চেক কি | চেক কত প্রকার ও কি কি | চেকের বৈশিষ্ট্য কি কি?

যারা ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেন তাদের মধ্যে বেশিরভাগ ব্যাক্তি চেক শব্দটি সম্পর্কে পরিচিত আছেন। তবে চেক সম্পর্কে এমন কিছু প্রশ্ন আছে যেগুলি অনেক ব্যক্তি জানেন না। এই জন্য আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনারা চেক সম্পর্কিত বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর পাবেন।

যেমন – চেক কি, চেক কত প্রকার ও কি কি, চেকের বৈশিষ্ট্য কি কি, চেক লেখার নিয়ম ইত্যাদি।

যদি এই সকল বিষয়ে আপনি জানতে চান তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাকে সাহায্য করবে। তাই দেরি না করে আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন।

চেক কি?

যেকোনো এক ধরনের আর্থিক নথি বা ডকুমেন্টস। যেটি ব্যাংকের মাধ্যমে নির্দিষ্ট অ্যাকাউন্ট হোল্ডারকে ক্যাশ বিহীন ভাবে অর্থের transaction করার জন্য দেওয়া হয়ে থাকে।

চেকের মাধ্যমে নির্দিষ্ট ব্যক্তি নির্দিষ্ট ব্যাংকে, তার অ্যাকাউন্ট থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ অন্য কোনো ব্যক্তি বা কোম্পানির একাউন্টে পাঠানোর আদেশ দিয়ে থাকে।

একটি নির্দিষ্ট চেক এর মধ্যে চেক নম্বর, আইএফএসসি কোড এবং এমআইসিআর কোড লেখা থাকে। যার মাধ্যমে খুব সহজেই এটি কোন ব্যাংকের এবং কোন ব্রাঞ্চের চেক বুঝে ওঠা যায়।

নির্দিষ্ট ব্যক্তি যখন অন্য কোনো ব্যক্তি বা কোম্পানিকে চেকের মাধ্যমে টাকা প্রদান করার সুযোগ দেয়, তখন অন্য ব্যক্তি বা কোম্পানির নামে নির্দিষ্ট চেকটি ইস্যু করতে হয়।

চেকের মাধ্যমে টাকা লেনদেন করা খুবই সহজ এবং ঝুঁকি ছাড়াই খুব সহজে টাকা লেনদেন করার জন্য চেক ব্যবহার করা হয়।

চেক কাকে বলে?

ব্যাংকের যে আর্থিক নথি বা ডকুমেন্টস এর মাধ্যমে নির্দিষ্ট ব্যক্তি নির্দিষ্ট ব্যাংকে, তার অ্যাকাউন্ট থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ অন্য কোনো ব্যক্তি বা কোম্পানির একাউন্টে পাঠানোর আদেশ দিয়ে থাকে; সেই নথি বা ডকুমেন্টসকে চেক বলে।

চেক কত প্রকার ও কি কি?

1. Bearer Cheque (বহনকারী চেক)

যে কোনো ব্যক্তি বা অ্যাকাউন্টধারীর প্রতিনিধি ব্যাঙ্কে গিয়ে এই চেকটি ক্লিয়ার করতে পারেন।

এই চেকটি নগদকরণের জন্য ব্যাঙ্কে দেওয়া হয় এবং এর জন্য কোনও পরিচয়ের প্রয়োজন হয় না। এই চেক নগদ লেনদেনের জন্য ব্যবহার করা হয়।

2. Crossed Cheque (ক্রসড চেক)

চেকের উপরের অংশে অর্থাৎ চেকের কোণে সমান্তরাল রেখা রয়েছে, এটি ক্রস করা চেকের পরিচয়।

একটি ক্রস করা চেক একটি নির্দিষ্ট সংস্থা বা ব্যক্তির নামে লেখা হয় এবং উপরের বাম দিকে দুটি সমান্তরাল রেখা আঁকা হয়।

এই চেক থেকে নগদ টাকা তোলা হয় না, এই টাকা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের অ্যাকাউন্টে জমা হয়।

3. Open Cheque (ওপেন চেক)

Open Cheque এমন একটি চেক যা ব্যাঙ্কে দেওয়া হলে, কাউন্টারেই নগদ টাকা পাওয়া যায়। Open Cheque ধারণকারী ব্যক্তি কাউন্টারে যেতে পারেন, চেকটি দেখাতে পারেন এবং অর্থ সংগ্রহ করতে পারেন এবং তিনি তার অ্যাকাউন্টে অর্থ স্থানান্তরও করতে পারেন।

যদি আপনি Open Cheque পেয়ে থাকেন তাহলে, এর জন্য আপনাকে ছাড়পত্রের জন্য অপেক্ষা করতে হবে না। অথবা আপনি চাইলে চেকের পিছনে স্বাক্ষর করে অন্য ব্যক্তিকে অনুমোদন করতে পারেন।

4. Order Cheque (অর্ডার চেক)

আইডি নম্বর এবং মনোনীত ব্যক্তির স্বাক্ষর দ্বারা অর্ডার চেকের অর্থ প্রদান করা হয়। এই ধরনের চেক যা কোনো নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা তার অর্ডারের জন্য প্রদেয়, তাই একে অর্ডার চেক বলা হয়।

এটি, একটি Open Cheque এর মতো, কেউ চেকের মাধ্যমে তার অ্যাকাউন্টে অর্থ স্থানান্তর করতে পারে বা চেকের পিছনে স্বাক্ষর করে অন্য কোনও ব্যক্তিকে অনুমোদন করতে পারে।

অর্ডার চেকে, “bearer (বাহক)” শব্দটি বাদ দেওয়া হয় এবং “order (অর্ডার)” শব্দটি তার জায়গায় লেখা হয়।

অবস্থান অনুসারে চেকের শ্রেণীবিভাগ

1. Local Cheque (স্থানীয় চেক)

যদি এক শহরের চেক অন্য শহরের ব্যাঙ্কে ক্লিয়ার হয়, তাহলে তাকে লোকাল চেক বলে। আপনি যদি এই ধরণের চেক শহরের বাইরে নিয়ে গিয়ে ক্লিয়ার করেন তবে আপনাকে এর জন্য আলাদাভাবে অর্থ প্রদান করতে হবে। স্থানীয় চেক সাধারণত লোকাল এর মধ্যে ব্যবহার করা হয়।

2. Outstation Cheque (আউটস্টেশন চেক)

আউটস্টেশন চেক হল এমন একটি চেক, যেটি শহরের বাইরে নিয়ে গেলেই ক্লিয়ার হয়ে যায়। আউটস্টেশন চেকগুলি clear করার জন্য, ব্যাঙ্ক কিছু নির্দিষ্ট চার্জ নেয়।

3. At par Cheque

এই ধরণের চেকের সবচেয়ে ভালো এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল বাইরের ব্যাঙ্কের শাখায় এটি ক্লিয়ার করার জন্য কোন অতিরিক্ত চার্জ দিতে হয়না।

মূল্য অনুসারে চেকের শ্রেণীবিভাগ

1. Normal Value Cheques (সাধারণ মূল্য চেক)

বন্ধুরা, সাধারণ মূল্য চেক হল সেই চেক, যেগুলির মূল্য 1 লাখের কম।

2. High Value Cheques (উচ্চ মূল্যের চেক)

যে চেকটি 1 লাখের উপরে হয় তাকে উচ্চ মূল্যের চেক বলে।

3. Gift Cheques (উপহার চেক কি)

উপহারের চেক এটি এমন একটি চেক যা প্রিয়জনকে উপহার, প্রণোদনা, পুরস্কার ইত্যাদি আকারে দেওয়া হয়। একেই বলে গিফট চেক।

চেকের পক্ষ কয়টি ও কি কি?

একটি চেকের তিনটি পক্ষ থাকে। সেগুলি হলো আদেষ্টা, আদিষ্ট এবং প্রাপক।

১. আদেষ্টা বা প্রস্তুতকারক (Drawer)

যে নির্দিষ্ট ব্যক্তি চেকটি লিখছেন বা তৈরি করেছেন অন্য কারো জন্য; তিনি হলেন আদেষ্টা বা প্রস্তুতকারক।

অর্থাৎ যার নামে চেক বইটি আছে তিনি হলেন প্রস্তুতকারক। সাধারণত তিনিই অন্য কাউকে টাকা দেওয়ার জন্য তার চেক বই থেকে একটি চেক অন্য কাউকে দিয়ে থাকে।

২. আদিষ্ট বা নির্দিষ্ট ব্যাংক (Drawee)

যে ব্যাংকের চেক দেওয়া হচ্ছে বা যে নির্দিষ্ট ব্যাংকের মাধ্যমে চেকটি, কার্যকরী করার আদেশ দেওয়া হচ্ছে সেই ব্যাংকটি হলো আদিষ্ট বা Drawee। আদিষ্ট ব্যাংকের মাধ্যমে একজন প্রাপক চেকটি ভাঙাতে পারে।

৩. প্রাপক বা (Payee)

একজন আদেষ্টা বা প্রস্তুতকারক যার নামে চেকটি লিখেছেন বা প্রস্তুত করেছেন তিনি হলেন প্রাপক। একজন প্রস্তুতকারক চেকটি প্রাপককে দেওয়ার পর, সেই প্রাপক আদিষ্ট ব্যাংকে গিয়ে চেকের মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবে।

চেকের বৈশিষ্ট্য কি কি?

  1. চেক হলো এক ধরনের লিখিত আদেশ। যার মাধ্যমে নির্দিষ্ট ব্যক্তি অন্য ব্যক্তিকে টাকা প্রদান করার জন্য ব্যাংকে, আদেশ দিয়ে থাকে।
  2. ব্যাংক ছাড়া চেকের আদেশ অন্য কাউকে দেওয়া যায় না।
  3. নির্দিষ্ট ব্যাংকে চেক জমা দেওয়ার পর সাথে সাথে টাকা উইথড্র করা যায়।
  4. অ্যাকাউন্ট হোল্ডার এর স্বাক্ষর ছাড়া চেক বৈধ হয় না।
  5. যে ব্যক্তি কে চেক প্রদান করা হচ্ছে তার নাম অবশ্যই চেকের ওপর লিখতে হয়।
  6. Valid তারিখ ছাড়া চেক গ্রহণযোগ্য হয়না।
  7. নির্দিষ্ট দেশের চেক, দেশের কারেন্সি অনুযায়ী পরিশোধ করতে হয়।
  8. টাকার পরিমান সংখ্যায় ও কথায় লিখতে হয়।

চেক লেখার নিয়ম

চেক লেখার নিয়ম

Pay – এই অপশনটিতে যে ব্যক্তি বা কোম্পানিকে চেক দিতে চান সেই ব্যক্তির নাম লিখুন।

Rupees – এখানে কত টাকা দিতে চাইছেন, সেটি কথায় লিখতে হবে।

₹ (Rs Sign) – যে টাকাটি দিচ্ছেন সেটি সংখ্যায় লিখুন।

Date – কারেন্ট তারিখ দিন।

Signature Authorized – এখানে আপনার সাক্ষর করুন।

এইসব কিছু সঠিকভাবে পূরণ করার চেকটি আপনি নির্দিষ্ট প্রাপক কে দিতে পারেন।

চেক বই কি?

ব্যাংক থেকে যখন চেক নেওয়া হয় তখন ব্যাংক একটি চেক বই দেয়। যার মধ্যে ৫০ থেকে ১০০ টি চেক অন্তর্ভুক্ত থাকে। বিভিন্ন প্রাপককে সেই বই থেকে একটি একটি করে চেক লিখে টাকা প্রদান করা হয়। এই নির্দিষ্ট বয়সের মধ্যে অনেকগুলোই চেক একসাথে থাকার কারণে এটিকে বই আকারে গ্রাহককে দেওয়া হয়ে থাকে। এই বইটিকেই চেক বই বলা হয়।

ক্রস চেক কি?

একটি ক্রস করা চেক একটি নির্দিষ্ট সংস্থা বা ব্যক্তির নামে লেখা হয় এবং উপরের বাম দিকে দুটি সমান্তরাল রেখা আঁকা হয়।

যার মধ্যে & CO., Account Payee or Not Negotiable লেখা থাকে, বা কখনও কখনও লেখা হয় না।

এই চেক থেকে নগদ টাকা তোলা হয় না, এই টাকা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের অ্যাকাউন্টে জমা হয়।

ইস্যুকৃত চেক কি?

যে সকল চেক, প‌রি‌শো‌ধের জন্য ব্যাংকে উপস্থাপিত হয়নি সেগুলিকে বকেয়া চেক বা ইস্যুকত চেক বা অপ‌রি‌শো‌ধিত চেক বলে।

চেকের মেয়াদ কতদিন থাকে?

সাধারণত একটি চেকের মেয়াদ, চেক ইস্যুর তারিখ থেকে ছয় মাস মেয়াদে কার্যকর থাকে। অর্থাৎ যদি আপনি আজকে একটি চেক লিখেন তাহলে এর মেয়াদ আজ থেকে ছয় মাস পর্যন্ত ভ্যালিড থাকবে। আপনি এই ছয় মাসের মধ্যে যেকোনো দিন ব্যাংকে গিয়ে টাকা তুলতে পারেন।

উপসংহার

আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি চেক কি, চেক কত প্রকার ও কি কি, চেকের বৈশিষ্ট্য কি কি এবং চেক লেখার নিয়ম সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন। যদি এখনো এই আর্টিকেলটি সম্পর্কে আপনার কোন কিছু জানার থাকে তাহলে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

Sanju

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment