কিভাবে আর্মি অফিসার হওয়া যায় | আর্মি অফিসার হওয়ার যোগ্যতা ও বেতন

অনেক ছাত্র-ছাত্রীদের ছোট থেকে স্বপ্ন থাকে বড় হয়ে, তারা তাদের দেশকে রক্ষা ও সেবা করবে। এজন্য অনেক ছাত্রছাত্রী বড় হয়ে আর্মি অফিসার হওয়ার স্বপ্ন দেখে।

যদি আপনিও একজন আর্মি অফিসার হতে চান এবং আর্মি অফিসার হওয়ার যোগ্যতা কি লাগে এই সম্পর্কে না জেনে থাকেন তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাকে সঠিক রাস্তা দেখাবে।

আজকের এই আর্টিকেল থেকে আমরা কিভাবে আর্মি অফিসার হওয়া যায়, আর্মি অফিসার হওয়ার যোগ্যতা, আর্মি অফিসার হওয়ার সুবিধা ও বেতন সম্পর্কে আলোচনা করব।

যদি আপনি একজন আর্মি হতে চান এবং আর্মি হতে গেলে কি কি করা দরকার সেই সম্পর্কে জানতে চান, তাহলে এই সমস্ত প্রশ্ন গুলোর উত্তর একটি একটি করে দেখে নিন।

কিভাবে আর্মি অফিসার হওয়া যায়?

  • ইন্ডিয়ান আর্মি অফিসার হওয়ার জন্য আপনাকে প্রথম ভারতের নাগরিক হতে হবে
  • এরপর দশম ও দ্বাদশ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার সময় ভালো নম্বর ও মার্কস নিয়ে পাশ করতে হবে
    আর্মি অফিসার হওয়ার জন্য উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর আপনি NDA পরীক্ষা দিতে পারেন এবং গ্রাজুয়েশন পাশ করলে CDS পরীক্ষা দিতে পারেন।

ইউপিএসসি দ্বারা NDA ও CDS পরীক্ষার আয়োজন করা হয়। আপনি আপনার যোগ্যতা অনুযায়ী এই দুটি পরীক্ষার মধ্যে যে কোনো একটি দিতে পারেন। এই পরীক্ষার ফরম বছরে দুইবার দেওয়া হয়।

আর্মি অফিসার হওয়ার যোগ্যতা

  • আর্মি পরীক্ষায় বসার জন্য আপনার বয়স 18 থেকে 25 বছরের মধ্যে হতে হবে।
  • এর সাথে সাথে আপনার হাইট ন্যূনতম 170cm এবং বুকের ছাতি 77cm হওয়া দরকার।
  • এছাড়াও আপনার হাইট এর সাথে আপনার ওজনের অনুপাত ঠিক থাকতে হবে এবং মানসিক ও শারীরিক দিক থেকেও ফিট হতে হবে।
  • এবং দৃষ্টিশক্তির যেন কোনো সমস্যা না থাকে এই দিকেও নজর রাখতে হবে।

যদি এই সমস্ত জিনিস গুলো আপনার থাকে তাহলে আপনি আর্মিতে যোগদান করতে পারেন।

সেনাবাহিনীতে মেয়েদের যোগ্যতা

  • ওমেন মিলিটারি পুলিশ পদের জন্য আবেদনকারীদের উচ্চতা ১৫২ সেন্টিমিটার বা তার বেশি হতে হবে।
  • মাধ্যমিক বা সমতুল্য বোর্ডের পরীক্ষায় ৪৫ শতাংশের বেশি গড় নম্বর এবং প্রতিটি বিষয়ে অন্তত ৩৩ শতাংশ নম্বর-সহ উর্ত্তীর্ণরা ওমেন মিলিটারি পুলিশ পদের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

আর্মি অফিসারের কাজ কি?

  • আর্মি অফিসার এর প্রধান কাজ হলো তার দেশকে রক্ষা করা।
  • বাইরের দেশ থেকে কোন আক্রমণ হলে, শত্রুর থেকে তার দেশকে বাঁচানো হল একজন আর্মির প্রধান কাজ।
  • কিছু মিলিটারি আছে যাদের কাজ দেশের নাগরিককে রক্ষা করা।
  • এবং দেশের ভেতরে দরকারি সময়ে মিলিটারি পুলিশের একটি সংস্থা দেশের মধ্যে সমস্যা মিটিয়ে থাকে।

আর্মি অফিসার হওয়ার উপায়

আমরা উপরে আর্মি অফিসার হওয়ার জন্য কি কি করতে হবে সেটা সম্পর্কে সর্টকাটে বলেছি। এখন আমরা আর্মি অফিসার হওয়ার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত জানব। আর্মি অফিসার হওয়ার জন্য আপনি এই সকল পয়েন্টগুলি একটি একটি করে জেনে নিন।

১. দ্বাদশ শ্রেণী পাস করুন

আর্মি অফিসার হওয়ার জন্য আপনাকে মিনিমাম দ্বাদশ শ্রেণী পাস করতে হবে। দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর আপনাকে ইউপিএসসি দ্বারা আয়োজিত NDA পরীক্ষা দিতে হবে। এইজন্য আপনি একাদশ শ্রেণি থেকে NDA পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি শুরু করে দিন।

২. NDA exam দিন

দ্বাদশ শ্রেণী পাস করার পর আপনি NDA এক্সাম দিন। এটি হলো একটি কঠিন পরীক্ষা। এই পরীক্ষায় পাস করার জন্য অনেক পরিশ্রম করতে হয়।

ন্যাশনাল ডিফেন্স একাডেমী (NDA) পরীক্ষা দুটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। একটি হচ্ছে গণিতের উপর এবং অপরটি জেনারেল এবিলিটির ওপর।

গণিত পরীক্ষাটি 300 নম্বরের হয়ে থাকে এবং জেনারেল এবিলিটি পরীক্ষা 600 নম্বরের হয়।

দুটি পরীক্ষায় নেগেটিভ মার্কিং থাকে। প্রশ্নের ভুল উত্তরের জন্য 0.33 করে নাম্বার কাটা যায়।

এছাড়া আরও একটি কথা বলে রাখি,

ডিফেন্স লাইনে ক্যারিয়ার বানানোর জন্য, গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট করার পর combine defence service (CDN) exam একটি ভাল বিকল্প। যেটির আয়োজন বছরে দুইবার করা হয়।

৩. SSB interview পাশ করুন

NDA লিখিত পরীক্ষায় পাশ করবার পর আপনাকে SSB interview দিতে হবে। এই ইন্টারভিউ এর মাধ্যমে রিয়াকশন টেস্ট, সিচুয়েশন টেস্ট, গ্রুপ ডিসকাশন সম্পর্কিত প্রশ্ন গুলি করা হয়। এই ইন্টারভিউতে পাস করার জন্য খুব ভালো করে তৈরি হতে হয়। এবং আর্মি অফিসার হওয়ার জন্য এই ইন্টারভিউতে দিয়ে আপনাকে পাশ করতেই হবে।

৪. ফিজিক্যাল টেস্ট দিন

ইন্টার পাশ করার পর আপনাকে লং জাম্প ও হাই জাম্পের মত ফিজিক্যাল টেস্ট দিতে হবে। এবং এর সাথে সাথে 1600 মিটারের দৌড় 5 মিনিট 40 সেকেন্ডের মধ্যে পূরণ করতে হবে।

৫. মেডিকেল টেস্ট দিন

ফিজিক্যাল টেস্ট সম্পন্ন হওয়ার পর আপনাকে মেডিকেল টেস্ট দিতে হবে। যেখানে চোখের কোন সমস্যা আছে নাকি, গলার আওয়াজ কেমন, কানের সমস্যা – ইত্যাদি জিনিসগুলি পরীক্ষা করা হয়।

মেডিকেল টেস্টে সফল হলে আপনাকে ডকুমেন্ট ভেরিফিকেশন এর জন্য বলা হবে।

৬. ডকুমেন্ট ভেরিফিকেশন করুন

ডকুমেন্ট ভেরিফিকেশন এর জন্য ক্লাস টেন ও টুয়েলভ এর সার্টিফিকেট ও মার্কশিট, পরিচয় পত্র, ফিটনেস প্রমাণ পত্র, জাতি প্রমাণপত্র, নিবাস প্রমান পত্র ইত্যাদি ডকুমেন্টগুলো জমা দিতে হবে।

ডকুমেন্ট ভেরিফাই করার পর আপনাকে ট্রেনিং দেওয়া হবে।

৭. ট্রেনিং সম্পন্ন করুন

এরপর আপনাকে 6 থেকে এক বছরের ট্রেনিং দেওয়া হবে। যদি আপনি সফলভাবে, প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করেন তাহলে আপনাকে আর্মি অফিসারের পদ দেওয়া হবে।

আর্মি অফিসারদের সুযোগ-সুবিধা

  1. পুরো সমাজ আপনাকে সম্মান করবে
  2. সরকারি চাকরি হওয়ার কারণে বেতন অনেক বেশি
    সেনার পদ ছেড়ে দিয়ে আপনি যেকোন ধরনের সরকারি চাকরি করতে পারবেন
  3. বেতনের সাথে সাথে নির্দিষ্ট কাজের জন্য বোনাস দেওয়া হয়
  4. সৈনিক ও তার পরিবারের সদস্যদের বিনামূল্যে চিকিৎসা করানোর সুযোগ থাকে
  5. সরকারের যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা প্রাপ্ত হয়
  6. বীর সিপাই নামে সবাই চেনে।

আর্মি অফিসারদের বেতন

ভারতে, একজন আর্মি অফিসারের স্টার্টিং বেতন কুড়ি হাজার থেকে শুরু হয়। বর্তমানে সপ্তম বেতন চালু হবার জন্য আর্মি অফিসারের বেতন বৃদ্ধি হয়েছে। সপ্তম বেতন অনুসারে একজন আর্মি অফিসারের বেতন 56,000 থেকে 1 লাখ 77 হাজার 200 টাকার মধ্যে হয়। এর সাথে সাথে অফিসার কে গ্রেড পে এবং বোনাস দেওয়া হয়।

কি কি সমস্যা থাকলে সেনাবাহিনীর চাকরি হয় না?

আপনার চোখ কান, নাক, দাঁত, লিঙ্গ, ভেরিকছ, গুটি সমস্যা থাকলে এবং বিছি ছোটা বড়, হাত পায়ে কাটা, সোজা হয়ে দাঁড়ালে হাটুর সাথে হাটু লাগা, হাত ঘামা, ইত্যাদি এগুলোর ভিতর কোনোটাতে সমস্যা সেনাবাহিনীর চাকরি হয় না।

উপসংহার

আশা করছি উপরের ইনফর্মেশন থেকে কিভাবে আর্মি অফিসার হওয়া যায়, আর্মি অফিসার হওয়ার যোগ্যতা এবং সুবিধা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। এই আর্টিকেল থেকে ভারতে আর্মি অফিসার হওয়ার উপায় সম্পর্কে বলা হয়েছে। যদি আপনি একজন ভারতীয় হন এবং ভবিষ্যতে একজন আর্মি অফিসার হতে চান তাহলে এই সকল ইনফরমেশন গুলো মাথায় রেখে, ভবিষ্যতের জন্য এগিয়ে যান। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

আরও পড়ুন

Sanju

আমি সঞ্জু রাউত। আমার বাড়ি কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ। আমি অন্যকে ইনফরমেশন দিয়ে সাহায্য করতে ভালোবাসি। তাই আমি এই ব্লগটি ওপেন করি, যার দ্বারা আমার সখ এবং অন্যকে সাহায্য দুটোই সম্ভব হয়।

Leave a Comment