ডেবিট কার্ড কি – ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম

আজকালকার দিনে এটিএম মেশিন থেকে অনেক মানুষ টাকা তুলে থাকে। কিন্তু তারা যে কার্ডটি ব্যবহার করে, সেই কার্ডের নাম কি – এটা অনেকেই জানেনা। তাই আমি বলে রাখি আপনারা এটিএম থেকে টাকা তোলার জন্য যে কার্ডটি ব্যবহার করেন, তার নাম হলো ডেবিট কার্ড

যারা ডেবিট কার্ড সম্পর্কে বিস্তারিত জানেন না তাদের জন্য আজ আমি এই আর্টিকেলটিতে ডেবিট কার্ড সম্পর্কে ইনফরমেশন দেবো।

যেখান থেকে আপনারা ডেবিট কার্ড কি, ডেবিট কার্ড কয় প্রকার ও কি কি এবং ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম কি – এই সম্পর্কে জানতে পারবেন।

তাই আপনিও যদি ডেবিট কার্ড সম্পর্কে জানতে আগ্রহী হন তাহলে আজকের আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন।

ডেবিট কার্ড কি?

Debit হলো এক ধরনের প্লাস্টিক কার্ড। যার মাধ্যমে এটিএম থেকে টাকা তোলা এবং অনলাইন পেমেন্ট করা যায়।

কারেন্ট এবং সেভিংস ব্যাংক একাউন্ট খোলার সময় আমরা Debit কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারি। এবং এই কার্ড সরাসরি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে লিংকটা করে জন্য প্রয়োজনের সময় আমরা এই কার্ড থেকে পেমেন্ট করতে পারি।

ডেবিট কার্ডের সামনের দিকে 16 অক্ষরের একটি নাম্বার থাকে। যেটি হল ডেবিট কার্ড নম্বর। এবং কার্ডের পেছনদিকে তিন অক্ষরের CVV কোডের সাথে, কার্ডের validity ডেট দেওয়া থাকে। যেগুলি অনলাইন পেমেন্ট করবার সময় কাজে লাগে।

ডেবিট কার্ড কাকে বলে

এটিএম থেকে টাকা তোলা এবং অনলাইন পেমেন্ট করার জন্য ব্যাংক আমাদের যে কার্ডটি দিয়ে থাকে সেটিকেই ডেবিট কার্ড বলে।

নির্দিষ্ট ব্যাংক থেকে ডেবিট কার্ড নেওয়ার জন্য, অবশ্যই আপনাকে সেই ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে হবে।

ডেবিট কার্ড ব্যবহারের সুবিধা

ডেবিট কার্ড ব্যবহার করার কিছু সুবিধা রয়েছে। যেমন –

  • যখনই আপনার টাকা দরকার তখনই আপনি এটিএম মেশিনে গিয়ে ডেবিট কার্ডের সাহায্যে টাকা তুলতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে বারবার ব্যাংকে যাবার দরকার হবে না।
  • অনলাইন থেকে কোন কিছু জিনিস কিনলে আপনি সরাসরি কার্ডের মাধ্যমে পেমেন্ট করে দিতে পারবেন।
  • যদি আপনার ডেবিট কার্ড চুরি হয়ে যায় তাহলেও কোন ব্যক্তি আপনার এটিএম থেকে টাকা তুলতে পারবে না। কারণ টাকা তোলার সময় একটি চার অক্ষরের pin দিতে হয়, যেটি শুধুমাত্র আপনি জানেন।
  • ডেবিট কার্ড ব্যবহার করবার জন্য কোন রকম ব্যাংক চার্জ দিতে হয় না। তবে কখনো কখনো অতিরিক্ত ট্রানজাকশন করার জন্য কিছু চার্জ লাগে।

ডেবিট কার্ড কয় প্রকার ও কি কি

কাজের ধরন এবং types অনুযায়ী ডেবিট কার্ড বিভিন্ন প্রকারের হয়ে থাকে। আলাদা আলাদা কাস্টমারদের জন্য আলাদা আলাদা ডেবিট কার্ড প্রোভাইড করা হয়। যেটি সে শুধুমাত্র নির্দিষ্ট কাজে ব্যবহার করতে পারবে।

সাধারণত ডেবিট কার্ড ৫ প্রকারের হয়ে থাকে। সেগুলি হল –

  1. Visa Debit Card
  2. Master Card
  3. RuPay Card
  4. Contactless Debit Card
  5. Maestro Debit Card

ডেবিট কার্ড দিয়ে কিভাবে টাকা তুলতে হয়

ডেবিট কার্ড দিয়ে টাকা তোলার জন্য আপনি কোন এটিএম মেশিনে চলে যান। এরপর মেশিনে আপনার ডেবিট কার্ড প্রবেশ করার সাথে সাথে, আপনার সামনে ভাষা নির্ণয় করার অপশন আসবে। আপনি সেখান থেকে আপনার সুবিধা মতো একটি ভাষা নির্বাচন করুন।

ভাষা নির্বাচন করার পর আপনি কোন ধরনের অ্যাকাউন্ট (savings/ current) ব্যবহার করেন সেটি নির্ণয় করুন।

এরপর আপনি কত টাকা তুলতে চান সেটি দিয়ে দিন। পেমেন্ট কনফার্ম করবার পর চার অক্ষরের পিন নাম্বারটি দিয়ে withdraw (টাকা তুলুন) অপশনে ক্লিক করুন।

ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম

ডেবিট কার্ড খোলার জন্য আপনাকে প্রথমে নির্দিষ্ট ব্যাংকে গিয়ে, নিজের নামে ব্যাংক একাউন্ট খুলতে হবে।

ব্যাংক একাউন্ট এবং পাসবুক হাতে পেয়ে গেলে আপনি ডেবিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারেন।

সেখানে আপনাকে ডেবিট কার্ডের একটি ফর্ম দেওয়া হবে। আপনি সেই ফরমটি পূরণ করে ব্যাংক অফিসার কে জমা দিতে পারেন।

ফরমটির মধ্যে আপনার নাম, ঠিকানা, বাবার নাম ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর, জাতি, ন্যাশনালিটি লিখতে হবে।

এই সমস্ত কিছু লিখে ফরমটি পূরণ করবার পর আপনি ব্যাংক অফিসারকে জমা দিলেই, ১ থেকে ২ সপ্তাহের মধ্যে আপনার নামের ডেবিট কার্ড, আপনার বাড়িতে পৌঁছে যাবে।

এবং সেই ডেবিট কার্ডটি এরপর ব্যাংকে নিয়ে এসে বা নির্দিষ্ট ব্যাংকের এটিএম মেশিনের সাহায্যে অ্যাক্টিভেট করে নিতে পারবেন।

এক্টিভেট করবার পর ডেবিট কার্ডটি চালু হয়ে গেলে আপনি যে কোন এটিএম মেশিন থেকে টাকা তুলতে পারবেন।

উপসংহার

আশাকরি উপরের ইনফর্মেশন থেকে ডেবিট কার্ড কি এবং ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন। যদি এখনও ডেবিট কার্ড সম্পর্কে আপনার কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

শেয়ার করতে চান!
  •  
  •  
  •  
  •  

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment