শ্রী কৃষ্ণের প্রেমের বাণী | কৃষ্ণের বাণী | কৃষ্ণের বাণী কথা

আজকের আর্টিকেল থেকে আমরা শ্রী কৃষ্ণের প্রেমের বাণী গুলি জানবো। যেগুলি আপনার জীবনকে সঠিক পথে নিয়ে যেতে অনুপ্রাণিত করবে। এবং এখানে দেওয়া শ্রী কৃষ্ণের উপদেশ গুলি যদি আপনি সঠিকভাবে মেনে চলতে পারেন তাহলে আপনার জীবনে অনেক বড় বড় সমস্যার এমনিতেই, সমাধান চলে আসবে।

এই জন্য আজকের এই আর্টিকেলে দেওয়া ৪৭ টি শ্রী কৃষ্ণের প্রেমের বাণী বা শ্রী কৃষ্ণের উপদেশ, একটি একটি করে মনযোগ দিয়ে পড়া উচিত।

যদি আপনিও শ্রীকৃষ্ণের বাণী গুলির সাহায্যে আপনার জীবনকে বদলে ফেলতে চান তাহলে থেকে একটি একটি করে, কৃষ্ণের বাণী কথা গুলি পড়া শুরু করুন।

শ্রী কৃষ্ণের প্রেমের বাণী

১. নিজের উপর ভরসা
রাখলে সেটা শক্তি হয়ে যায়, আর অন্যের কাছে রাখলে সেটাই হয়ে যায় দুর্বলতা,
কেউ মনে রাখে না কখন তুমি সঠিক ছিলে,
কিন্তু সবাই মনে রাখে কখন তুমি ভুল ছিলে।

২. পরিবর্তন পৃথিবীর অলঙ্ঘনীয় নিয়ম।
এক মুহুর্তে আপনি লাখের মালিক হতে পারেন এবং অন্য মুহূর্তে আপনি গরীবও
হতে পারেন।

৩. মানুষ জন্মগতভাবে নয়, তার ভালো ও সত্য কাজের দ্বারা মহান হয়।

৪. একমাত্র জ্ঞানই এমন একটি অক্ষয় উপাদান, যা মানুষের পাশে কোথাও, যেকোনো অবস্থায় এবং যেকোনো সময় ছেড়ে যায় না।

৫. আমি কারো ভাগ্য তৈরি করি না,
কারো কর্মের ফলও দেই না।

৬. পৃথিবীতে যেমন আবহাওয়ার পরিবর্তন হয়, তেমনি জীবনে সুখ-দুঃখ আসতেই থাকে।

৭. তুমি যা চাও তাই করো কিন্তু ভালোবাসা, মমতা, নম্রতা ও ভক্তি দিয়ে করো।

৮. একজন মানুষ যতই ফর্সা হোক না কেন, কিন্তু তার ছায়া সবসময় কালো,
“আমিই শ্রেষ্ঠ” আত্মবিশ্বাস,
কিন্তু “শুধু আমিই শ্রেষ্ঠ” হলো অহংকার।

৯. অহেতুক চিন্তা কেন?
তুমি কি জন্য ভিত?
কে তোমাকে মারতে পারে?
আত্মার জন্মও হয় না, মৃত্যুও হয় না।

১০. যুদ্ধ হোক বা জীবন, সাফল্য আসে মাত্র তিনটি অস্ত্র থেকে: ধর্ম, ধৈর্য এবং সাহস।

১১. তুমি কি হারালে যে তোমাকে কাঁদায়?
তুমি কি এনেছ, যা হারিয়েছ?
কী উৎপাদন করলেন, যা ধ্বংস করলেন?
তুমিও কিছু আনোনি, যা নিয়েছ, এ
থেকে নিয়েছ,
যা দিয়েছ, এর ওপর দিয়েছ।

১২. কারো হৃদয়ে আঘাত করবেন না, নিজের স্বার্থের জন্য সবকিছু প্রকৃতির উপর ছেড়ে দিন।

১৩. বন্ধু গরীব বা ধনী তা কোন ব্যাপার না। বরং, আপনার খারাপ সময়ে তিনি আপনাকে কতটা সমর্থন করেন তা গুরুত্বপূর্ণ।

১৪. কারো সাথে বন্ধুত্ব করতে না পারলে তার সাথে শত্রুতাও করো না।

১৫. যা হয়েছে, ভালোর জন্য হয়েছে, যা হচ্ছে
ভালোর জন্যই হচ্ছে।
যা হবে, তাও ভালো হবে।
অতীতের জন্য অনুতপ্ত হবেন না,
ভবিষ্যতের জন্য চিন্তা করবেন না ,
বর্তমান চলছে।

কৃষ্ণের বাণী কথা

১৬. যদি সুখের জন্য কাজ করেন তবে আপনি সুখ পাবেন না। তবে আপনি যদি খুশি হয়ে কাজ করেন তবে আপনি অবশ্যই সুখ পাবেন।

১৭. মিথ্যা যতই শক্তিশালী হোক না কেন। তিনি সত্যকে চাপা দিতে পারেন না।

১৮. মানুষ তার বিশ্বাস দ্বারা তৈরি হয়।
তিনি যেমন বিশ্বাস করেন, তিনিও তাই।

১৯. জীবনকে ঈশ্বরের সাথে সংযুক্ত করুন, সবকিছু ঈশ্বরের উপর ছেড়ে দিন।

২০. মনকে কখনও হতাশ করবেন না শুধু আমার প্রতি বিশ্বাস রাখুন।

২১. কাউকে কখনই সম্পূর্ণ বিশ্বাস করবেন না, মানুষকে ভালোবাসুন, শুধুমাত্র কৃষ্ণের উপর আপনার পূর্ণ আস্থা রাখুন।

