স্টার টপোলজি কাকে বলে – এর সুবিধা অসুবিধা

আগের আর্টিকেলটি থেকে আমরা বাস ও রিং টপোলজি সম্পর্কে জানিয়ে ছিলাম। আজকের এই আর্টিকেলটি থেকে আমরা স্টার টপোলজি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেব।

যেখান থেকে আপনি স্টার টপোলজি কাকে বলে, স্টার টপোলজির বৈশিষ্ট্য এবং স্টার টপোলজির সুবিধা অসুবিধা সম্পর্কে জানতে পারবেন। যদি এই সকল প্রশ্ন গুলোর উত্তর আপনি জানতে চান তাহলে আর্টিকেলটি পড়তে পারেন। তাই চলুন স্টার টপোলজি সম্পর্কে প্রশ্নগুলির উত্তর জেনে নিই।

স্টার টপোলজি কাকে বলে?

যে ধরনের টপোলজিতে একটি কেন্দ্রীয় কম্পিউটারের সাথে অন্যান্য কম্পিউটার সংযুক্ত করে নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা হয় সেই টোপোলজিকে, স্টার টপোলজি বলে।

স্টার টপোলজির কেন্দ্রে থাকা কম্পিউটারটিকে হোস্ট বলা হয়। এবং এই হোস্টের মাধ্যমে অন্য কম্পিউটার গুলিকে নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

স্টার টপোলজি কি?

এটি হলো এক প্রকারের নেটওয়ার্ক টোপোলজি। এই ধরনের টপোলজিতে নেটওয়ার্কের আদান-প্রদান করার জন্য মাঝে একটি কম্পিউটার থাকে। এবং সেই কেন্দ্রে থাকা কম্পিউটার থেকে অন্য কম্পিউটারে গুলিকে কানেক্ট করা হয় নেটওয়ার্ক আদান-প্রদানের জন্য।

এই ধরনের টপোলজির দেখতে কতটা তারার মত হওয়ার কারণে এটিকে স্টার টপোলজি বলা হয়।

স্টার টপোলজিতে কোন কম্পিউটারে সমস্যা দেখা দিলে সেই কম্পিউটার টি খুব সহজে রিপ্লেস করে দেওয়া যায়।

স্টার টপোলজি কি

আপনি এই ছবিটি দেখলে বুঝতে পারবেন স্টার টপোলজি দেখতে কেমন হয়। এখানে মাঝে যে কম্পিউটারটি রয়েছে এটিকে হোস্ট বলা হয়। এই হোস্টের মাধ্যমেই অন্য কম্পিউটার গুলিকে কানেক্ট করা হয়েছে।

স্টার টপোলজির সুবিধা অসুবিধা

স্টার টপোলজির কিছু সুবিধা এবং অসুবিধা রয়েছে। এগুলি আপনি একটি একটি করে এখান থেকে জেনে নিন।

স্টার টপোলজির সুবিধা

  • সরাসরি হোস্টের সাথে কম্পিউটার কানেক্ট হওয়ার কারণে নেটওয়াক আদান-প্রদান এর গতি দ্রুত হয়
  • নতুন কম্পিউটার যোগ করতে বা সরাতে পুরো নেটওয়ার্ক বন্ধ করার প্রয়োজন হয় না
  • কোন খারাপ কম্পিউটার খুব সহজে রিপ্লেস করা যায়

স্টার টপোলজির অসুবিধা

  • হোস্ট ছাড়া বাকি কম্পিউটার গুলি একটির সাথে অপরটি ডাটা আদান-প্রদান করতে পারে না
  • যদি হোস্ট কম্পিউটার খারাপ হয় তাহলে পুরো নেটওয়ার্ক অচল হয়ে যাবে
  • কম্পিউটারের সংখ্যা বাড়লেও ডেটা ট্রান্সমিশন এর গতি কমে যায়।

স্টার টপোলজির বৈশিষ্ট্য

  1. কেন্দ্রীয় হোস্টের সাথে বাকি কম্পিউটারগুলি যুক্ত থাকে
  2. হোস্টের মাধ্যমে কম্পিউটারগুলিকে নিয়ন্ত্রন করা হয়
  3. এই ধরনের টপোলজি তারার মতো আকার ধারণ করে
  4. হোস্ট ছাড়া বাকি কম্পিউটারগুলি অন্যান্য কম্পিউটারগুলির সাথে, ডাটা আদান-প্রদান করতে পারে না।

উপসংহার

আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটি থেকে স্টার টপোলজি কি এবং স্টার টপোলজির সুবিধা ও অসুবিধা গুলি বুঝতে পেরেছেন। যদি এই টোপোলজিটি সম্পর্কে বুঝতে আপনার এখনো কোনো অসুবিধা হয় তাহলে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন।

আরও দেখুন

Sanju

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment