নিজের নামে চেক লেখার নিয়ম

এমন অনেক ব্যক্তি আছে যারা সঠিকভাবে চেক লিখতে না পারার কারণে অনেক সময় তাদের চেক ক্যানসিল হয়ে যায়।

এই জন্য আজকের এই আর্টিকেল থেকে আমরা চেক লেখার নিয়ম সম্পর্কে আপনাদের জানাবো। যেখান থেকে আপনি নিজের নামে চেক লেখার নিয়ম (How to write Self withdrawal cheque) এবং অন্যকে চেক দেওয়ার সময় (How to fill cheque for other Person) কি লিখতে হয় এই দুটি বিষয় সম্পর্কে জানতে পারবেন।

যদি আপনিও চেক কিভাবে লিখতে হয় – এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়তে থাকুন।

চেক কি?

চেক হলো একটি গুরুত্বপূর্ণ ধরণের কাগজ এবং যার নামে চেকটি তৈরি করা হয়েছে, চেকের উপরে সেই ব্যক্তির ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য রয়েছে।

একটি চেক বই ব্যবহার করে বা চেক ব্যবহার করে, নির্দিষ্ট ব্যক্তি, ব্যাঙ্ক কে – অন্য ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা সংস্থা যাকে তিনি চেক দিচ্ছেন, তাকে তার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে অর্থ প্রদান করার আদেশ দেন।

এবং চেকের মধ্যে থাকা অঙ্কের পরিমাণ তার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে মাইনাস হয়ে, অন্য ব্যাক্তির একাউন্ট এ গিয়ে জমা হয়।

চেক লেখার নিয়ম (How to fill cheque for other Person)

নির্দিষ্ট ব্যাংক চেক এর মধ্যে যে সকল জিনিস গুলো দেবার প্রয়োজন হয় সেগুলি হল –

  1. Pay
  2. Rupees
  3. ₹ (Rs Sign)
  4. Date
  5. Signature Authorized
  6. A/c Payee

এই সকল বিষয় গুলো সঠিক ভাবে চেক এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করলেই চেকটি গ্রহণযোগ্য হয়। নচেৎ এটি ক্যানসিল হয়ে যেতে পারে। চেক লেখার জন্য এই সকল বিষয় গুলি বিস্তারিত নিচে দেওয়া হল।

চেক লেখার নিয়ম

1. Pay

আপনি যাকে চেকের মাধ্যমে টাকা দিতে চান তার নাম এখানে লিখতে হয়। Pay মানে হলো টাকা প্রদান করা।

এইখানে যে ব্যক্তিকে চেক দিচ্ছেন তার নাম স্পষ্ট ভাবে লিখতে হবে। এবং তার নামের স্পেলিং যেন ভুল না হয় সেদিকেও নজর রাখতে হবে।

কারণ অনেক ক্ষেত্রে চেক জমা দেওয়ার সময় আইডি খুলতে হয়। আইডি প্রুফ এর সাথে যাকে চেক দিচ্ছেন তার নাম যেন এক হয় সেদিকে নজর রাখবেন।

2. Rupees

এখানে আপনি চেকের মাধ্যমে কত টাকা দিতে চাইছেন সেটি কথায় লিখতে হবে।

যদি 10 হাজার টাকা দেন তাহলে Ten Thousand only, যদি 1 লক্ষ টাকা দেন তাহলে One Lakh only – এইভাবে কথায় লিখতে হবে।

এবং সর্বদা টাকা লেখার পড়ে only কথাটা লিখতেই হবে। কারণ এটি ব্যাংকের নিয়ম। এবং যেন কেউ অতিরিক্ত টাকা না লিখতে পারে, এই দিকে নজর রাখার জন্যও এই কথাটা লিখতে হয়।

3. ₹ (Rs Sign)

এরপর আপনি চেক এর ডান দিকে ₹ : এরকম একটি চিহ্ন দেখতে পাবেন। এখানে আপনি যে টাকাটি কথায় লিখেছেন সেটি সংখ্যায় লিখবেন।

যদি দশ হাজার টাকা দিতে চান তাহলে এই ঘরটিতে 10000/- লিখতে হবে।

এবং সংখ্যায় টাকা লেখার পর সর্বদা শেষে /- এই চিহ্নটি ব্যবহার করতে হয়। নির্দিষ্ট সংখ্যার শেষে যেন কেউ অতিরিক্ত সংখ্যা বেশি না লিখে নিতে পারে, এই জন্য এটি লেখা আবশ্যক।

4. Date

এরপর চেকের উপরের ডানদিকে কারেন্ট ডেট দিন। সাধারণত Date বসানোর পরে, একটি চেকের বর্তমান দিন থেকে ৩ মাস ভ্যালিড থাকে। অর্থাৎ নির্দিষ্ট চেকটির মাধ্যমে তিন মাসের মধ্যে যেকোনো দিন টাকা তোলা যাবে।

5. Signature Authorized

সবকিছু সঠিকভাবে লেখার পর চেকের একদম নিচের ডানদিকে Signature Authorized লেখা দেখতে পাবেন। এখানে আপনি সাক্ষর করে, নির্দিষ্ট ব্যাক্তিকে চেকটি দিয়ে দেবেন।

তবে একটি জিনিস মাথায় রাখবেন, আপনার ব্যাংকে দেওয়া সাক্ষরের সাথে চেকের ওপরে করা সাক্ষর এর মিল হতে হবে। নচেৎ চেকটি cancel হয়ে যেতে পারে।

6. A/c Payee

এর পর উপরের দিকে যেখানে Pay লেখা আছে। সেটির একদম উপরের কোণে, দুটি তির্যক রেখা অঙ্কন করে আপনাকে A/c Payee লিখতে হবে।

এতে করে চেকে লেখা পরিমাণ শুধু চেকের ওপরে লেখা নামের অ্যাকাউন্টে পাঠানো যায়।

নিজের নামে চেক লেখার নিয়ম (How to write cheque for Self)

নিজের নামের চেক লেখার নিয়মটা কিছুটা আলাদা। নিজের নামের চেক কিভাবে লিখতে হয় (How to write Self withdrawal cheque) – এটা এখান থেকে জেনে নিন।

নিজের নামে চেক লেখার নিয়ম

1. Pay

এই অপশনটিতে শুধুমাত্র, Self কথাটি লিখতে হয়। তবে এই কথাটি আপনি তখনই চেক এর মধ্যে ব্যবহার করতে পারবেন, যখন সেই ব্যাংকে আপনার একাউন্ট থাকবে। এবং আপনার অ্যাকাউন্টের মধ্যে চেক বই যুক্ত করা থাকবে।

Self কথাটির মানে হলো নিজ। নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে চেকের মাধ্যমে যখন নিজের টাকা তোলা হয় তখন নিজের নামের পরিবর্তে সেলফ কথাটি লিখতে হয়।

2. Rupees

এখানে কত টাকা তুলতে চাইছেন, সেটি কথায় লিখতে হবে।

3. ₹ (Rs Sign)

যে টাকাটি তুলছেন সেটি সংখ্যায় লিখুন।

4. Date

কারেন্ট তারিখ দিন।

5. Signature Authorized

এখানে আপনার সাক্ষর করুন।

সবকিছু সঠিকভাবে পূরণ করার পর ব্যাংকে গিয়ে আপনি চেকটি জমা দিতে পারেন। ব্যাংকে জমা হওয়ার সাথে সাথে আপনি চেক এর পরিবর্তে টাকা পেয়ে যাবেন।

উপসংহার

আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটি থেকে চেক কিভাবে লিখতে হয় এবং নিজের নামে চেক লেখার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন। যদি এখনও চেক লেখা নিয়ে আপনি কোন অসুবিধায় পড়ে থাকেন তাহলে আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

Sanju

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment