গুগোল এর ১৪ টি জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশন এর তালিকা

আমরা সকলেই জানি যে গুগোল হলো বিশ্বের সবথেকে বড় সার্চ ইঞ্জিন। এবং গুগল পৃথিবীর সবথেকে বড় কোম্পানি। গুগলের তৈরি অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম বেশিরভাগ মানুষই ব্যবহার করে। এবং এই জন্য গুগোল অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের জন্য প্রচুর পরিমাণে অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করে, ব্যবহারকারীদের ব্যবহার করার অনুমতি দেয়।

আজকের আর্টিকেলে আমরা এমন কিছু অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে জানব যেগুলি গুগলের তৈরি। এবং এই সমস্ত অ্যাপ্লিকেশনগুলি আমরা সব থেকে বেশি ব্যবহার করে থাকি।

চলুন দেরী না করে জেনে নেওয়া যাক গুগলের জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশনগুলি কি কি এবং কোন অ্যাপ্লিকেশন এর কি কাজ।

১. ইউটিউব – YouTube

ইউটিউব প্রায় সকলেই ব্যবহার করে থাকে। যেটি হল সবথেকে বড় ভিডিও প্লাটফর্ম। এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন ইউজারের তৈরি ইউটিউব ভিডিও দেখতে পাবেন।

এবং এখানে ভিডিও দেখতে কোন পয়সা লাগে না। ইউটিউব অ্যাপ্লিকেশনটি যেকোনো ব্যবহারকারি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারে।

ইউটিউবে আপনি যে কোন ক্যাটাগরির যেকোন ধরনের ভিডিও দেখতে পাবেন। ভিডিওর মাধ্যমে ইনফরমেশন নেওয়ার জন্য এটি হলো সবথেকে বড় ভিডিও সার্চ ইঞ্জিন।

এবং বর্তমানে বড় বড় প্রোডাকশন কোম্পানি এবং মিউজিক কোম্পানি ইউটিউব এর মধ্যে তাদের ভিডিও প্রমোশন ও আপলোড করে থাকে।

২. গুগোল মিত – Google Meet

যদি আপনি বাড়িতে বসে কোন মিটিং করতে চান তাহলে এই অ্যাপ্লিকেশনের ব্যবহার করতে পারেন। এই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে বিভিন্ন ব্যক্তির সাথে একত্রে ভিডিও কলের মাধ্যমে কথা বলতে পারবেন।

ভিডিওর মাধ্যমে মিটিং করার জন্য এটি খুবই জনপ্রিয় একটি অ্যাপ্লিকেশন। যদি আপনি এই অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করতে চান তাহলে সরাসরি প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

৩. জিমেইল – Gmail

আজকের অনলাইনে যে কোন ধরনের অ্যাকাউন্ট তৈরি করবার জন্য জিমেইল একাউন্টের প্রয়োজন হয়। আর জিমেইল অ্যাকাউন্ট বানানোর জন্য আপনি জিমেইল অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করতে পারেন।

এখান থেকে জিমেইল অ্যাকাউন্ট বানানোর সাথে সাথে, অন্য ব্যক্তিদের সাথে জিমেইল এর মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারবেন। এছাড়া আপনার জিমেইল টির মধ্যে কোন নতুন জিমেইল এসেছে কিনা সেটিও চেক করতে পারবেন।

৪. গুগোল ক্রোম – Google Chrome

ইন্টারনেট অ্যাক্সেস করার জন্য অবশ্যই আপনাকে ব্রাউজ করতে হবে। আর ইন্টারনেট চালানোর জন্য আপনি গুগলের তৈরি সবথেকে জনপ্রিয় ব্রাউজার টি ব্যবহার করতে পারেন। এরই নাম হলো গুগল ক্রোম

এই ওয়েবসাইটটির মাধ্যমে আপনি যেকোন প্রকারের ওয়েবসাইট অ্যাক্সেস করা থেকে শুরু করে, যে কোন প্রকারের গান বা ভিডিও ডাউনলোড বা ফাইল ডাউনলোড করতে পারবেন।

এখানে ভয়েস এর মাধ্যমে যেকোনো জিনিস ইন্টারনেট থেকে সার্চ করতে পারবেন। এছাড়াও অনেক কিছু ফেসিলিটি এই অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে রয়েছে। আপনি চাইলেই অ্যাপ্লিকেশনটি প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করতে পারেন।

৫. গুগোল প্লে মিউজিক – Google Play Music

ডিভাইসে কোন গান ডাউনলোড করা ছাড়া যদি আপনি সরাসরি অনলাইনের মাধ্যমে যে কোন গান চালাতে চান তাহলে এই অ্যাপ্লিকেশনটি প্রয়োজন। এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনি যেকোন ভাষার এবং যেকোন আর্টিস্টের যে কোন গান শুনতে পারবেন।

এই অ্যাপ্লিকেশনটি খুলে নিয়ে সার্চ বক্স এর মাধ্যমে যে কোন গানের নাম দিয়ে সার্চ করলেই আপনার সামনে সেই গানটি চলে আসবে। এবং আপনি সেই গানের উপর ক্লিক করে পুরো গানটি শুনতে পারবেন।

এই অ্যাপ্লিকেশনটি গান ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের পডকাস্ট শুনতে পারবেন। এটি বিভিন্ন দেশের এবং বিভিন্ন ভাষায় আপলোড করা হয়েছে।

৬. গুগোল প্লে বুকস – Google Play Books

যদি আপনি ইবুক ডাউনলোড করে পড়তে চান তাহলে গুগল প্লে বুকস অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে পারেন। আপনি প্লে স্টোরে মাধ্যমে প্রচুর পরিমাণে ই-বুক ডাউনলোড করতে পারবেন। এবং সেই সমস্ত এবুকিলি পড়ার জন্য অ্যাপ্লিকেশনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এছাড়া অ্যাপ্লিকেশনটির মধ্যেও অনেক ধরনের ই-বুক রয়েছে সেগুলি আপনি সরাসরি ডাউনলোড করে পড়তে পারবেন। এই অ্যাপ্লিকেশনটি গুগলের তৈরি হওয়ার কারণে এই অ্যাপ্লিকেশনটির বিশ্বাসযোগ্যতা অনেক বেশি।

৭. গুগোল ম্যাপ – Google Map

যদি আপনি মোবাইলের মাধ্যমে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাওয়ার জন্য কোন ধরনের ব্যবহার করতে চান তাহলে, গুগল ম্যাপ অ্যাপ্লিকেশন টি আপনার মোবাইলে থাকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এই অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে আপনি যেখান থেকে যেতে চান এবং যেখানে যেতে চান তার এড্রেস দিয়ে দিলেই, লোকেশন অনুযায়ী আপনি সেই জায়গায় খুব সহজে পৌঁছে যেতে পারবেন।

এছাড়াও আপনার গন্তব্যের মধ্যে কোথায় রেস্টুরেন্ট আছে, কোথায় পেট্রোল পাম্প আছে, কোথায় বইয়ের দোকান আছে এই সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ ইনফরমেশন গুলো সরাসরি দেখতে পারবেন।

৮. গুগোল পে – Google Pay

অনলাইনের মাধ্যমে কাউকে টাকা পাঠানোর জন্য এবং কারো থেকে টাকা নেওয়ার জন্য এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করতে পারেন।

এছাড়া আপনার ব্যাংক ব্যালেন্স কত এই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে খুব সহজে জানতে পারবেন।

এর সাথে সাথে যদি আপনি মোবাইলে রিচার্জ করতে চান, গ্যাস বিল পেমেন্ট করতে চান, বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে চান এই সমস্ত কিছু এই অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে রয়েছে। আপনি এক ক্লিকে এই সমস্ত কিছু কাজ, অনায়াসে করতে পারবেন

৯. গুগোল ড্রাইভ – Google Drive

আমাদের মোবাইলে বিভিন্ন ধরনের ছবি ভিডিও এবং গান থাকে। কিন্তু কখনো কখনো মোবাইল থেকে এ সমস্ত জিনিস ডিলিট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

এইজন্য আপনি গুগল ড্রাইভ ব্যাবহার করতে পারেন। যেটি হল একটি ক্লাউড স্টোরেজ। এর মধ্যে আপনি আপনার পার্সোনাল ফাইলগুলি আপলোড করে রাখলে, সেগুলো যেকোনো সময় ডাউনলোড করে পুনরায় ব্যবহার করতে পারবেন।

এছাড়া আপনার মোবাইল ছাড়া অন্য কোন মোবাইলে আপনার জি-মেইল অ্যাকাউন্টে লগইন করলে সেই ডিভাইসগুলি তেও, আপনার গুগোল ড্রাইভ অ্যাকাউন্টটি ব্যবহার করতে পারবেন।

১০. গুগোল লেন্স – Google Lense

বর্তমানে কোন জিনিসের নাম না জানলে ইন্টারনেটে খুঁজে বের করতে অসুবিধা হয়। এইজন্য আপনি এর ব্যবহার করতে পারেন।

যার মাধ্যমে কোন জিনিসের ছবি তুলে, আপনি সরাসরি ইন্টারনেটে সার্চ দিতে পারবেন। এবং সার্চ দেওয়ার সাথে সাথে সেই প্রোডাক্ট সম্পর্কিত ইনফরমেশন আপনার সামনে হাজির হবে।

১১. গুগল ডুয়ো – Google Duo

এটি একটি ভিডিও কল করার অ্যাপ্লিকেশন। তবে পার্সোনাল ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে ভিডিও কল করবার জন্য এই অ্যাপ্লিকেশনটির ব্যবহার হয়।

যদি আপনি আপনার ব্যক্তিগত বন্ধু-বান্ধব এবং আত্মীয়-স্বজনদের সাথে কথাবার্তা বলতে চান তাহলে গুগল ডুয়ো অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করতে পারেন।

এই অ্যাপ্লিকেশনটির ইউজার ইন্টারফেস খুবই সরল এবং সাধারন হওয়ার কারণে, বর্তমানে এই অ্যাপ্লিকেশনটি অনেক ব্যবহারকারী ব্যবহার করছে।

১২. গুগল ট্রান্সলেট – Google Translate

যদি আপনি কোন ল্যাঙ্গুয়েজ থেকে অন্য কোন ল্যাঙ্গুয়েজে ট্রান্সলেট করতে চান তাহলে এই অ্যাপ্লিকেশনটি প্রয়োজন।

এখানে আপনি যেকোন ভাষার যেকোন ল্যাংগুয়েজে আপনার নিজের ভাষায় ট্রান্সলেট করতে পারবেন। এবং নির্দিষ্ট বাক্যটির মানে কি এটি বুঝতে পারবেন।

১৩. গুগোল নিউজ – Google News

যে কোন প্রকারের নিউজ দেখবার জন্য আপনি এই অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে পারেন। এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করার ফলে সমস্ত বড় বড় নিউজ চ্যানেলের নিউজ আপনি আপনার মোবাইলে পেয়ে যাবেন।

এবং এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করার পর আপনার বাড়িতে আর খবরের কাগজ কেনার দরকার হবে না।

১৪. ইউটিউব মিউজিক – YouTube Music

ইউটিউব এর যে কোন গান যদি আপনি ভিডিও ছাড়া, শুধুমাত্র মিউজিক এর মাধ্যমে শুনতে চান তাহলে এই অ্যাপ্লিকেশনটি প্রয়োজন।

এই অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে আপনি অসংখ্য গান পেয়ে যাবেন। যেগুলি আপনি চালিয়ে নিয়ে, মোবাইলের স্কিন লাইট অফ করে দিলেও গানটি চলতে থাকবে।

এর ফলে আপনি গান শুনতে শুনতে অন্য যেকোনো কাজ করতে পারবেন।

উপসংহার –

আশকারি উপরের ইনফর্মেশন থেকে গুগলের জনপ্রিয় এবং প্রয়োজনীয় অ্যাপ্লিকেশন গুলি কি কি এর সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন। যদি আপনি এই সমস্ত অ্যাপ্লিকেশনগুলি ব্যবহার না করে থাকেন তাহলে এক্ষুনি অ্যাপ্লিকেশনগুলি আপনার মোবাইলে ইন্সটল করে নিন। এবং প্রত্যেকটি অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনার দৈনন্দিন জীবনের কাজ সহজ করে নিন।

আরও পড়ুন

শেয়ার করতে চান!
  •  
  •  
  •  
  •  

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment