স্বাস্থ্য বীমা কি | স্বাস্থ্য বীমা কেন প্রয়োজন? (Health insurance)

বলা হয় “স্বাস্থ্যই সম্পদ” কিন্তু এত পরিশ্রম করার পরও আজকের এই ব্যস্ত জীবনে, আমরা কি আমাদের স্বাস্থ্যের সঠিক যত্ন নিতে পারি। অনেক ব্যক্তি আছে যারা সময়ের অভাবে তাদের স্বাস্থ্যের ওপর নজর দিতে পারে না।

কিন্তু সেই সকল ব্যক্তিকে ভবিষ্যতে এমন বড় ধরনের রোগের সম্মুখীন হতে হয় যে তাদের হাতে বিশেষ টাকা-পয়সা থাকে না সেই রোগের চিকিৎসা করার জন্য।

এই জন্য আজকের এই আর্টিকেলে আপনি এমন একটি পরিষেবা পাবেন যার মাধ্যমে আপনার চিকিৎসা ও সমস্ত খরচ এবং কোন দুর্ঘটনা ঘটলে তার খরচও সেই কোম্পানি বহন করবে। এই পরিষেবা টির নাম হল স্বাস্থ্য বীমা (health insurance)।

যদি আপনি এখনো স্বাস্থ্যবীমা না করে থাকেন তাহলে আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি স্বাস্থ্য বীমা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন। যেখান থেকে আপনি স্বাস্থ্য বীমা কি এবং স্বাস্থ্য বীমার উপকারিতা সম্পর্কে বুঝতে পারবেন। এবং এই আর্টিকেলটি পড়বার পর আপনি স্বাস্থ্যবীমা করাবেন কিনা সেটা আপনার নিজস্ব ব্যাপার। তাই প্রথমে দেরি না করে স্বাস্থ্য বীমা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন।

স্বাস্থ্য বীমা কি? (Health insurance)

স্বাস্থ্য বীমা হলো একটি বীমা পরিষেবা যা একজন ব্যক্তির চিকিৎসা এবং দুর্ঘটনাজনিত খরচ কভার করে।

আজকাল একজন ব্যক্তির জন্য স্বাস্থ্য বীমা খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে! কারণ একজন ব্যক্তি অসুস্থ হলে বা আহত হলে স্বাস্থ্য বীমা আর্থিক সুরক্ষা প্রদান করে! যা ব্যক্তির নিজের এবং পরিবারের যে কোনো ভুক্তভোগী ব্যক্তির চিকিৎসায় সহায়তা করে।

দুর্ঘটনার কারণে কোনো ব্যক্তি ক্ষতিগ্রস্ত বা অসুস্থ হলে হাসপাতালে ভর্তি, নার্সিং কেয়ার, চিকিৎসা বিল ইত্যাদির খরচ অনেক বেশি হয়ে যায়।

আর এই খরচ বহন করে স্বাস্থ্য বীমা কোম্পানি। তবে, এই সমস্ত সুবিধাগুলি শুধুমাত্র তখনই পাওয়া যেতে পারে যদি ব্যক্তি ইতিমধ্যেই স্বাস্থ্য বীমা পরিকল্পনা গ্রহণ করে থাকে।

আপনি নিজের জন্য বা পুরো পরিবারের জন্য স্বাস্থ্য বীমা করিয়ে প্রত্যেককে স্বাস্থ্য বীমা সুরক্ষা দিতে পারেন।

স্বাস্থ্য বীমা কাকে বলে?

একজন ব্যক্তির চিকিৎসা এবং দুর্ঘটনাজনিত খরচ কভার করার জন্য যে বীমা পলিসি নেওয়া হয় তাকে স্বাস্থ্যবীমা বলে।

এটি এমন বীমা পরিষেবা যা একজন ব্যক্তির চিকিৎসা এবং দুর্ঘটনাজনিত খরচ কভার করে।

স্বাস্থ্য বীমা কেন প্রয়োজন?

অনেকে মেডিক্লেম বা স্বাস্থ্য বীমা নেওয়াকে অর্থের অপচয় বলে মনে করেন! কিন্তু সেই সব লোকদের বলুন যে, স্বাস্থ্যের জন্য ব্যয় ক্রমাগত বাড়ছে এবং এখন আপনি যদি কোনও ছোট রোগে আক্রান্ত হন তবে ভাল হাসপাতালে আপনার চিকিৎসার জন্য লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ হয়। এমন পরিস্থিতিতে সময়মতো স্বাস্থ্য বীমা নেওয়া প্রয়োজন।

এই কারণেই আপনার এবং আপনার পরিবারের জন্য একটি স্বাস্থ্য বীমা পলিসি কেনা আজ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। কারণ বেশিরভাগ বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসার খরচ অনেক বেশি এবং আপনি জানেন না কখন টাকা পয়সার সমস্যা হতে পারে।

তাই সময়মতো একটি ভালো বীমা পলিসি বেছে নেওয়া স্বাস্থ্য সংক্রান্ত খরচের ক্ষেত্রে উপকারী।
তাই যদি আপনিও স্বাস্থ্য বীমা নেওয়ার পরিকল্পনা করেন, তাহলে এখন আপনার জন্য স্বাস্থ্য বীমা এর প্রকারগুলি কী তা জানা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

স্বাস্থ্য বীমা কয় প্রকার ও কি কি?

১. ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য বীমা

এটি একটি ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য নীতি! স্বাস্থ্য ব্যয় এবং হাসপাতালে ভর্তির খরচ এই নীতির আওতায়! এই পলিসিতে বীমাকৃত ব্যক্তির বয়স অনুযায়ী প্রিমিয়াম নির্ধারণ করা হয়। ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য বীমা নিজের বা পরিবারের যেকোনো সদস্যের জন্য করা যেতে পারে।

২. পারিবারিক স্বাস্থ্য বীমা পরিকল্পনা

এই পরিকল্পনাটি খুবই উপকারী যা পুরো পরিবারের জন্য একটি সুরক্ষা ঢাল হিসেবে কাজ করে! যে কেউ তাদের পুরো পরিবারের জন্য এই পরিকল্পনা নিতে পারেন! এই প্ল্যানটি পরিবারের যে কোনও সদস্যের যে কোনও ধরণের রোগের চিকিৎসার জন্য যে খরচ হয় তার জন্য ক্ষতিপূরণ দেয়।

পারিবারিক স্বাস্থ্য বীমা পরিকল্পনা পরিবারের মোট সদস্যের উপর ভিত্তি করে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ বীমা প্রদান করে।

৩. সিনিয়র সিটিজেন হেলথ প্ল্যান

এই ধরনের বীমা পরিকল্পনা বিশেষভাবে বয়স্কদের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে অর্থাৎ যাদের বয়স 60 বছর বা তার বেশি। এই পরিকল্পনা তাদের জন্য উপযুক্ত যারা তাদের বৃদ্ধ বয়সে সুরক্ষা সুবিধা পেতে চায়।

৪. সার্জারি এবং গুরুতর অসুস্থতা বীমা

ক্যান্সার, হার্ট অ্যাটাক, কিডনি ইত্যাদির মতো গুরুতর রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য এই ধরনের বীমা পরিকল্পনা উপকারী। কারণ এই ধরনের চিকিৎসায় অনেক খরচ হয় এবং এই প্ল্যানগুলির প্রিমিয়ামও অনেক বেশি।

৫. মাতৃত্ব স্বাস্থ্য বীমা পরিকল্পনা

এই ধরনের বীমা পরিকল্পনা শিশুর যত্নের জন্য করা হয়! এই পরিকল্পনার আওতায় মায়ের যত্ন, প্রসবের আগে ও পরে প্রসবের খরচ এবং পরিকল্পনায় উল্লেখিত নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নবজাতক শিশুর যত্ন নেওয়ার খরচ গুলি পড়ে।

এ ছাড়া অ্যাম্বুলেন্সের খরচও বীমা পলিসি কোম্পানি বহন করে।

৬. ব্যক্তিগত দুর্ঘটনা পরিকল্পনা

যদি ভবিষ্যতে কোনো ব্যক্তির কোনো দুর্ঘটনা ঘটে সেই কথা ভেবে এই প্ল্যানটি নেওয়া হয়ে থাকে। এই বীমা পরিকল্পনাটি নির্দিষ্ট ব্যক্তির দুর্ঘটনার সময়, হাসপাতালের সমস্ত খরচ বহন করে থাকে।

স্বাস্থ্য বীমা সুবিধা – স্বাস্থ্য বীমার উপকারিতা

বন্ধুরা, যাইহোক, জরুরী পরিস্থিতিতে চিকিৎসা সুরক্ষার জন্য স্বাস্থ্য বীমা অত্যন্ত উপকারী প্রমাণিত হয়! তবে এটি ছাড়াও এর আরও কিছু সুবিধা রয়েছে যা নিম্নরূপ।

নগদহীন চিকিৎসা

যদি ব্যক্তি ইতিমধ্যেই একটি স্বাস্থ্য বীমা পলিসি নিয়ে থাকেন, তাহলে এর অর্থ হল যে ব্যক্তি তার পকেট থেকে কোনো অর্থ ব্যয় না করে চিকিৎসার সময় টাকা ধার করে বা চিকিৎসার সুবিধা গ্রহণ করে তার চিকিৎসা করাতে পারেন। এবং এইভাবে নগদহীন চিকিৎসার সুবিধা নিতে পারেন।

রুম ভাড়া

অসুস্থ হলে বা আহত হলে হাসপাতালে চিকিৎসার খরচের সঙ্গে রুম ভাড়াও দিতে হবে। কিন্তু আপনার যদি স্বাস্থ্য বীমা পলিসি না থাকে তবে আপনি এই খরচ এড়াতে পারবেন না।

নো ক্লেম বোনাস

এমন সব মানুষ যাদের আগে থেকেই স্বাস্থ্য বীমা আছে, কিন্তু যদি তারা কোনো স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যার সম্মুখীন না হয় এবং যদি তাদের কোনো দাবি না থাকে, তাহলে এই ক্ষেত্রে বীমা কোম্পানি নো ক্লেম বোনাস আকারে পুরস্কার বিতরণ করে।

পরিবহন খরচ

স্বাস্থ্য বীমা গ্রহণকারী ব্যক্তি যদি হাসপাতালে ভর্তি হন, তবে এই পরিস্থিতিতে অ্যাম্বুলেন্স এবং অন্যান্য পরিবহনের সমস্ত খরচ স্বাস্থ্য বীমা কোম্পানি বহন করে। তাই এভাবে বাড়ি থেকে হাসপাতালে যাতায়াত খরচ কমে যায়।

বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষা

আজকের ব্যস্ত জীবনে আমরা প্রায়ই আমাদের স্বাস্থ্য নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়ি! এবং আমাদের ছোট বড় চেকআপ করাতে হয়। তাই আজ এমন অনেকগুলি স্বাস্থ্য বীমা পলিসি রয়েছে যার অধীনে আপনার দ্বারা সমস্ত স্বাস্থ্য পরীক্ষা বিনামূল্যে করা হয়।

যাইহোক, বেশিরভাগ বীমা কোম্পানি এই ধরনের চেকআপ শুধুমাত্র নো ক্লেম বোনাসের অধীনে বিনামূল্যে করে থাকে।

ট্যাক্স বেনিফিট

হ্যাঁ, স্বাস্থ্য বীমা থাকলে কর সুবিধাও পাওয়া যায়! স্বাস্থ্য বীমার জন্য আপনার দেওয়া প্রিমিয়াম আয়কর আইন 80D এর অধীনে কর ছাড় পেতে সাহায্য করে।

অনলাইনে স্বাস্থ্য বীমা কিভাবে নিবেন?

স্বাস্থ্য বীমা কিনতে আপনাকে আর বীমা কোম্পানির অফিসে যেতে হবে না। আপনি অনলাইনে যেকোনো জায়গা থেকে নিজের বা আপনার পরিবারের জন্য স্বাস্থ্য বীমা কিনতে পারেন এবং ইন্টারনেটের সাহায্যে এটি পুনর্নবীকরণ করতে পারেন।

ভারতের সেরা কিছু বীমা পলিসির (insurance policy) নাম

  • ম্যাক্স বুপা হেলথ ইন্স্যুরেন্স
  • এইচডিএফসি এরগো হেলথ ইন্স্যুরেন্স
  • ভারতী এক্সা হেলথ ইন্স্যুরেন্স
  • এসবিআই হেলথ ইন্স্যুরেন্স
  • এলএন্ডটি হেলথ ইন্স্যুরেন্স
  • বাজাজ অ্যালিয়ানজ হেলথ ইন্স্যুরেন্স
  • অ্যাপোলো মিউনিখ হেলথ ইন্স্যুরেন্স
  • জাতীয় স্বাস্থ্য বীমা

যাইহোক, আপনি যখনই কোনো বীমা কোম্পানি থেকে কোনো বীমা প্ল্যান কিনবেন, তার আগে আপনাকে অবশ্যই এই প্ল্যানগুলি সম্পর্কে সমস্ত তথ্য, তাদের লুকানো শর্তাবলী জানতে হবে যাতে আপনি পরে বীমা পলিসির সঠিক সুবিধা নিতে পারেন।

উপসংহার

আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে স্বাস্থ্য বীমা (health insurance) সম্পর্কে বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন। যদি আপনি এখনো স্বাস্থ্যবীমা না করে থাকেন তাহলে আপনি শারীরিক দিক দিয়ে বিচার বিবেচনা করে আপনার পরিবারের জন্য এবং আপনার জন্য স্বাস্থ্য বীমা করাতে পারেন। যেটা ভবিষ্যতে অনেক কাজে দেবে। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

শেয়ার করতে চান!

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment