সিইও কি – সিইও এর কাজ কি ও হওয়ার যোগ্যতা

আপনি নিশ্চয়ই সুন্দর পিচাই এর নাম শুনেছেন, যিনি গুগলের সিইও। যেটি একটি বড় কথা, তাহলে আপনি এখন বুঝতে পেরেছেন CEO কত বড় একটি পদ।

যদি আপনি সিইও সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাই তাহলে আজকের এই আর্টিকেল থেকে আমরা সিইও কি, সিইও ফুল ফর্ম, সিইও এর কাজ কি এবং সিইও হওয়ার যোগ্যতা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। যদি আপনি এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর গুলো পেতে চান তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন।

সিইও কি?

এটি হলো কোন কোম্পানি বা অরগানাইজেশনের এমন একটি পদ, যার কাঁধের ওপর নির্দিষ্ট কোম্পানির সমস্ত কাজের দায়িত্ব থাকে।

CEO হলো কোন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের অত্যন্ত নির্ভরযোগ্য এবং দায়িত্বশীল পদ। এই পোস্টটি পরিচালনাকারী ব্যক্তি অর্থাৎ যিনি কোম্পানির সিইও, তিনি অত্যন্ত ধৈর্যশীল, হওয়ার পাশাপাশি বিশেষ গুণাবলীতে পরিপূর্ণ থাকেন।

কোম্পানিকে সুষ্ঠু এবং সঠিকভাবে পরিচালনার জন্য একটি উন্নত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নের পাশাপাশি, পূর্ণ দায়িত্ব ও দৃঢ়তার সাথে তা বাস্তবায়ন করা তার দায়িত্বের মধ্যে থাকে।

এমনকি কোম্পানিকে সাফল্যের সর্বোচ্চ শিখরে নিয়ে যাওয়ার জন্য সঠিক সময়ে, সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার এবং জ্ঞান ও দক্ষতা, একজন সিইওর হাতেই রয়েছে।

সিইও ফুল ফর্ম

সিইও এর পূর্ণরূপ হল Chief Executive Officer। যাকে বাংলায় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বলা হয়।

এটি এমন একটি পদ, যেটি বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন নামে পরিচিত। যেমন – জেনারেল ম্যানেজার, প্রেসিডেন্ট ইত্যাদি।

এই পদে থাকা ব্যাক্তি পরিচালনা পর্ষদের তত্ত্বাবধান ও নিয়ন্ত্রণে কাজ করে।

সিইও মানে কি?

সিইও হলো একটি অফিসার লেভেলের পদ। CEO-এর কাজ হল তার কোম্পানির উন্নয়নের জন্য একটি দুর্দান্ত দল তৈরি করা এবং যে কোনও উপায়ে তার ব্যবসা বৃদ্ধি করা। একজন সিইওর দক্ষতা ও জ্ঞানের উপর কোম্পানির ভবিষ্যৎ নির্ভর করে।

সিইও এর কাজ কি?

সাধারণত সিইও পদটি, কোম্পানির বা প্রতিষ্ঠানের প্রধানের সাথে সংযুক্ত। CEO-এর প্রাথমিক কর্তব্যগুলির মধ্যে একটি হল পরিচালনা পর্ষদের কাছে রিপোর্ট করা, যেটি কোম্পানির মালিকদের কাছে দায়বদ্ধ।

এছাড়াও, সিইও একজন চেয়ারম্যান সহ অন্যান্য ব্যবস্থাপক কর্মকর্তাদের মনোনীত করতে কাজ করে।

একজন সিইও শুধুমাত্র একজন প্রধান ব্যবস্থাপক ব্যক্তিই নয় বরং কোম্পানির সাথে জড়িত যেকোনো নতুন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সৃষ্টিকর্তাও তিনি।

সিইও এর কাজ গুলি হলো –

  1. রণনীতি এবং দিশা নির্ধারিত করা
  2. কোম্পানির সংস্কৃতি এবং ব্যবহার ঠিক করা
  3. কোম্পানির পরিচালনা করার জন্য পুঁজি সঞ্চয় করা
  4. বিভিন্ন ক্ষেত্রে কার্যকরী দল তৈরি করে সেগুলো পরিচালনা করা
  5. কোম্পানিতে কর্মরত সকল কর্মচারীদের অনুপ্রাণিত করা
  6. কোম্পানির পণ্য ও গুণগত মান মাথায় রেখে সেগুলোকে আরও ভালো করা
  7. সকল কর্মচারীকে কাজের প্রতি উদ্বুদ্ধ করা
  8. দরকারি সময় গুরুত্বপূর্ণ নির্ণয় নেওয়া
  9. প্রভাবশালী সমন্বয় তৈরি করা
  10. ইত্যাদি।

সিইও হওয়ার যোগ্যতা

যদিও এই শীর্ষ-স্তরের ব্যবস্থাপক পদগুলির একটি নির্ধারিত একাডেমিক পোর্টফোলিও নেই।

এখানে কিছু গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষাগত যোগ্যতা রয়েছে যা আপনাকে উল্লিখিত প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানিতে একটি শীর্ষ পদ দখল করতে সাহায্য করবে।

আপনি যদি একজন সিইও হিসেবে কাজ করতে চান, তাহলে আপনার জন্য এটা জানা জরুরী, একজন সিইও হতে কি কি লাগে।

ব্যাচেলর ডিগ্রী

একটি কোম্পানির শীর্ষ ব্যবস্থাপক হিসাবে কাজ করার জন্য একজন ব্যক্তির জন্য একটি স্নাতক ডিগ্রীর প্রয়োজন। এই ডিগ্রি প্রমাণ করে যে আপনি উচ্চ শিক্ষার সাথে পরিচিত। গ্রাজুয়েট কি জেনে নিন।

এমবিএ

ব্যবস্থাপনায়, স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। যখন কোম্পানিগুলি যোগ্য এবং দক্ষ কর্মীদের খোঁজ করে, তখন – ব্যক্তিগত অন্তর্দৃষ্টি ছাড়াও, ব্যবস্থাপনায় আনুষ্ঠানিক শিক্ষা, ব্যক্তিদের আরও দক্ষ পদ্ধতিতে ব্যবস্থাপনাগত সমস্যাগুলি বুঝতে এবং সমাধান করতে সহায়তা করে। এই জন্য এমবিএ করা প্রয়োজন। এমবিএ কি এবং এমবিএ করার যোগ্যতা কি – এখান থেকে জেনে নিন।

স্পেশালাইজেশন ডিপ্লোমা

আপনার কাজের প্রোফাইল আরো গভীর করার জন্য আপনাকে এমবিএ করবার পর কোন একটি স্পেশালাইজেশন বেছে নিয়ে, ডিপ্লোমা করতে হবে।

আপনার কাছে যদি এই তিনটি ডিগ্রী থাকে তাহলে আপনি কোন কোম্পানির সিইও হিসেবে আবেদন করতে পারেন।

বিশ্বের বিভিন্ন বড় কোম্পানির অন্যতম সিইওর নাম

  • গুগলের সিইও – সুন্দর পিচাই
  • অ্যাপলের সিইও – টিম কুক
  • মাইক্রোসফটের সিইও – সত্য নারায়ণ নাদেলা
  • ইনফোসিসের সিইও – সলিল পারেখ
  • আমাজনের সিইও – জেফ বেজোস
  • ফেসবুকের সিইও – মার্ক জুকারবার্গ
  • TCS-এর সিইও – রাজেশ গোপিনাথন

উপসংহার

আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে সিইও কি, সিইও এর কাজ কি এবং সিইও হওয়ার যোগ্যতা সম্পর্কে বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন। যদি এই আর্টিকেলটি সম্পর্কে আপনার এখনো কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

Sanju

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment