মহাভারতের শ্রেষ্ঠ যোদ্ধা কে – কর্ণ ও অর্জুনের মধ্যে কে শ্রেষ্ঠ

মহাভারতে অনেক যোদ্ধা ছিলেন। বিভিন্ন যোদ্ধা বিভিন্ন ব্যক্তির দৃষ্টিতে মহাভারতের সেরা যোদ্ধা হতে পারেন। কেউ বলবেন অর্জুন সেরা যোদ্ধা, আবার কেউ বলবেন কর্ণ সেরা যোদ্ধা। আবার কেউ কেউ পিতামহ ভীষ্ম কে বড় যোদ্ধা মনে করেন।

এই জন্য আলাদা আলাদা দিক থেকে ধরতে গেলে এরা প্রত্যেকেই শক্তিশালী যোদ্ধা। কিন্তু যদি মহাভারতের সেরা যোদ্ধা কে? – এই প্রশ্নটির উত্তর দিতে বলা হয়, তাহলে অনেকেই দিতে পারবে না।

এই জন্য আজকের এই আর্টিকেল থেকে আমরা মহাভারতের সবচেয়ে বড় যোদ্ধা কে? এই সম্পর্কে আলোচনা করব। এখানে শুধুমাত্র আমাদের দৃষ্টিভঙ্গিতে এবং আমাদের দিক দিয়ে মহাভারতের সবচেয়ে শক্তিশালী যোদ্ধা কে তুলে ধরা হয়েছে।

তাই চলুন দেরী না করে মহাভারতের শ্রেষ্ঠ যোদ্ধা কে? এই সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

মহাভারতের শ্রেষ্ঠ যোদ্ধা কে?

আমার মতে মহাভারতের শ্রেষ্ঠ যোদ্ধা হলেন সূর্যপুত্র কর্ণ। তার এই শ্রেষ্ঠতার পেছনে কিছু কারণ রয়েছে। এই কারণগুলি একটি একটি করে দেখে নিন।

১. মহাভারতে অর্জুন সম্পূর্ণরূপে কৃষ্ণের উপর নির্ভরশীল ছিল। কিন্তু কৌরব পক্ষের দুর্যোধন সম্পূর্ণরূপে কর্ণের উপর নির্ভরশীল ছিলেন।

২. আচার্য দ্রন, কৌরবদের এবং পান্ডবদের সম্পূর্ণরূপে শিক্ষা দিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি কর্ণ কে শিক্ষা দেন নি। এইজন্য কর্ণ ছলনা করে পরশুরামের কাছ থেকে শিক্ষা নিয়ে ছিলেন।

এর থেকেই বোঝা যাচ্ছে যে কর্ণ যদি অর্জুনের মত যোগ্য না হতো, তাহলে তিনি কর্ণকে শিক্ষা দিতেন না।

৩. ভগবান ইন্দ্র, কর্নের বর্ম এবং কুন্ডল প্রতারণা মূলক ভাবে দখল করা সত্বেও, কর্ণ একজন বীর যোদ্ধার মত যুদ্ধ করেছিলেন।

৪. তার কাছে পরশুরামের দেওয়া শিবের বিজয় ধনুক ছিল। যদি কর্ণ মারা যাওয়ার সময় তার হাতে সেই ধনুকটি থাকত তাহলে তাকে হত্যা করা যেত না।

৫. কর্ণ ছিলেন দুর্যোধনের একজন সত্যি কারের বন্ধু। এবং এর পাশাপাশি সবথেকে বড় দাতাও ছিলেন।

৬. কর্ণ একাই জরাসন্ধকে পরাজিত করেছিলেন। অন্যদিকে ভীম শ্রীকৃষ্ণের সহায়তা নিয়ে, প্রতারণা করে জরাসন্ধকে হত্যা করেছিলেন।

৭. রাজা ভগদত্ত কে অর্জুন পরাজিত করতে পারেননি। কিন্তু কর্ণের কাছে তিনি পরাজয় স্বীকার করেন।

৮. কর্ণ তার মাতা কুন্তিকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে তিনি অর্জুনকে ছাড়া তার অন্য কোন পুত্রকে হত্যা করবেন না। এইজন্য বাকি ৪ পাণ্ডব, বারবার কর্নের মুখোমুখি হওয়া সত্ত্বেও তিনি তাদের হত্যা করেননি।

৯. অশ্বসেন নামক এক সর্প, অর্জুনকে দংশন করার প্রতিশোধ নিলে, কর্ণ তাকে হত্যা করতে বারণ করেন।

মহাভারতের শ্রেষ্ঠ যোদ্ধা কে - কর্ণ ও অর্জুনের মধ্যে কে শ্রেষ্ঠ

১০. কর্ণ বীরযোদ্ধা হওয়ার কারণে তাকে ধনুক বিহীন করে, অসহায় ভাবে হত্যা করা হয়।

১১. মহাভারতের যুদ্ধে, কর্ণের তীরে যখন অর্জুনের রথ কিছুটা পিছিয়ে যায় তখন কৃষ্ণ তাকে প্রশংসা করেন।

তখন অর্জুন কৃষ্ণাকে বলেছিলেন যে, “যখন আমার তীরে কর্ণের রথ কয়েক গজ পিছিয়ে যায় তখন তো আপনি আমার প্রশংসা করেন নি। আর তার তীরে আমার রথ কয়েক ইঞ্চি পিছিয়ে যেতেই তার প্রশংসা করছেন?”

কৃষ্ণ এর উত্তরে বলেছিলেন “কর্ণের রথে যিনি সারথি আছেন, তিনি হলেন একজন মানুষ। এবং তোমার রথে স্বয়ং শ্রীকৃষ্ণ এবং হনুমান বসে আছি। তারপরেও কর্ণ আমাদের রথ টিকে ধনুর্বিদ্যার সাহায্যে পিছনে ঠেলে দিল”।

কর্ণ ও অর্জুনের মধ্যে কে শ্রেষ্ঠ

উপরের এই দশটি কারণ দেখলেই বোঝা যায় যে অর্জুনের থেকে কর্ণ মহাভারতের সবচেয়ে বড় যোদ্ধা ছিল। সে অনেক সুযোগ সুবিধা না পেয়েও, অনেক কষ্টের মধ্যে থেকে ধনুর্বিদ্যার শিক্ষা পেয়েছেন।

এবং অনেক খারাপ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে, শুধুমাত্র একা সারাটা জীবন লড়াই করে গেছেন।

এইজন্য “কর্ণ ও অর্জুনের মধ্যে কে শ্রেষ্ঠ?” এই প্রশ্নের উত্তরে আমি কর্ণকেই বেছে নিলাম।

উপসংহার

আশাকরি উপরের ইনফর্মেশন থেকে মহাভারতের সবচেয়ে শক্তিশালী যোদ্ধা কে এবং মহাভারতের সবচেয়ে বড় যোদ্ধা কে? – এই সম্পর্কে আপনারা আমাদের মতামত পেয়ে গেছেন। তবে আপনার দৃষ্টিভঙ্গিতে মহাভারতের সেরা যোদ্ধা কে? – এটা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট করে জানাবেন। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

শেয়ার করতে চান!

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment