মহাভারতের কয়টি পর্ব ও কি কি?

মহাভারত হলো অনেক বড় একটি কাহিনী। এইজন্য মহাভারত কে কয়েকটি পর্বে বিভক্ত করা হয়েছে। এবং প্রত্যেকটি পর্বে আলাদা আলাদা ঘটনার উল্লেখ আছে। কোন পর্বে কি ঘটেছিল, এটি মহাভারতের পর্ব অনুসারে জানা যায়।

কিন্তু অনেকেই মহাভারতে কয়টি পর্ব আছে এবং কোন পর্বে কি হয়েছে – এই সম্পর্কে জানেন না। এই জন্য আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে আমরা মহাভারত পর্ব কয়টি এবং কোন পর্বে কি হয় এই সম্পর্কে জেনে নেব।

যদি আপনিও মহাভারতের কয়টি পর্ব ও কি কি? এই সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আর্টিকেলটি পড়ে নিন।

মহাভারতের কয়টি পর্ব ও কি কি?

মহাভারতের আঠারোটি পর্ব রয়েছে। এবং প্রত্যেকটি পর্বে আলাদা আলাদা ঘটনার উল্লেখ আছে। যেগুলি ধাপ অনুযায়ী সাজানো হয়েছে। এবং এই ধাপগুলি অনুসরণ করে আপনি মহাভারত পাঠ করলে, আপনি খুব শীঘ্রই মহাভারত সম্পূর্ণ পড়ে ফেলতে পারবেন। এবং সম্পূর্ণ মহাভারত বুঝতে পারবেন। মহাভারতের আঠারোটি পর্বের নাম নিচে দেওয়া হল।

  1. আদি পর্ব
  2. সভা পর্ব
  3. বন পর্ব
  4. বিরাট পর্ব
  5. উদযোগ পর্ব
  6. ভীষ্ম পর্ব
  7. দ্রোণ পর্ব
  8. কর্ণ পর্ব
  9. শল্য পর্ব
  10. সৌপ্তিক পর্ব
  11. স্ত্রী পর্ব
  12. শান্তি পর্ব
  13. অনুশাসন পর্ব
  14. অশ্বমেধিক পর্ব
  15. আশ্রমবাসিক পর্ব
  16. মৌসল পর্ব
  17. মহাপ্রস্থানিক পর্ব
  18. স্বর্গারোহণ পর্ব

মহাভারতের কোন পর্বে কোন ঘটনার উল্লেখ আছে?

এখন আমরা মহাভারতের কোন পর্বের কোন ঘটনার উল্লেখ আছে এটি সংক্ষেপে জানবো। আপনি মহাভারত পাঠ শুরু করার আগে, যদি প্রত্যেকটি পর্বের সংক্ষিপ্ত বিবরণ জেনে যান তাহলে আপনি মহাভারত খুব সহজেই বুঝতে পারবেন। এইজন্য এখান থেকে কোন পর্বে কি হয়েছে এটা দেখে নিন।

১. আদি পর্ব

এই পর্বে ১৯ টি উপ-পর্ব রয়েছে যাতে ৭১৯০ টি শ্লোক রয়েছে। এই পর্বে কৌরব ও পাণ্ডবদের জন্ম কাহিনী এবং তাদের যুদ্ধবিদ্যা, তাদের বিবাহ ইত্যাদি বিষয়ে উল্লেখ আছে।

২) সভা পর্ব

এই পর্বে কৌরব ও পাণ্ডবদের মধ্যে পাশা খেলার বিস্তারিত বর্ণনা করা হয়েছে।

দুর্যোধন ছিলেন ধৃতরাষ্ট্রের জ্যেষ্ঠ পুত্র এবং তার ক্ষমতা হারানোর ভয়ে ছিলেন। তিনি তার মামা শকুনির সাথে পরামর্শ করেন এবং পাণ্ডবদের একটি পাশা খেলার জন্য আমন্ত্রণ জানান।

যুধিষ্ঠির পাণ্ডবদের পক্ষে এই খেলা খেলেন এবং শকুনি প্রতারণার মাধ্যমে পাণ্ডবদের পরাজিত করেন। যুধিষ্ঠির এই খেলায় নিজেকে, তার ভাইদের এবং দ্রৌপদীকে ঝুঁকিতে ফেলেছিলেন। কৌরবদের বিজয়ের পর, দ্রৌপদীকে সভায় টেনে নিয়ে যাওয়া হয় এবং এমনকি সভায় তাকে নিরস্ত্র করার চেষ্টা করা হয়।

এসব দেখে ভীম দুঃশাসনের বক্ষ ছিঁড়ে তার রক্ত ​​পান করার প্রতিজ্ঞা করলেন। খেলাটি আবার খেলা হয়েছিল এবং এবারও পাণ্ডবরা পরাজিত হয়েছিল, যার বিনিময়ে তাদের 12 বছরের বনবাস এবং 1 বছরের বনবাস দেওয়া হয়েছিল।

৩) বন পর্ব

পাঁচ পাণ্ডব ও দ্রৌপদী কামাক্য অরণ্যের উদ্দেশ্যে রওনা হলেন। এই অধ্যায়ে অরণ্যে পাণ্ডবদের অতিবাহিত সময়ের কথা বলা হয়েছে।

৪) বিরাট পর্ব

এই অধ্যায়ে পাণ্ডবদের তাদের স্ত্রী দ্রৌপদীর সাথে ১৩ বছর ধরে তাদের পরিচয় গোপন করতে হয়েছিল।

এই সময়ে সমস্ত পাণ্ডব ও দ্রৌপদী ছদ্মবেশে বসবাস করছিলেন। দুর্যোধন পাণ্ডবদের খোঁজার অনেক চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন।

৫) উদযোগ পর্ব

১৩ বছর পর, যখন পাণ্ডবরা হস্তিনাপুরে ফিরে আসেন এবং তাদের অধিকার চান, দুর্যোধন তাদের স্পষ্টভাবে প্রত্যাখ্যান করেন। এমনটাই বলা হয়েছে এই উৎসবে।

৬) ভীষ্ম পর্ব

কৌরব ও পাণ্ডবদের মধ্যে যুদ্ধ সংঘটিত হয় এবং ভীষ্ম কৌরবদের পক্ষে কমান্ড গ্রহণ করেন।

যুদ্ধের দশম দিনে ভীষ্ম তীর শয্যায় শায়িত ছিলেন।

৭) দ্রোণ পর্ব

ভীষ্মের পর গুরু দ্রোণ যুদ্ধের নেতৃত্ব দেন। যুদ্ধের 13 তম দিনে তিনি মারা যান।

৮) কর্ণ পর্ব

গুরু দ্রোণের পর কর্ণ যুদ্ধের নেতৃত্ব দেন। 17 তম দিনে কর্ণ মারা যান। কর্ণ ছিলেন কুন্তীর প্রথম পুত্র এবং পান্ডবদের বড় ভাই।

৯) শল্য পর্ব

কর্ণের পর শল্য যুদ্ধের নেতৃত্ব দেন। ১৮তম দিনে শল্যা মারা যান। এর পর দুর্যোধন ও ভীমের মধ্যে যুদ্ধ হয়, যাতে দুর্যোধন মারা যায়।

১০) সৌপ্তিক পর্ব

কৌরবদের পরাজিত করার পর দ্রোণাচার্যের পুত্র অশ্বত্থামা প্রতিশোধ নিতে চেয়েছিলেন। তিনি পাণ্ডবদের হত্যা করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু তাদের জায়গায় পাণ্ডবদের পুত্ররা মারা যায়।

১১) স্ত্রী পর্ব

যুদ্ধে অনেক নারী তাদের স্বামী হারিয়েছেন। পাণ্ডবরা সেই সমস্ত মহিলাদের স্বামীদের আত্মার শান্তি কামনা করেছিলেন।

১২) শান্তি পর্ব

ধর্মরাজ যুধিষ্ঠির রাজা হওয়ার পর মানসিক শান্তি হারিয়েছিলেন। তখন ভীষ্ম পিতামহ তাঁকে পথ দেখিয়েছিলেন।

১৩) অনুশাসন পর্ব

ভীষ্ম পিতামহ অন্যান্য উপদেশ দিয়েছেন। এটি সম্পর্কে যা বলা হয়েছে তা এখানে।

১৪) অশ্বমেধিক পর্ব

যুধিষ্ঠির অশ্বমেধ যজ্ঞ করলেন। এবারের উৎসবে এ বিষয়ে বলা হয়েছে।

১৫) আশ্রমবাসিক পর্ব

ধৃতরাষ্ট্র ও তার স্ত্রী গান্ধারী, কুন্তীর সাথে বনে রওনা হলেন।

১৬) মৌসল পর্ব

এক অভিশাপের কারণে যাদবদের রাজবংশ ধ্বংস হয়। এই পর্বে এটি উল্লেখ করা হয়েছে।

১৭) মহাপ্রস্থানিক পর্ব

কৃষ্ণের মৃত্যুর সংবাদ শুনে পাণ্ডবরা দ্রৌপদীর সাথে মেরু পর্বতে রওনা হলেন এবং তাদের পিছনে একটি কুকুরও হাঁটছিল। শেষ পর্যন্ত শুধু যুধিষ্ঠির আর কুকুরটি বেঁচে গেল।

১৮) স্বর্গারোহণ পর্ব

যুধিষ্ঠির স্বর্গে পৌঁছেছিলেন এবং সেখানে তাঁর সমস্ত আত্মীয়-স্বজন উপস্থিত ছিলেন। এটা দেখে তিনি খুব খুশি হলেন।

উপসংহার

আশাকরি উপরে ইনফর্মেশন থেকে মহাভারতে কয়টি পর্ব আছে এবং সেগুলো কি কি এই সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। যদি এই আর্টিকেলটি সম্পর্কে আপনার এখনো কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

Sanju

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

2 thoughts on “মহাভারতের কয়টি পর্ব ও কি কি?”

  1. নমস্কার দাদা আপনাকে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানাই।
    ওঁ শুভমস্তুঃ””” হে প্রভু কল্যান করো। 🙏🧘‍♂️💝🧘‍♀️🙏

    Reply

Leave a Comment