সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি – কোথায় করবেন এবং কিভাবে করে

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি – আজকের যুগে বেশিরভাগ লোক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে। যেখানে সাধারন ইউজারের সাথে সাথে বিভিন্ন বড় বড় কোম্পানির মালিক এবং বিজনেসম্যান এরাও একটিভ থাকে। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে কোন ইউজারকে, কাস্টমার বানিয়ে নির্দিষ্ট প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস এর মার্কেটিং করা হয়। এটিকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলে।

আজকাল মানুষ Facebook, Twitter, Instagram, Pinterest, WhatsApp এর মত পপুলার সোশল মেডিয়া প্ল্যাটফর্ম কুড়িতে একটিভ থাকে এবং বিভিন্ন Marketer বিভিন্ন টেকনিকের মাধ্যমে মার্কেটিং করে প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস গুলিকে বিক্রয় করে।

যদি আপনার কাছে problem solving product থাকে তাহলে সেটি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে, কিছু প্লানিং এর সাহায্যে, সেগুলিকে কাস্টমার পর্যন্ত পৌঁছাতে পারবেন। যদি আপনিও কোন বিজনেস করে থাকেন এবং targeted customer পর্যন্ত পৌঁছাতে চান, তাহলে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে কাস্টমারদের interact করে তাদের সাথে পণ্য সম্পর্কে আলোচনা করতে পারেন। কিন্তু এটি করার জন্য আপনাকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে।

এই জন্যই আজ আর্টিকেলে আমরা সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কাকে বলে এবং সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কিভাবে করতে হয়, এ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেবো।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি

কোন মার্কেটিং এজেন্সি কোন প্রোডাক্ট, সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্যে প্রমোট করে এবং মার্কেটিং করে, সেটিকে কাস্টমার পর্যন্ত পৌঁছানোর জন্য যে সমস্ত জিনিস গুলি করে থাকে সেটিকেই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলে।

যেহেতু এই ধরনের মার্কেটিং সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এর মাধ্যমে করা হয়ে থাকে, সেই কারণে এই ধরনের মার্কেটিং বা সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং নাম দেওয়া হয়।

সোজাকথায় – সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে, কোন প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের মার্কেটিং করলে তাকেই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মাধ্যমে targeted product কে targeted customer এর কাছে, খুব সহজেই পৌঁছে দেওয়া যায়। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে মার্কেটিং করবার জন্য কাস্টমারদের interect করতে আলাদা আলাদা tecnique এর ব্যবহার করা হয়। যার মাধ্যমে কাস্টমার প্রোডাক্ট নিতে বাধ্য হয়।

সোশ্যাল মিডিয়া marketer, text/video form এ product advertising এর সাহায্যে নির্দিষ্ট প্রোডাক্টের benifit, advantages, disadvantages, price সব কিছু কাস্টমারকে বলে দেয়।

এবং কখনও কখনও কনটেন্ট ক্রিয়েটর তাদের ওয়েবসাইট এবং ব্লগের ট্রাফিক নিয়ে আসার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে, সাইটের মধ্যে টার্গেট অডিয়েন্স নিয়ে আসে। এবং তাদের ওয়েবসাইটের মধ্যে নির্দিষ্ট প্রডাক্ট লিস্টিং করে, কাস্টমারদের সেই প্রোডাক্ট সম্পর্কে পুরো ইনফরমেশন দেয়।

সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্যে মার্কেটিং করার জন্য বিভিন্ন ধরনের আলাদা আলাদা জিনিস অনুসরণ করতে হয়। সেগুলি হল –

  • Content writing
  • Product design
  • Video Making
  • Infographic Create
  • Social media Page creating
  • Price discussion etc.

বিভিন্ন ধরনের মার্কেটিং এজেন্সি, এই জিনিসগুলো কে আলাদা আলাদা ভাবে তৈরি করে, এগুলির সাহায্যে মার্কেটিং করে থাকে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর সুবিধা

  1. Brand Awareness Increase করে
  2. অনেক বেশি Inbound Traffic পাওয়া যায়
  3. ওয়েবসাইট এর Search engine ranking improve হয়
  4. Customer satisfied হয়ে থাকে
  5. Targeted Audience পাওয়া যায়
  6. Social media তে নিজস্ব কোম্পানির brand বানানো সহজ হয়
  7. খরচ কম হয়।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কেন করবেন

  • Brand awareness বাড়ানোর জন্য
  • Audience এর চাহিদা বোঝার জন্য
  • Trending product সম্পর্কে, নতুন ইনফরমেশন পাওয়ার জন্য
  • অতিরিক্ত genuine customer পর্যন্ত পৌঁছানোর জন্য
  • অনেক কম খরচে ads চালিয়ে product promoting করবার জন্য।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কিভাবে করে

যদি আপনি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে বুঝে গিয়ে থাকেন তাহলে এখন আমরা, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কিভাবে করতে হয় এটি জানবো।

সোশ্যাল মিডিয়া এর মাধ্যমে মার্কেটিং করার আলাদা আলাদা stategy রয়েছে। যেটি আপনি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কোর্স করে, training নিতে পারেন। নিচে আমরা কিছু basic stategy সম্পর্কে আলোচনা করব। যেগুলি বেশিরভাগ সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটার অনুসরণ করে।

Social Media Account Creation

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করবার জন্য সর্বপ্রথম আপনাকে সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়াতে একাউন্ট বানাতে হবে। যার মাধ্যমে আপনি টার্গেট অডিয়েন্স দের অনুসরণ করে তাদের পছন্দের উপর ভিত্তি করে, আপনার প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস গুলি তাদের কাছে পৌঁছাতে পারবেন।

এইজন্য আপনি সোশ্যাল মিডিয়ার গ্রুপ গুলিতে জয়েন করবার পর কাস্টমারদের সাথে যোগাযোগ করে আপনার problem solving product/service সম্পর্কে জানাতে পারেন। এবং ধীরে ধীরে সে সমস্ত কাস্টমারদের সাথে পার্সোনালি কথা বার্তা বলে আপনার প্রোডাক্ট সম্পর্কে আলোচনা করতে পারেন।

সবথেকে জনপ্রিয় যে সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম গুলি আছে সেগুলি হল –

আপনি এই সমস্ত প্রশ্ন মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম গুলিতে অ্যাকাউন্ট বানিয়ে, আজ থেকেই কাস্টমারদের অনুসরণ করা শুরু করুন।

Product Targeting

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করবার জন্য আপনি কোন প্রোডাক্টটি মার্কেটিং করতে চান এটি স্থির করুন। এরপর টার্গেট অডিয়েন্স, কোন প্লাটফর্মে সবথেকে বেশি পাবেন এটি নিয়ে চিন্তা করতে থাকুন।

Content Planning

প্রডাক্ট মনস্থির করবার পর সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ যে অংশটি সেটি হল Content Planning। এখানে নির্দিষ্ট প্রোডাক্টটি সম্পর্কে কাস্টমারদের সমস্ত তথ্য দিতে হবে। যেখানে প্রোডাক্টটি সম্পর্কে description, price, money back guarantee, কি কাজে লাগবে, কেন গুরুত্বপূর্ণ এই সমস্ত কিছু set করুন। প্রোডাক্ট সম্পর্কে content গুলি এমনভাবে সাজান, যেন কাস্টমার দেখামাত্র প্রোডাক্ট সম্পর্কে আইডিয়া নিতে পারে।

Social Media Page Building

যদি আপনি কোন কোম্পানির প্রোডাক্ট বা নিজস্ব বিজনেস প্রোডাক্ট মার্কেটিং করতে চান তাহলে, সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম গুলিতে সেই প্রোডাক্ট সম্পর্কিত কয়েকটি পেজ তৈরি করুন।

যেখানে ওই কোম্পানি বা বিজনেস সম্পর্কে সমস্ত ডিটেলস ইনফর্মেশন মজুত থাকবে। যার মাধ্যমে কোন টার্গেট অডিয়েন্স ওই নির্দিষ্ট পেজটিতে আসার পর, কোম্পানি এবং প্রোডাক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য, খুব সহজেই পেয়ে যাবে।

এছাড়াও আপনি এই পেজটির মধ্যে প্রোডাক্ট সম্পর্কে রোজদিন নতুন নতুন কনটেন্ট এবং ইমেজ পোস্ট করুন। গেটের সাহায্যে কাস্টমার এই প্রোডাক্টটি নিতে আগ্রহী হবে।

Competetor Research

আমরা সবাই জানি যে আজকাল যেকোনো কাজের মধ্যে Competition এবং Competetor অবশ্যই থাকবে। আপনার এই সকল কাজ করি করার সাথে সাথে আপনার Competetor রা কি করছে এটাও নজর রাখতে হবে।

এটি নজর রাখবেন যে তারা এমন কি করছে যার জন্য তারা আগে যাচ্ছে এবং আপনি পেছনে রয়েছেন। এছাড়া আপনি এমনকি করতে পারেন যেটা তারা করতে পারবে না। এরকম ভাবে চিন্তা করলে আপনিও তাদের থেকে অনেক আগে পৌঁছে যাবেন।

Marketplace Insights Research

Competetor Research এর সাথে সাথে Marketplace Insights Research এর ওপর নজর রাখতে হবে। মানে আজকের দিনে কোন প্রোডাক্টটি সবথেকে trending এ আছে, কোন প্রোডাক্ট গুলি মানুষ বেশি পছন্দ করেছে, targeted customer এর সামনে কী ধরনের প্রোডাক্ট রাখা দরকার – মার্কেটিং করতে হলে এই সমস্ত কিছুর ওপর নজর রাখতে হবে। কারণ আপনি যদি মানুষের problem solving product/ service provide না করেন তাহলে আপনার ব্যবসা কখনোই বড় হবে না।

Use Infographics Image

Customer এর মধ্যে engagement বানানোর জন্য সবসময় Infographics Image ব্যবহার করুন। বড় বড় কোম্পানি Infographics Image এর মাধ্যমে কাস্টমারকে প্রোডাক্ট এর দিকে attraction বাড়ায়।

Advertisement

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সেটি হল অ্যাডভার্টাইজমেন্ট। যদি আপনি উপরের এই সমস্ত কিছু টেকনিক গুলি করতে না জানেন তাহলে, আপনার পক্ষে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার একমাত্র রাস্তা হল অ্যাডভার্টাইজমেন্ট। এটা সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার সবথেকে বড় সুবিধা।

আপনি পপুলার সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম গুলিতে particular age এর customer দের, target করতে পারবেন। Facebook ads program, LinkedIn ads program এবং google adwords সবথেকে Popular advertising network। যেগুলি আপনাকে খুব সহজে targeted audience প্রোভাইড করবে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কোথায় করবেন (Popular Platform)

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করবার জন্য যে সমস্ত পপুলার সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম গুলি আছে, সেগুলো থেকে খুব সহজেই মার্কেটিং করতে পারবেন। জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম গুলি হল –

Facebook

আজকের দিনে পৃথিবীর সবথেকে বড় এবং নাম্বার ওয়ান সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম হল ফেসবুক। যেখানে 100 billion এর ওপর অ্যাক্টিভ ইউজার রয়েছে। ফেসবুকের মাধ্যমে প্রত্যেকদিন ছোট থেকে ছোট এবং বড় দেখে বড় ব্যবসা গুলি প্রমোট করানো হয়ে থাকে।

যদি আপনি ফেসবুকের মাধ্যমে মার্কেটিং করতে চান তাহলে বিনামূল্যে পেজ তৈরি করে কাস্টমার add করতে পারেন। এছাড়া facebook ads program join করে, product এর ads চালাতে পারেন।

Twitter

টুইটার একটি জনপ্রিয় এবং বড় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম। যেখানে আপনি সাধারন মানুষের সাথে সাথে বড় বড় বিজনেসম্যান এর সাথে ব্যবসা গড়ে তুলতে পারবেন। এবং টুইটারে আপনি ফলোয়ার্স এর মাধ্যমে আপনার প্রোডাক্টের মার্কেটিং খুব সহজে করতে পারেন।

Instagram

ইনস্টাগ্রামে অনেক ধরনের আলাদা আলাদা influencer রয়েছে। যারা তাদের fans base তৈরি করে, fans দের মাঝে নিত্য নতুন প্রোডাক্ট এবং সার্ভিসের প্রমোশন করে থাকে। আপনি ইন্সটাগ্রাম এর সাহায্যে influencer দের সাথে যোগাযোগ করে আপনার প্রোডাক্ট প্রমোট করতে পারেন।

Linkedin

এখানেও অনেক বড় বড় মানুষ এক্টিভ থাকে। Linkedin এর মাধ্যমে আপনি খুব সহজে টার্গেট অডিয়েন্স পর্যন্ত পৌছাতে পারবেন। এছাড়াও আপনি Linkedin ads প্রোগ্রাম ব্যবহার করেও মার্কেটিং করতে পারেন।

Law of Social Media Marketing

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার কিছু নিয়ম ও নীতি আছে। ডিগ্রি অনুসরণ করলে আপনি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে অবশ্যই সফল হবেন। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং নীতি গুলি নিচে দেখে নিন।

Law of Listening

আপনার টার্গেট কাস্টমারদের track করতে থাকুন এবং তারা কি চাইছে, সেই হিসেবে তাদের সামনে product display করুন। এর জন্য কাদের সাথে প্রডাক্ট সম্পর্কে discuss করুন।

Law of Focus

সোশল মেডিয়া প্ল্যাটফর্ম গুলিতে প্রডাক্ট সম্পর্কে সব থেকে ভাল কনটেন্ট প্রোভাইড করুন। যার মাধ্যমে কাস্টমার খুব সহজেই engage হয়ে যায়।

Law of Quality

টাকার থেকে সর্বপ্রথম কাস্টমার এর প্রোডাক্ট কোয়ালিটির উপর নজর রাখুন। যদি আপনি আপনাকে ভালো প্রোডাক্ট কাস্টমারকে দিতে পারেন তাহলে, আপনার ব্যবসা অটোমেটিক grow হতে শুরু করবে।

Law of patience

যেকোনো জিনিস রাতারাতি সাকসেসফুল হয় না। এর জন্য আপনাকে কাজ চালিয়ে যেতে হবে এবং patience রাখতে হবে। আপনি যদি ধৈর্য ধরে কাজ চালিয়ে যেতে পারেন, তাহলে আপনি একদিন অবশ্যই সফল হবেন।

উপসংহার

আশাকরি অপরের ইনফরমেশন থেকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কোথায় করবেন এবং কিভাবে করে এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। যদি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে আরো কিছু জানার থাকে তাহলে আপনি কমেন্ট করে আমাকে জানাতে পারেন।

শেয়ার করতে চান!
  •  
  •  
  •  
  •  

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment