বাস টপোলজি কাকে বলে – সুবিধা-অসুবিধা ও ব্যাখ্যা

আগের আর্টিকেল থেকে আমরা নেটওয়ার্ক টপোলজি সম্পর্কে জেনেছিলাম। তবে আজকের এই আর্টিকেলটি থেকে আমরা নেটওয়ার্ক টপোলজির অন্তর্গত একটি ভাগ, বাস টপোলজি সম্পর্কে বিস্তারিত জানব।

যেখান থেকে আপনি বাস টপোলজি কাকে বলে, বাস টপোলজির ব্যাখ্যা, বাস টপোলজির সুবিধা ও অসুবিধা সম্পর্কে জানতে পারবেন।

যদি আপনি এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর পেতে চান তাহলে আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়তে থাকুন।

বাস টপোলজি কাকে বলে?

কম্পিউটার নেটওয়ার্ক তৈরি করার সময় যখন একটি মূল তারের সঙ্গে বাকি কম্পিউটার গুলি কানেক্ট করা হয় তখন সেই নেটওয়ার্কের গঠন টিকে বাস টপোলজি বলে।

সোজা কথায় বলতে গেলে একটিমাত্র মূল ক্যাবলের সাথে বিভিন্ন কম্পিউটারের নেটওয়ার্ক স্থাপনকে বাস টপোলজি বলা হয়।

বাস টপোলজির ব্যাখ্যা

নেটওয়ার্ক টোপোলজি তৈরি করার সময় একটি মূল তারের সাথে কম্পিউটারগুলিকে কানেক্ট করে নেটওয়ার্ক পাঠানো হয়। এই প্রধান বা মূল তারটির মধ্যেই নেটওয়ার্ক থাকে।

সোজা ভাষায় বলতে গেলে বিভিন্ন কম্পিউটারের মধ্যে নেটওয়ার্ক স্থাপন করার জন্য একটি কেবল তারের প্রয়োজন হয়। এবং শুধুমাত্র একটি ক্যাবল তারের মাধ্যমে বিভিন্ন কম্পিউটারের মধ্যে নেটওয়ার্ক স্থাপন করলে সেটিকেই বাস টপোলজি বলে।

যখন ছোটো আকারের কোন নেটওয়ার্ক টোপোলজির দরকার পড়ে তখন বাস টপোলজি ব্যবহার করা হয়। এবং এই ধরনের টপোলজি তৈরি করতে, অন্যান্য টোপোলজির তুলনায় খরচ অনেক কম হয়।

বিভিন্ন ধরনের অফিসের মধ্যে বাস টপোলজির ব্যবহার করা হয়। যেখানে একটি মাত্র তাদের সাথে বিভিন্ন কম্পিউটার কানেক্ট করে একই নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হয়। এবং বিভিন্ন কাজের জন্য সেই নেটওয়ার্কের ব্যবহার করা হয়।

বাস টপোলজি চিত্র

আপনি এই ছবিটি দেখলে বাস টোপোলজি সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝে যাবেন।

বাস টপোলজি চিত্র

এখানে একটি ক্যাবল তারের মাধ্যমে বিভিন্ন কম্পিউটার কে যুক্ত করা হয়েছে। বাস টপোলজির ক্ষেত্রে একটি ক্যাবল তারের মাধ্যমে বিভিন্ন কম্পিউটারের মধ্যে নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হয়।

বাস টপোলজির সুবিধা ও অসুবিধা

যেকোনো জিনিস এর সুবিধা ও অসুবিধা দুটোই রয়েছে। কেমনি বাস টপোলজির ক্ষেত্রেও সুবিধা এবং অসুবিধা গুলি বিদ্যামান। এখান থেকে আপনি বাস টপোলজির সুবিধা ও অসুবিধা দেখে নিন।

বাস টপোলজির সুবিধা

  • এই ধরনের টপোলজির তৈরি করতে কম কেবল তারের প্রয়োজন হয় এই জন্য খরচ অনেক কম হয়
  • রিপিটার ব্যবহার করে ব্যাকবোন সম্প্রসারণ করা যায়
  • কোন কম্পিউটার নষ্ট হয়ে গেলে বাকি কম্পিউটারগুলোতে সমস্যা দেখা দেয় না
  • কোন কম্পিউটার খারাপ হয়ে গেলে সেটা খুব সহজে সরিয়ে নেওয়া যায়

বাস টপোলজির অসুবিধা

  • মূল ক্যাবল এর মধ্যে সমস্যা দেখা দিলে পুরো নেটওয়ার্ক নষ্ট হয়ে যায়
  • ডেটা ট্রান্সমিশন এর গতি অনেক কম
  • কম্পিউটারের সংখ্যা বৃদ্ধি হলে ডেটা ট্রান্সমিশন এর ক্ষমতা আরও কমে যায়
  • কেবল তাদের সমস্যা দেখা দিলে সেটি খুঁজে পেতে অসুবিধা হয় যে কারণে সেটা বদলানোর প্রয়োজন পড়ে।

বাস টপোলজি ব্যাকবোন কোনটি?

বাস টপোলজির মূল যে তারটি থাকে সেটি হল বাস টপোলজির ব্যাকবোন।

অর্থাৎ যে নির্দিষ্ট মেন তারটির সাথে বাকি কম্পিউটার গুলিতে নেটওয়ার্ক দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয় সেই তারটি হল বাস টপোলজির ব্যাকবোন।

উপসংহার

আশা করছি আজকের এই ইনফরমেশন থেকে বাস টপোলজি কী এবং বাস টপোলজির সুবিধা ও অসুবিধা সম্পর্কে বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন।

যদি আপনি আপনার বাড়িতে বা অফিসে এই ধরনের নেটওয়ার্ক টোপোলজি ব্যবহার করতে চান তাহলে খুব কম খরচে এটি করতে পারেন।

এবং এই আর্টিকেলটি সম্পর্কে আরো কিছু জানার থাকলে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

Sanju

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment