ফ্রিতে ডলার ইনকাম করার উপায়

অনেকেই অনলাইনের মাধ্যমে কাজ করে ডলার ইনকাম করতে চায়। কিন্তু অনেকেরই ডলার ইনকাম করার উপায় সম্পর্কে অজানা। এবং অনেক ব্যক্তির হাতে বিশেষ ইনভেস্ট করার মত টাকা না থাকার কারণে তারা অনেক সময় ইনকাম করতে পারে না।

এইজন্য আজকের এই আর্টিকেল থেকে আমরা আপনাদের ফ্রিতে ডলার ইনকাম করার দুটি জনপ্রিয় উপায় সম্পর্কে বলবো। যদি আপনি মন দিয়ে কাজ করতে পারেন তাহলে এই দুটি প্ল্যাটফর্ম থেকে আপনি ভালো পরিমাণ ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

তাই চলুন দেরি না করে ফ্রিতে ডলার ইনকাম কিভাবে করা যায় এটি জেনে নেওয়া যাক।

ব্লগিং থেকে ফ্রিতে ডলার ইনকাম

অনলাইন থেকে বর্তমানে সবথেকে সহজ পদ্ধতিতে ডলার ইনকাম করার রাস্তা হল ব্লগিং। ব্লগিং হলো একটি ওয়েবসাইটের মত যেখানে আপনি বিভিন্ন ধরনের কনটেন্ট পাবলিশ করে তার মধ্যে ইন্টারনেট থেকে ট্রাফিক নিয়ে এসে বিভিন্ন ধরনের অ্যাডভার্টাইজমেন্ট চালিয়ে ইনকাম করতে পারেন।

আপনি এখন এখানে এই ইনফরমেশন এটি একটি ব্লগের মাধ্যমে দেখছেন। এবং এটি হলো আমার ব্লগ।

যদি আপনি ভালোভাবে ব্লগিং করতে পারেন তাহলে একটি বিনামূল্যে ওয়েবসাইট বানিয়ে সেখানে ভালো ভালো কনটেন্ট লিখে, বিভিন্ন ধরনের অ্যাডভার্টাইজমেন্ট চালিয়ে বা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ভালো পরিমাণ ডলার আয় করতে পারবেন।

তবে যদি আপনি একটি ডোমেন নেম এবং হোস্টিং কিনে নিয়ে প্রফেশনাল ভাবে ব্লগিং করতে পারেন তাহলে আপনি মাসিক ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন।

তবে এর জন্য ব্লগিং শেখা গুরুত্বপূর্ণ। একটি ব্লগিং কে সাকসেসফুল তৈরি করার জন্য এর মধ্যে অনেক ধরনের কাজ করতে হয়। যেমন ওয়েবসাইট তৈরি করা, কনটেন্ট লেখা, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করা ইত্যাদি।

যদি আপনি সবকিছু সঠিক ভাবে শিখে, ব্লগিং জগতে পা রাখেন তাহলে আপনি কয়েক মাস কাজ করার পরেই ভালো পরিমাণ ডলার আয় করতে পারবেন। অর্থাৎ ব্লগিং হলো ফ্রিতে ডলার ইনকাম করার সবথেকে ভালো রাস্তা।

ইউটিউব থেকে ডলার ইনকাম করার উপায়

এবং দ্বিতীয় যে রাস্তাটির মাধ্যমে আপনি খুব সহজে ডলার ইনকাম করতে পারেন সেটি হল ইউটিউব। Youtube এর মধ্যে আপনি বিভিন্ন ধরনের ভিডিও কন্টেন্ট পাবলিশ করে সেখানে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট চালিয়ে ডলার ইনকাম করতে পারেন।

এবং এখানে আপনাকে ডোমেন এবং হোস্টিংও কিনতে হবে না। আপনি সরাসরি ইউটিউবে নিজস্ব একাউন্ট বানিয়ে সেখানে বিভিন্ন কন্টেন্ট পাবলিশ করতে পারেন। এবং এর জন্য আপনাকে একটি টাকাও খরচ করতে হবে না।

যদি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের সব সময় তাহলে আপনি সেখানে পরবর্তীকালে বিভিন্ন ধরনের স্পনসর্শিপ পেতে থাকবেন এবং সাথে সাথে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ও করতে পারবেন। এই সবকিছুই হল ডলার ইনকাম করার legal process।

যদি আপনি ফ্রিতে ডলার ইনকাম করতে চান তাহলে আজই ইউটিউবে একটি অ্যাকাউন্ট বানিয়ে সেখানে ভালো ভালো কনটেন্ট আপলোড করার চেষ্টা করুন। এবং ধীরে ধীরে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিউজ এবং সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা বাড়িয়ে নিয়ে সেখানে বিভিন্ন ধরনের এডভার্টাইজমেন্ট চালাতে পারেন বা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন।

উপসংহার

আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি ফ্রিতে ডলার ইনকাম করার দুটি উপায় সম্পর্কে জেনে গেছেন। যদি আপনি মাসিক ভালো পরিমাণ আয় করতে চান তাহলে এই দুটি অপশন beginner জন্য খুবই ভালো। আপনি চাইলে এই দুটির মধ্যে থেকে যেকোনো একটি অপশন বেছে নিয়ে ডলার ইনকাম করতে পারেন। বা ডলার ইনকাম করার জন্য এই দুটি প্লাটফর্মে একসাথেই কাজ করতে পারেন। তবে এই দুটি প্লাটফর্মে সাকসেসফুল হওয়ার জন্য আপনার সঠিক জ্ঞান থাকতে হবে। এবং যদি নাও থাকে তাহলে আপনি ইন্টারনেট থেকে এই সম্পর্কে রিসার্চ করতে পারেন।

আরও পড়ুন

Sanju

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment