মানুষের সব থেকে বড় শত্রু কি এবং মুক্তি পাওয়ার উপায়

অনেক ব্যক্তি আছেন যারা মানুষের সব থেকে বড় শত্রু সম্পর্কে জানতে চান। আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনারা এই প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন।

কারণ আজকের এই আর্টিকেল থেকে আমরা মানুষের সব থেকে বড় শত্রু কি এবং সব থেকে বড় শত্রু কেন বলছি – এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানব। আমি আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটা আপনাদের ভালো লাগবে।

মানুষের সব থেকে বড় শত্রু কোনটি ও কেন?

মানুষের সব থেকে বড় শত্রু বাইরে নয়, বরং তার ভেতরেই আছে। মানুষের সব থেকে বড় শত্রু হলো তার নিজের ‘রাগ‘।

এর কারণ হলো রাগ মানুষকে নরকের পথে নিয়ে যায়।

মানুষ যখন রেগে যায় তখন ভালো খারাপের মর্ম বোঝেনা। যার কারণে কয়েক মুহূর্ত পর তার অনেক বড় লোকসান হয়ে যায়।

মানুষ রেগে গিয়ে নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অন্য ব্যক্তির সাথে খুব খারাপ আচরণ করে থাকে। এবং সেই ব্যক্তিকে তার রাগের কারণে আলাদা আলাদা পরিস্থিতিতে, খুব খারাপ ফল ভোগ করতে হয়।

রাগ, মানুষের বুদ্ধি নষ্ট করে তার মনকে কালো করে দেয়। রাগের কারণে অনেক ব্যক্তির চোখ বন্ধ হয়ে যায় এবং তার মুখ খুলে যায়। যার কারণে সে অপর ব্যক্তি কে, অনেক খারাপ জিনিস এবং খারাপ কথা বলে থাকে। এবং রেগে যাওয়া অবস্থায় সে অন্যের সাথে কেমন ব্যবহার করছে এটাও তার মাথায় থাকে না।

এইজন্য রাগ হলো মানুষের প্রথম শত্রু। একজন রেগে যাওয়া ব্যক্তি অন্যের থেকে নিজের ক্ষতি বেশি করে ফেলে।

রাগ কমানোর উপায়

যদি আপনি আপনার রাগ কমাতে চান তাহলে এখানে দেওয়া tips গুলি ফলো করতে পারেন। এর থেকে আপনার রাগ অনেকটা কমে যাবে।

  1. নিজের মনকে যতটা পারেন শান্ত রাখার চেষ্টা করুন
  2. মেডিটেশন করুন
  3. রোজ ব্যায়াম করুন
  4. অন্য ব্যক্তির সাথে হাসির আড্ডা জমিয়ে রাখুন
  5. রেগে যাওয়ার আগে, নিজেকে প্রশ্ন করুন – “রেগে গিয়ে কি লাভ?”
  6. রাগ এলে, ১০ – ১ পর্যন্ত গুনতে থাকুন এবং নিজেকে ব্যস্ত রাখার চেষ্টা করুন।

মানুষের আরও কিছু শত্রু

রাগ ছাড়া মানুষের আরও কিছু শত্রু রয়েছে। এগুলিও মানুষের অজান্তে, নিজের ক্ষতি করে থাকে। তবে এগুলি রাগের থেকে বড় শত্রু নয়।

এই সকল শত্রু গুলি হলো

  • হিংসা বা ঈর্ষা
  • অহংকার
  • লোভ
  • লালসা
  • অলসতা

অতিরিক্ত রাগের কারণে যেমন ব্যক্তির এক নিমেষে সবকিছু শেষ হয়ে যেতে পারে, এই সকল শত্রু গুলো মানুষের মধ্যে বাসা বাঁধলে, মানুষকে ধীরে ধীরে শেষ করে।

তবে ব্যাক্তি যদি তার শত্রু গুলিকে চিহ্নিত করতে পারে, তাহলে খুব সহজেই এই সব শত্রু গুলিকে দূরে সরিয়ে ফেলতে পারে।

রাগ কি একদমই করবেন না?

রাগ অবশ্যই করবেন। তবে সঠিক জায়গায় সঠিক মাত্রায় ও বিচার বিবেচনা করার পর। অতিরিক্ত রাগ খুব খারাপ জিনিস। যদি আপনি নিজের রাগকে কন্ট্রোল করে উপযুক্ত জায়গায় ব্যবহার করতে পারেন তাহলে কোন সমস্যা নেই।

উদাহরণ হিসেবে ধরুন :

কোন ব্যক্তি অন্য ব্যক্তির সাথে অকারণে খারাপ ব্যবহার করছে। এই সময় যে ব্যক্তি খারাপ ব্যবহার করেছে তার উপর রাগ করা স্বাভাবিক ব্যাপার। এবং এই ক্ষেত্রেও আপনি যদি নিজেকে নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রেখে রাগ করেন তাহলে কোন সমস্যা নেই।

কিন্তু যদি আপনি অনিয়ন্ত্রিত হয়ে অন্যের প্রতি রেগে গিয়ে খুব খারাপ আচরণ করেন তাহলে আপনার সবকিছু শেষ হয়ে যেতে পারে।

আপনি পরিস্থিতি অনুযায়ী নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করে এবং পরিস্থিতি যাচাই করে রাগ অবশ্যই করতে পারেন।

সোজা কথায় বলতে গেলে, আপনার রাগের কারণে যদি কারো উপকার হয় তাহলে আপনি রাগ করতে পারেন। আর যদি আপনার রাগের কারণে অন্যের ক্ষতি হয় তাহলে আপনার রাগকে নিয়ন্ত্রণে রাখুন।

উপসংহার

আশাকরি উপরের ইনফর্মেশন থেকে মানুষের সব থেকে বড় শত্রু কি এই সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। যদি এখনো এই আর্টিকেলটি সম্পর্কে, আপনার কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

শেয়ার করতে চান!
  •  
  •  
  •  
  •  

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment