কেমন লেগেছে, ভবিষ্যতে এরকম কাজ আপনি আর করতে চান কিনা, কাজটি করে আপনি নিজে কি নতুন শিখতে পেরেছেন এই সম্পর্কে ওই কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানকে একটি ফিডব্যাক দিন।

যাতে তারা খুশি হয়ে তাদের দ্বিতীয় প্রজেক্টটি আপনাকে দিতে বাধ্য হয়।

ফ্রিল্যান্সিং কাজ করবার আগে যে জিনিস গুলো মাথায় রাখবেন:

  • ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর, পোর্টফোলিও বানানোর সময় অরজিনাল ডকুমেন্টস এবং অরিজিনাল ফটো দিয়ে পোর্টফোলিও বানান।
  • Skill যোগ করার সময় আপনি যে কাজগুলি তে দক্ষ, শুধু সেইগুলোই দিন।
  • যে ব্যক্তি আপনাকে কাজ দিচ্ছেন তার সাথে, খুবই সুন্দর ভাবে এবং গুছিয়ে, ভদ্রতা বজায় রেখে কথা বলুন।
  • অন্যদের থেকে, আপনার ওপর বিশ্বাস কখনো হারাবেন না।

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব –

যদি আপনি ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চান তাহলে আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ নিতে হবে। এই জন্য আপনি আপনার লক্ষ্য অনুযায়ী কোন কলেজে এডমিশন নিয়ে কোনো নতুন skill বা course শিখুন

তারপর ওই কোর্সটি কমপ্লিট হলে, আপনি আপনার দক্ষতা কাজে লাগিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কাজ শুরু করুন।

এছাড়া অনলাইনে এবং বাজারে অনেক ধরনের ফ্রিল্যান্সিং শেখার বই রয়েছে। আপনি আপনার পছন্দ অনুযায়ী কোন বই বেছে নিয়ে সেই সম্পর্কে শিখতে পারেন।

এছাড়া আজকাল গুগল থেকে বা ইউটিউব থেকে বিভিন্ন ধরনের টিউটোরিয়াল দেখেও ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন। যেটার জন্য আপনাকে কোন পয়সা খরচ করতে হবে না।

ফ্রিল্যান্সিং কি মোবাইলে করা যায়?

যদি আপনি ফ্রিল্যান্সার হতে চান তাহলে আপনি মোবাইল থেকেও ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। তবে সাধারণত কম্পিউটার বা ল্যাপটপ দিয়ে কোন কাজ করলে সেটি খুব সহজেই করা যায়।

মোবাইলের ছোট Screen হওয়ার কারণে মোবাইল থেকে ফ্রিল্যান্সিং করা একটু অসুবিধাজনক। তবে যদি আপনি ছোট স্ক্রিনে কাজ করতে জানেন, তাহলে মোবাইল থেকেও ফ্রিল্যান্সিং করা সম্ভব।

ফ্রিল্যান্সিং সাইটের কাজ কি?

ফ্রিল্যান্সিং সাইটের কাজ হল ফ্রিল্যান্সার এবং কোম্পানির ক্লায়েন্টদের একসাথে কানেকশন করা। যেখানে ক্লায়েন্ট এবং ফ্রিল্যান্সার দুজনেই একসাথে যুক্ত হয়ে তাদের কাজগুলো সম্পন্ন করতে পারে।

কোন ক্লায়েন্ট সহজে খুঁজে পেতে এবং কোন কোম্পানির নির্দিষ্ট কাজ করবার জন্য, সঠিক ব্যক্তিকে যাতে খুব খুঁজে পাওয়া যায় সেই জন্য ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলো তৈরি করা হয়েছে।

উপসংহার:

আশা করি ওপরের আর্টিকেল থেকে ফ্রিল্যান্সিং কি, ফ্রিল্যান্সিং থেকে কিভাবে আয় করে এবং ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে করতে হয় এই সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে গেছেন। যদি আপনিও ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইন থেকে আয় করতে চান, তাহলে আজই ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে পারেন।

আরও পড়ুন:

শেয়ার করতে চান!
  •  
  •  
  •  
  •  

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment