পেপাল কি এবং পেপাল একাউন্ট কিভাবে খুলব

পেপাল একাউন্ট কিভাবে খুলব – দেশের মধ্যে পেমেন্ট করার জন্য আমরা বিভিন্ন ধরনের দেশীয় পেমেন্ট গেটওয়ে ব্যবহার করি। কিন্তু যখন একটি দেশের সাথে অন্য দেশে পেমেন্ট করার প্রয়োজন পড়ে, তখন ইন্টারন্যাশনাল পেমেন্ট গেটওয়ে এর প্রয়োজন হয়। এ রকমই একটি ইন্টারন্যাশনাল পেমেন্ট করার ওয়েবসাইট হলো পেপাল

যদি দেশের বাইরে কখনো পেমেন্ট করার প্রয়োজন পড়ে তখন আপনি পেপাল ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু যদি আপনি পেপাল ব্যবহার করতে চান তাহলে প্রথমে পেপাল একাউন্ট বানাতে হবে।

এইজন্য যদি আপনি ভারতীয় বা বাংলাদেশি হন তাহলে, ভারতে ও বাংলাদেশে পেপাল একাউন্ট খোলার নিয়ম টি আজকের এই আর্টিকেল থেকে জেনে নিন।

পেপাল কি?

পেপাল হলো এক ধরনের পেমেন্ট গেটওয়ে ওয়েবসাইট। যেখানে অ্যাকাউন্ট বানিয়ে ইন্টার্নেশনালি দেশের বাইরে, খুবই সহজে পেমেন্ট করা যায়।

নিজের দেশ থেকে বাইরে কোন দেশে পেমেন্ট করার জন্য আপনি পেপারে অ্যাকাউন্ট বানিয়ে, সেই একাউন্টে ব্যাংক এর সাহায্যে টাকা জমা করে, অন্য দেশে পাঠাতে পারেন। বা অন্য দেশ থেকে টাকা আপনার পেপাল অ্যাকাউন্ট এ Received করতে পারেন। এবং পেপাল অ্যাকাউন্ট থেকে আপনার ব্যাংকে ওই টাকা জমা করতে পারেন।

পেপাল একাউন্ট বানানোর জন্য কি কি প্রয়োজন?

যদি আপনার পেপাল একাউন্ট বানাতে চান তাহলে আপনার কিছু টুলস এবং ডকুমেন্টস লাগবে। সেগুলি হল:

পেপাল একাউন্ট কিভাবে খুলব

পেপাল একাউন্ট খোলার জন্য আপনি নিচের পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করুন।

ওয়েবসাইট খুলুন

পেপাল কি এবং পেপাল একাউন্ট কিভাবে খুলব

পেপাল একাউন্ট খোলার জন্য আপনি প্রথমে পেপাল এর ওয়েবসাইট Paypal.com এ যান। এবং Sign Up অপশন টিপুন।

অ্যাকাউন্ট সিলেক্ট করুন

পেপাল কি এবং পেপাল একাউন্ট কিভাবে খুলব

তারপর সেখানে আপনি কি ধরনের একাউন্ট বানাতে চান সেটি নির্ণয় করুন। এখানে আপনি দুই ধরনের একাউন্ট বানাতে পারেন। ১) Individual Account এবং ২) Business Account।

Individual Account – এই ধরনের অ্যাকাউন্ট শুধুমাত্র দেশের বাইরে থেকে কেনাকাটা করার জন্য ব্যবহার করা হয়। এই একাউন্টের মাধ্যমে আপনি কাউকে, পেমেন্ট দিতে পারবেন কিন্তু কারো থেকে পেমেন্ট নিতে পারবেন না।

Business Account – পুরো পৃথিবীর সাথে ব্যবসা করার জন্য এই অ্যাকাউন্ট বানানো হয়ে থাকে। যার মাধ্যমে কোন সার্ভিস বা প্রোডাক্টের টাকা Receive করার সাথে সাথে, অন্য ক্লায়েন্টদের টাকা পাঠানো যায়। Payment Receive, Sales, freelancing payment, business করার জন্য এই ধরনের একাউন্ট বানানো হয়।

আপনি আপনার পছন্দ অনুযায়ী যে কোন একাউন্ট বানাতে পারেন। তবে আমি প্রথমে আপনাদের Individual Account নিয়ে গাইড করছি। এইজন্য আপনি Individual Account বেছে নেওয়ার পর, Next অপশনে ক্লিক করুন।

ফোন নাম্বার দিন

পেপাল কি এবং পেপাল একাউন্ট কিভাবে খুলব

তারপর আপনি যেই নাম্বারে পেপাল একাউন্ট বানাতে চান সেই নাম্বারটি এখানে দিয়ে, আবার নেক্সট অপসন এ ক্লিক করুন।

ইমেইল আইডি এবং পাসওয়ার্ড বাছুন

পেপাল কি এবং পেপাল একাউন্ট কিভাবে খুলব

Next অপশনে ক্লিক করার পর আপনার সামনে এরকম একটি ইন্টারফেস আসবে। আপনি এখানে যে জিমেইল এর সাহায্যে এখন বাংলায় চান সেই জিমেইল টি এন্টার করুন।

এবং এরপর পেপাল একাউন্টে জন্য একটি পাসওয়ার্ড তৈরি করুন। তবে পাসওয়ার্ড তৈরি করার সময় আপনি পাসওয়ার্ডের মধ্যে, স্পেশাল ক্যারেক্টার (@, #, &, *) এবং নাম্বার (1, 2, 3) অবশ্যই দেবেন।

জিমেইল এবং পাসওয়ার্ড তৈরি হয়ে গেলে, আবার Next অপশন প্রেস করুন।

অ্যাড্রেস দিন

পেপাল কি এবং পেপাল একাউন্ট কিভাবে খুলব

এবার এখানে আপনার নাম, দেশের নাম, এবং আপনার বাড়ির ঠিকানা দিন।

  • First Name – শুধুমাত্র আপনার নাম
  • Last Name – আপনার নামের টাইটেল
  • Adress line 1 & 2 – আপনার গ্রাম, পোস্ট অফিস, এবং রোডের নাম দিন।
  • Town/City – আপনি যে শহরে বাস করেন
  • Country/State – আপনার দেশ এবং রাজ্যের নাম
  • Pin Code – আপনার এলাকার পিন নাম্বার।

এই সমস্ত কিছু দেওয়া হয়ে গেলে, এরপর আপনি প্রাইভেসি পলিসি বক্সের মধ্যে tick করে, ‘Agree and Create Account‘ অপশনে ক্লিক করুন।

এই অপশনে ক্লিক করার সাথে সাথে আপনার পেপাল অ্যাকাউন্ট তৈরি হয়ে যাবে। কিন্তু এখন আপনাকে আপনার ব্যাংক একাউন্ট এবং ডকুমেন্টস ভেরিফাই করতে হবে। তারপরেই আপনি আপনার অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করতে পারবেন।

Paypal Email কিভাবে ভেরিফাই করবেন

পেপাল একাউন্ট খুলে ফেলার পর একদম প্রথমে আপনাকে ‘let’s confirm your email address‘ নামক একটি অপশন দেখানো হবে। এই অপশনে ক্লিক করে আপনাকে প্রথমে আপনার পেপাল জিমেইল টি ভেরিফাই করতে হবে।

ইমেইল ভেরিফাই এর জন্য let’s confirm your email address এই অপশনে ক্লিক করুন। ক্লিক করার সাথে সাথে আপনার ইমেইল ইনবক্সে, পেপাল থেকে একটি ভেরিফিকেশন লিঙ্ক পাঠানো হবে।

আপনি জিমেইল খুলে সেই লিংকটি ক্লিক করা মাত্র আপনার পেপাল ইমেইল ভেরিফাই হয়ে যাবে।

Documents কিভাবে ভেরিফাই করবেন

পেপোলে ডকুমেন্ট ভেরিফাই করার জন্য আপনি প্রথমে আপনার প্যান কার্ড/ আধার কার্ড/ ভোটার কার্ডের একটি ছবি তুলে নিন। ছবি তোলা হয়ে গেলে paypal ড্যাশবোর্ড খুলে নিয়ে, ‘upload your identity documents for verification to Start accepting local payments‘ এই অপশনে ক্লিক করুন।

