ইউটিউব কাকে বলে – ইউটিউব এর জনক কে

আজকের দিনে ইউটিউব এর নাম শোনেননি এমন ব্যক্তি খুব কম আছে। কিন্তু যারা পুরনো দিনের মানুষ তাদের মধ্যে অনেকেই ইউটিউব সম্পর্কে জানেনা। তাই তাদের উদ্দেশ্যে আজকের আর্টিকেলে আমি ইউটিউব কাকে বলে, ইউটিউব এর জনক কে এবং ইউটিউব কিভাবে খুলতে হয় – এই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

যদি আপনার ইউটিউব সম্পর্কে না জেনে থাকেন তাহলে আজকের আর্টিকেলটি পড়তে পারেন। আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি ইউটিউব সম্পর্কে সমস্ত প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন। তাই চলুন দেরী না করে ইউটিউব কাকে বলে – জেনে নেওয়া যাক।

ইউটিউব কাকে বলে?

ইউটিউব হল একটি ভিডিও প্লাটফর্ম। যেখানে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও, ইউজার দেখতে পারে এবং নিজে আপলোড করতে পারে।

যদি আপনি ইউটিউব ব্যবহার করেন তাহলে আপনি সেখানে প্রচুর পরিমাণে ভিডিও দেখতে পাবেন। এবং যদি আপনি নিজে ভিডিও বানাতে ভালোবাসেন তাহলে ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে, আপনি সেখানে নতুন নতুন ভিডিও আপলোড করে আপনার ভিডিওগুলি অন্যদের সাথে শেয়ার করতে পারেন।

এর সাথে সাথে আপনি আপনার চ্যানেলের মাধ্যমে টাকাও কামাতে পারবেন।

ইউটিউবে আপনি যে কোন ক্যাটাগরিতে যেকোনো ধরনের ভিডিও দেখতে পাবেন। বড় বড় গানের কোম্পানিগুলি আজকাল ইউটিউবে তাদের গানগুলি আপলোড করে থাকে।

কারণ ইউটিউবে ভিডিও দেখার জন্য বা ভিডিও আপলোড করে জন্য ইউটিউব কাস্টমার বা পাবলিশারদের থেকে কোনরকম চার্জ করে না।

ইউটিউব এর জনক কে?

Chad Hurley, Steve Chen এবং Jawed Karim নামক তিন বন্ধু 2005 সালে ইউটিউব তৈরি করেন। কিন্তু পরবর্তীকালে 2006 সালে গুগল কোম্পানি, US$ 1.65 billion এর পরিবর্তে ইউটিউব কে কিনে নেন।

ইউটিউব থেকে ভিডিও কিভাবে দেখবেন?

ইউটিউব থেকে ভিডিও দেখার জন্য আপনাকে প্রথমে ইউটিউব এপ্লিকেশনটি ইন্সটল করতে হবে। অ্যাপ্লিকেশনটি আপনার মোবাইলে ইন্সটল করার পর, ইউটিউবে থাকা সার্চ বার এর মাধ্যমে যেকোন ভিডিও সার্চ করতে পারেন।

আপনি যে ধরনের ভিডিও সার্চ করবেন সেই ধরনের ভিডিও লিস্ট আপনার সামনে উপস্থিত হবে। আপনি তার মধ্য থেকে যেকোন একটি ভিডিওর উপর ক্লিক করে সেই ভিডিওটি দেখতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলবো?

যদি আপনি ইউটিউবে অন্যদের ভিডিও দেখার পাশাপাশি নিজের ভিডিও আপলোড করতে চান তাহলে আপনি একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলতে পারেন।

মোবাইল দিয়ে ইউটিউব চ্যানেল খোলার জন্য আপনাকে প্রথমে মোবাইলে ইউটিউব অ্যাপ্লিকেশনটি এবং ভিডিওগুলিতে tag, title ইত্যাদি দেওয়ার জন্য এবং monitzation করার জন্য ইউটিউব স্টুডিও অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করতে হবে।

এরপর জিমেইল একাউন্টের মাধ্যমে লগইন করে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের নাম দিয়ে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে পারবেন।

এরপর যেকোন ভিডিও শুট করে আপনি আপলোড অপশনের মাধ্যমে ভিডিওটি চ্যানেলে আপলোড করতে পারবেন।

ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম সম্পর্কে একটি আর্টিকেল আমাদের ওয়েবসাইটে রয়েছে। আপনি এই আর্টিকেলটি পড়ে নিলে, কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলতে হয় বুঝতে পারবেন।

ইউটিউব থেকে টাকা কামানোর পদ্ধতি

যদি আপনার চ্যানেলটি জনপ্রিয় হয় এবং আপনার চ্যানেলের প্রচুর পরিমাণে ভিউ আসে, তাহলে আপনি ইউটিউব থেকে আপনি বিভিন্ন পদ্ধতিতে টাকা কামাতে পারেন।

ইউটিউব থেকে টাকা কামানো সবথেকে সহজ পদ্ধতি হলো গুগল এডসেন্স। যেখানে আপনি গুগলের অ্যাডভার্টাইজমেন্ট আপনার ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে সরাসরি viewers দের দেখাতে পারেন। এবং এর পরিবর্তে গুগল আপনাকে পেমেন্ট করবে।

এছাড়া বিভিন্ন ধরনের আফিলিয়েট প্রোডাক্টের লিংক আপনার ভিডিওর মধ্যে দিয়ে এবং বিভিন্ন কোম্পানি ও প্রতিষ্ঠানের স্পন্সর করা ভিডিওর মাধ্যমে আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা কমাতে পারেন।

ইউটিউবে কি কি ভিডিও আপলোড করা যায়?

ইউটিউবে আপনি যে কোন প্রকারের যে কোন ক্যাটাগরির ভিডিও আপলোড করতে পারেন। যদি আপনি একজন ইউটিউবার হতে চান এবং ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করতে চান তাহলে আপনার সুবিধার্থে এখানে কিছু লিস্ট দেওয়া হল। এখান থেকে যেকোন একটি কাটা করে বেছে নিয়ে আপনি সেই মতো ভিডিও বানাতে পারেন।

  • মোবাইল সম্পর্কে ভিডিও
  • কম্পিউটার সংক্রান্ত ভিডিও
  • রান্নাবান্নার ভিডিও
  • ফ্যাশন ভিডিও
  • মোটিভেশনাল ভিডিও
  • বিভিন্ন ধরনের টিপস-এন্ড-ট্রিকস
  • আপকামিং মোবাইল সম্পর্কে ভিডিও
  • অনলাইন থেকে আয় করার ভিডিও
  • ব্যবসা সংক্রান্ত ভিডিও
  • স্টক মার্কেট এবং ইনভেস্টিং সংক্রান্ত ভিডিও
  • স্টাডি টিপস
  • ইত্যাদি।

আপনি এই সকল ক্যাটাগরির ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন। এছাড়াও আপনি আপনার মন পছন্দের যেকোন ক্যাটাগরি বেছে নিয়ে সেই মতো ভিডিও তৈরি করে আপনার চ্যানেলে আপলোড করতে পারেন।

ইউটিউব কিভাবে আপডেট দিতে হয়?

ইউটিউব আপডেট দেওয়ার জন্য আপনাকে গুগল প্লে স্টোরে যেতে হবে। এবং সেখান থেকে ইউটিউব সার্চ দিলে আপনার সামনে আপডেট নামক একটি অপশন আসবে।

আপনি সেই অপশন এর উপর ক্লিক করলে ইউটিউব আপডেট ভার্সন টি আপনার মোবাইলে ডাউনলোড হওয়া শুরু হয়ে যাবে। এবং ডাউনলোড সম্পন্ন হলে সেটি অটোমেটিক আপনার মোবাইলে ইন্সটল হয়ে যাবে।

ইউটিউব কিভাবে খুলে?

ইউটিউব খোলার জন্য আপনাকে প্রথমে আপনার মোবাইলে ইউটিউব অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করতে হবে।

তারপর আপনি অ্যাপ্লিকেশন টি খুলে নিয়ে যেকোন ভিডিও সার্চ করে দেখতে পারবেন।

এখানে যদি আপনি মোবাইলে অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড না করে ইউটিউব দেখতে চান তাহলে সরাসরি যেকোনো একটি ব্রাউজার খুলে নিয়ে সেখানে youtube.com লিখে সার্চ দিন।

এরপর ইউটিউব এর ওয়েব সাইটটি আপনার সামনে খুলে যাবে। আপনি এখন শাড়ি পড়ে যেকোন ভিডিওকে নাম লিখে সার্চ করলে ভিডিওটি দেখতে পাবেন।

এখন এখানে আমি ইউটিউব সংক্রান্ত কিছু ছোট প্রশ্নের উত্তর দেব। যেগুলি বেশিরভাগ সময় ইন্টারনেটে সার্চ হয়ে থাকে।

ইউটিউব কে আবিষ্কার করেন?

ইউটিউব এর আবিষ্কার একজন ব্যক্তি করেনি। chad Hurley, Steve Chen এবং Jawed Karim নামক তিন ব্যক্তি একসাথে মিলে ইউটিউব তৈরি করেন।

Youtube কত সালে আবিষ্কার হয়?

2005 সালে ইউটিউব আবিষ্কার করা হয়।

ইউটিউব কি ধরনের সাইট?

যেহেতু আমরা ভিডিও দেখবার জন্য ইউটিউব ব্যবহার করি। তাই ইউটিউব হলো একটি ভিডিও ওয়েব সাইট।

যারা ইউটিউব ভিডিও তৈরি করে তাদের কি বলে?

ইউটিউবে যারা ভিডিও বানায় এবং তাদের চ্যানেলে আপলোড করে তাদের ইউটিউবার বলা হয়।

উপসংহার

আশাকরি উপরের ইনফর্মেশন থেকে ইউটিউব কাকে বলে এবং ইউটিউব এর জনক কে এই সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন। যদি এখনও এই আর্টিকেলটি সম্পর্কে আপনার কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। আমরা অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে আপনাকে সাহায্য করার চেষ্টা করব। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

Sanju

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment