ইউটিউব মার্কেটিং কি – ইউটিউব মার্কেটিং কিভাবে করে?

আজকের দিনের বেশিরভাগ মার্কেটিং, ইউটিউব এর মাধ্যমে হয়ে থাকে। এখানে বিভিন্ন জিনিসের ভিডিও বানিয়ে সেগুলিকে প্রমোট করা হয়। এবং এর মাধ্যমে নির্দিষ্ট ইউটিউবার এবং কোম্পানি লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করে। এইজন্য আপনারও বর্তমান সময়ে ইউটিউব মার্কেটিং সম্পর্কে অল্পবিস্তর জেনে থাকা দরকার।

আজকের আর্টিকেল থেকে আপনি ইউটিউব মার্কেটিং কি এবং ইউটিউব মার্কেটিং কিভাবে করে এই সম্পর্কে জানতে পারবেন। যদি আপনিও ইউটিউব মার্কেটিং শুরু করতে চান তাহলে আজকের ইনফর্মেশনগুলি আপনাকে সাহায্য করবে।

ইউটিউব মার্কেটিং কি?

ইউটিউব এর মাধ্যমে নির্দিষ্ট প্রোডাক্টের প্রমোশন এবং banding করাকে বলা হয় ইউটিউব মার্কেটিং।

ইউটিউব মার্কেটিং হল ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি অংশ। বর্তমান দিনে ইউটিউব হলো সবথেকে বড় একটি ভিডিও প্ল্যাটফর্ম। এইজন্য ইউটিউব এর মাধ্যমে বড় বড় প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের পণ্য এবং সার্ভিস গুলির মার্কেটিং করে থাকে। ইউটিউব এর মাধ্যমে ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করে বিভিন্ন প্রোডাক্ট মার্কেটিং এর করা হয়।

ইউটিউবের মাধ্যমে মার্কেটিং করার জন্য সর্বপ্রথম একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করার প্রয়োজন পড়ে। সেখানে ভিডিও কনটেন্ট বানিয়ে সেখানে বিভিন্নভাবে মার্কেটিং করা হয়।

ইউটিউব মার্কেটিং কেন করবেন?

বর্তমানে ইউটিউব হলো সবথেকে বড় একটি ভিডিও প্লাটফর্ম। এবং এখানে দিনের-পর-দিন ইউজারের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। এর সাথে সাথে এখানে প্রত্যেকটি ক্যাটাগরির ইউজার বর্তমান রয়েছে।

ইউটিউব এর মাধ্যমে ভিডিও মার্কেটিং করে আয় করবার জন্য ইউটিউব মার্কেটিং করা খুবই দরকারি। ইউটিউব মার্কেটিং এর ফলে ইউটিউবার এবং বিভিন্ন কোম্পানি – দুই পক্ষেরই সুবিধা হয়।

এছাড়া

  • ভিডিও মার্কেটিং এ বেশি মানুষ আকর্ষিত হয়
  • খুব সহজে মানুষের মনে ধরে
  • এক ব্যাক্তি থেকে অন্য ব্যাক্তিতে Share বেশি হয়
  • SERP তে খুব তাড়াতাড়ি Rank হয়
  • বিনামূল্যেও শুরু করতে পারবেন।

ইউটিউব মার্কেটিং এর সুবিধা

  1. বিনামূল্যে ইউটিউব মার্কেটিং করতে পারেন
  2. ইন্টারন্যাশনাল ট্রাফিক পাবেন
  3. নিজের কোন ব্যবসা থাকবে সে সমস্ত পণ্যগুলি খুব সহজে প্রমোট করতে পারবেন
  4. সহজেই হ্যান্ডেল করা যায়
  5. কম খরচে অনেক সুবিধা পাবেন।

ইউটিউব মার্কেটিং কিভাবে করে?

ইউটিউব মার্কেটিং করার জন্য আপনাকে প্রথমে একটি ইউটিউব চ্যানেল বানাতে হবে। এবং সেখানে নির্দিষ্ট প্রোডাক্ট সম্পর্কিত ভিডিও আপলোড করতে হবে।

এই ভাবে কাজ করতে করতে যখন আপনার চ্যানেল টি grow হবে এবং সাবস্ক্রাইবার ও viewers এর সংখ্যা বাড়বে, তখন আপনি ইউটিউব মার্কেটিং করা শুরু করতে পারবেন।

আপনার চ্যানেল টি grow হওয়ার সাথে সাথে আপনি বিভিন্ন কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করতে পারেন বা আপনার কোন পণ্য প্রমোট করতে পারেন।

যার ফলে তারা তাদের প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস গুলি আপনার চ্যানেলের মাধ্যমে মার্কেটিং করবে। অর্থাৎ আপনি তাদের প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস গুলি আপনার চ্যানেলে স্পনসর পোস্ট হিসাবে, viewers দের সামনে তুলে ধরতে পারেন।

নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠা কোম্পানি এর পরিবর্তে আপনাকে কমিশন বা charge প্রদান করবে।

এইভাবে আপনি খুব সহজ উপায় ইউটিউব মার্কেটিং শুরু করতে পারেন।

YouTube marketing tips

  • ইউটিউব চ্যানেল বড় করার জন্য আপনাকে নিয়মিত ভিডিও পোস্ট করতে হবে।
  • আপনার ইউজার দের কিরকম জিনিস পছন্দ এই সম্পর্কিত ভিডিও বানাতে হবে।
  • ভিডিও কোয়ালিটি পূর্ণ হতে হবে।
  • অন্যান্য ইউটিউবার দের সাথে যোগাযোগ করে একসাথে সহযোগিতামূলক ভিডিও বানাতে হবে।
  • বিভিন্ন কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করতে হবে।
  • কোম্পানির স্পনসর পোস্ট বানিয়ে, ইউটিউব চ্যানেলে ছাড়তে হবে।
  • নির্দিষ্ট product লিংক video description এ ছাড়তে পারেন।

উপসংহার

আশা করি আজকের এই ইনফরমেশন থেকে ইউটিউব মার্কেটিং কি, ইউটিউব মার্কেটিং কেন করবেন এবং ইউটিউব মার্কেটিং কিভাবে করে এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। যদি আপনি ও বর্তমান দিনে ইউটিউব মার্কেটিং শুরু করার কথা ভাবেন তাহলে উপরের ইনফর্মেশন মত step-by-step ইউটিউব মার্কেটিং শুরু করে নতুন আয়ের রাস্তা খুলতে পারেন।

আরও পড়ুন

Sanju

Leave a Comment