২২. আমারও বহু জন্ম হয়েছে,
তোমারও বহু জন্ম হয়েছে,
না এটা আমার শেষ জন্ম,
না এটা তোমার শেষ জন্ম।

২৩. শান্ত থাকা ঠিক কিন্তু ভুল হলে নয়।

২৪. আপনি যা চান তার জন্য যদি লড়াই না করেন তবে যা হারিয়েছেন তার জন্য কখনো কাঁদবেন না।

২৫. ভালোবাসা এমন একটা অভিজ্ঞতা,
যেটা মানুষকে কখনো পরাজিত হতে দেয় না
আর ঘৃণা এমন একটা অভিজ্ঞতা,
যেটা মানুষকে কখনো জিততে দেয় না।

২৬. যে তোমাকে সম্মান করে না তার
পাশে দাঁড়ানোর চেয়ে
একা থাকা ভালো ।

২৭. কোনো ভুলের কারণে গতকাল দুঃখে কেটেছে। তাই তাকে স্মরণ করে আজকের দিনটি নষ্ট করবেন না।

২৮. পরিবর্তনই এই পৃথিবীর নিয়ম,
গতকাল যা ছিল অন্য কারো,
আজ তা তোমার,
কাল তা
হবে অন্য কারো।

২৯. মূল্যবান সবকিছু বহন করতে মাথা নত করতে হয়, মা বাবার আশীর্বাদও তার মধ্যে
অন্যতম।

৩০. দিনটি যাই হোক না কেন, শুধু খুশি থাকুন।

৩১. যখন হোঁচট খেয়েও জীবনে না পড়ো, তখন বুঝো শ্রীকৃষ্ণ ধরে রেখেছেন।

কৃষ্ণের বাণী

৩২. সুখ হল মনের অবস্থা, বাইরের জগতের সাথে এর কোন সম্পর্ক নেই।

৩৩. অজ্ঞ লোকেরা নিজেদের সুবিধার জন্য কাজ করে। যেখানে বুদ্ধিমান লোকেরা বিশ্বের কল্যাণে কাজ করে।

৩৪. জ্ঞানী ব্যক্তি কখনই ইন্দ্রিয়সুখের মধ্যে আনন্দ খোঁজেন না।

৩৫. জীবনে যত সময়ই আসুক না কেন, পরিবারের সাথে থাকুন, সুখ থাকলে বাড়ে, আর দুঃখ থাকলে ভাগ হয়ে যায়।

৩৬. প্রত্যেকেরই নিজের শক্তি
ও দুর্বলতা আছে ,
মাছ জঙ্গলে ছুটতে পারে না
আর সিংহ জলে রাজা হতে পারে না,
তাই সবাইকে গুরুত্ব দিতে হবে।

৩৭. একবার ক্ষমা করে ভালো হয়ে যান,
কিন্তু একই ব্যক্তিকে আবার বিশ্বাস করে বোকা হবেন না।

৩৮. যে ব্যক্তি অন্যের উপকার করে তাকে সবসময় কষ্ট পেতে হয় কারণ যে গাছ সবসময় ফল দেয় তাকেও পাথর মারতে হয়।

৩৯. সৌভাগ্যের লোকেরা একটু খারাপ হলেই ঈশ্বরকে অভিশাপ দেয়,
এবং দুর্ভাগ্যের লোকেরা একটু ভালো হওয়ার জন্য ঈশ্বরকে স্মরণ করে
এবং ধন্যবাদ দেয়।

৪০. একমাত্র মনই মানুষের বন্ধু ও শত্রু।

৪১. অহঙ্কারের কারণে ব্যক্তির প্রতিপত্তি, বংশ, গৌরব তিনটিই চলে যায়।

৪২. এই জীবন যুদ্ধে
নিজেকে কৃষ্ণ ও অর্জুন হতে
হয়, প্রতিদিন নিজের সারথি হয়ে
জীবনের মহাভারতের সাথে যুদ্ধ করতে হয়।

৪৩. মানুষ যখন তার ধর্ম নিয়ে গর্বিত হয়,
তখন তার হাতে অনাচার শুরু হয়।

৪৪. যেখানে বিশ্বাস আছে সেখানে প্রমাণের প্রয়োজন নেই।

৪৫. চুপ করে থাকার চেয়ে উত্তম উত্তর আর নেই এবং ক্ষমা করার চেয়ে বড় শাস্তি আর নেই।

৪৬. কর্মফল একজন ব্যক্তিকে সেভাবে খুঁজে পায় যেভাবে একটি বাছুর শত গরুর মধ্যে তার মাকে খুঁজে পায়।

৪৭. এটা সত্যি যে একজন মানুষ ভুল করে কিছু শেখে, কিন্তু তার মানে এই নয় যে
সে সারা জীবন ভুল করেই থাকে
এবং বলে যে আমরা শিখছি।

উপসংহার

আশা করি আজকের আর্টিকেলটির মধ্যে দেওয়া শ্রী কৃষ্ণের প্রেমের বাণী গুলি আপনার ভালো লেগেছে। এবং আমি আশা করবো যে আপনার জীবনে আপনি প্রত্যেকটি বাণীকে কাজে লাগাবেন। যদি আপনারা ভবিষ্যতে আরও এরকম আর্টিকেল পড়তে চান তাহলে আমাদের কমেন্ট করে অবশ্যই জানাবেন। আমরা এই ধরনের আর্টিকেল আপনাদের উপহার দেওয়ার চেষ্টা করব। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

Sanju

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

2 thoughts on “শ্রী কৃষ্ণের প্রেমের বাণী | কৃষ্ণের বাণী | কৃষ্ণের বাণী কথা”

Leave a Comment