এরপর আপনার সামনে ডকুমেন্টস আপলোড করার একটি অপশন আসবে সেখানে আপনার ডকুমেন্টস আপলোড করে দিন।

Bank Account কিভাবে যোগ করবেন

পেপাল এ ব্যাংক একাউন্ট যুক্ত করার জন্য আপনি ড্যাশবোর্ড থেকে প্রথমে, ‘link a bank account‘ অপশনে ক্লিক করুন। এবার আপনার সামনে দুটি অপশন আসবে।

  1. Link a debit or credit card
  2. Link a bank account

প্রথম অপশনটি সাহায্যে আপনি আপনার ব্যাংকের ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডের মধ্যে যেকোনো একটি নিয়ে পেপাল লিঙ্ক করতে পারেন।

আর যদি আপনার ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড না থাকে তাহলে, bank account number, IFSC code, Bank name & location দিয়ে Confirm অপশন এর সহজে, ব্যাংক একাউন্টটি পেপাল এর সাথে যুক্ত করে নিন।

এরপর ব্যাংক একাউন্ট ভেরিফাই করার জন্য পেপাল আপনার একাউন্টে, অল্প পরিমাণ টাকা পাঠিয়ে ভেরিফাই করবে।

ব্যাংক একাউন্ট ভেরিফিকেশন কমপ্লিট হয়ে গেলে আপনি আপনার পেপাল একাউন্ট ব্যবহার করতে পারবেন।

পেপাল বিজনেস একাউন্ট খোলার নিয়ম

পেপাল বিজনেস একাউন্ট খোলার জন্য, প্রথমে পেপাল ওয়েবসাইটে গিয়ে, Business Account সিলেক্ট করুন।

পেপাল কি এবং পেপাল একাউন্ট কিভাবে খুলব

এরপর –

  1. Budiness Types – কি জন্য পেপাল একাউন্ট বানাতে চাইছেন
  2. Payment Platfrom – via an e-mail address/invoicing
  3. Payment Reference – আপনার দেশের কারেন্সি এবং ফরেন কারেন্সি।

এই সমস্ত কিছু আপনার কাজের হিসাবে Fill করে, Next অপশন প্রেস করুন।

তারপর আপনার জিমেইল এড্রেস দিয়ে পেপালের জন্য একটি স্ট্রং পাসওয়ার্ড তৈরি করুন।

এরপর নতুন ফরমটি এইভাবে ফিলাপ করুন।

  • Business Types – Individual
  • Product or service keyword – professional service
  • Purpose code – other information
  • Personal Pan – Your pan number
  • CC Statement Name – Your Name/ Your Brand Name
  • Business URL – Your website URL/ Blank

সবকিছু সঠিক ভাবে দেওয়া হয়ে গেলে Submit অপশন এ ক্লিক করে দিন।

এরপর একটি নতুন পেজ খুলবে। সেখানে আপনার ডেট অফ বার্থ, আপনার নাম, ফোন নম্বর এবং ঠিকানা দিয়ে ‘Agree and Continue‘ অপশনে ক্লিক করুন।

তারপর ওপরের স্টেপ গুলো দেখে ইমেইল এবং ডকুমেন্টস ভেরিফাই করে, ব্যাংক একাউন্ট যোগ করে দিন।

উপসংহার:

আশাকরি উপরের ইনফরমেশন থেকে আপনি পেপাল কি এবং পেপাল একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন। এখন, যদি আপনি ইন্টারন্যাশনালী কাউকে পেমেন্ট করতে বা কারও থেকে পেমেন্ট নিতে চান তাহলে পেপাল একাউন্ট বানাতে পারেন।

শেয়ার করতে চান!
  •  
  •  
  •  
  •